মাসিক হচ্ছে না, নিয়মত করার কি কোন ওষুধ আছে?

প্রশ্ন: Girl friend এর সাথে তার মাসিক (period) হবার নিয়মিত তারিখ ২২…তার মাসিক শেষ হবার ৪ দিন পর ২৬ তারিখ ১.৩০ এর দিকে সেক্স করেছি…প্রায় ২৭ ঘন্টা পর সে পিল খেয়েছিল…এখন তার মাসিকের তারিখ ২৪ হয়ে গেছে …২ দিন পার হয়ে গেলো কিন্তু তার মাসিক (period)  হলো না…সে অনেক ভয় পাচ্ছে আর কান্নাকাটি করছে…এখন তার মাসিক করানোর জন্য কি উপায় আছে …তার সাথে প্রথমবার সেক্স করা এখনও ১ মাস হয়নাই …২৬ তারিখ ১ মাস হবে …এখন কি করব প্লিজ একটু জানান.

উত্তর: অনিয়মিত মাসিকের সমস্যা যে কোন বয়সের নারীদের মাঝেই দেখা যেতে পারে। বিশেষ করে যারা অবিবাহিত, তাঁদের মাঝে বেশি দেখা যায় এই অনিয়মিত পিরিয়ডের (period) সমস্যা। অনিয়মিত পিরিয়ডের (period) কারণে সন্তান ধারণে সমস্যা হতে পারে। অনিয়মিত মাসিক নিয়মিত করার ২টি দারুণ ঘরোয়া চিকিৎসা। দুটোর মাঝে যে কোন একটি পালন করুন মাত্র ১ মাস। আশা করি সমস্যা ‍দূর হবে। ১। আদার ব্যবহারঃ বহু গুণের এই আদা কেবল সর্দি কাশি সারাতেই কাজে লাগে না, পিরিয়ডকে (period) নিয়মিত করতেও এর জুড়ি নেই। কীভাবে ব্যবহার করবেন এই আদা? – ১ কাপ পানি নিন। এতে ১ চা চামচ মিহি আদা কুচি ৫ থেকে ৭ মিনিট ফুটিয়ে নিন। – সামান্য চিনি বা মধু যোগ করুন। – এই পানীয়টি পান করুন দিনে ৩ বার, খাবার খাওয়ার পর। – ১ মাস নিয়মিত পান করুন, পিরিয়ড (period) নিয়মিত হয়ে যাবে নিশ্চিত। ২।দারুচিনিঃ – পিরিয়ডকে (period) নিয়মিত করতে দারুচিনি আরেকটি দারুণ কার্যকরী উপাদান। এই দারুচিনি ব্যবহার করে পিরিয়ড (period) জনিত ব্যথা হতেও মুক্তি পেতে পারবেন আপনি। কীভাবে ব্যবহার করবেন? – আধা চামচ দারুচিনি গুঁড়ো যোগ করুন এক গ্লাস দুধে। সাথে দিতে পারেন মধু। এই মিশ্রণ পান করুন ৪ থেকে ৫ সপ্তাহ। পিরিয়ড Period নিয়ে সমস্যা কেটে যাবে। – পান করতে পারেন দারুচিনি চা, দৈনিক এক টুকরো দারুচিনি চিবালেও কাজে দেবে। তবে খেয়াল রাখবেন, দারুচিনি যেন হয় খাঁটি। বি:দ্র: বিবাহের আগে মিলন না করাই ভালো।

পড়ুন  চাচাতো ভাই আমাকে জাপটে ধরে ঠোটে কিস করে,স্তন মর্দন করে তারপর...

মাসিক হবার কত দিন আগে বা পড়ে কনডম ছাড়া মিলন করা নিরাপদ?
মাসিকের (period) সময়ে শারীরিক মিলন (physical relation) করলে গর্ভধারনের (pregnant) সম্ভাবনা থাকে না, তবে এই সময়ে শারীরিক মিলন (physical relation) (physical relation) থেকে বিরত থাকাই ভালো। বৈজ্ঞানিক ভিত্তিতে জানা যায় মাসিক (period)হওয়ার ৭ দিন আগে ও পরের সময়ে শারীরিক মিলন (physical relation) করলে গর্ভ ধারণের সম্ভাবনা কম থাকে এবং এর মাঝামাঝি সময়গুলোতে গর্ভ ধারণের (pregnant)সমূহ সম্ভাবনা থাকে।

জন্মনিয়ন্ত্রণের (birth control) জন্য সকলেই গর্ভনিরোধক ট্যাবলেট কিংবা কন্ডোমের উপরই ভরসা করেন৷ কিন্তু, আধুনিক পদ্ধতি ছাড়াই সম্পূর্ণ প্রাকৃতিকভাবেজন্ম নিয়ন্ত্রণ করা যেতে পারে৷ এই সম্পর্কে ধারনা থাকলে চিকিৎসকেরা কাছেও যাওয়ার প্রযোজন পড়ে না৷ মহিলাদের স্বাভাবিক ঋতুচক্র (periodপ্রাকৃতিকভাবে নির্ধারিত৷ এতে এমন কিছুদিন রয়েছে, যাকে নিরাপদ দিন বা সেফ পিরিয়ড বলা হয়৷ এই দিনগুলিতে সহবাস (physical relation) করলেও গর্ভধারণের ঝুঁকি থাকে না৷ সেফ পিরিয়ডের দিনগুলিও প্রকৃতিগতভাবে নির্দিষ্ট৷ এই কারণেই একে প্রাকৃতিক পরিবার পরিকল্পনা বলা যেতেই পারে৷ চিকিৎসকেরা এতে অনেক সময় ক্যালেন্ডার পদ্ধতিও বলে থাকেন৷ এই পদ্ধতি কার্যকর করতে অবশ্যই জানা দরকার ঋতুচক্রের (period নিরাপদ দিন কোনগুলি৷

পড়ুন  আমি তোমার কাছে অন্য কিছু চাইনা বাড়ি,গাড়ি,টাকা,পয়সা কিছুনা।শুধু আমায় একটু ভালবাস আগের মত আর কিছু না

এই পদ্ধতির জন্য সবার আগে জানতে হবে মাসিক (period)ঋতুচক্র(period নিয়মিত হয় কিনা৷ হলে তা কত দিন অন্তর হয়৷ সবচেয়ে কম যত দিন পর পর মাসিক হয়, তা থেকে ১৮ দিন বাদ দিতে হবে৷ পিরিয়ড শুরুর প্রথম দিন থেকে এই দিনটিই হল প্রথম অনিরাপদ দিন৷ আবার সবচেয়ে বেশি যতদিন পরপর পিরিয়ড হয়, তা থেকে ১০ দিন বাদ দিলে মাসিক শুরুর প্রথম দিন থেকে এই দিনটিই হল শেষ অনিরাপদ দিন৷
ধরু আপনার পিরিয়ড ২৮ থেকে ২০ দিন অন্তর হয়৷ তবে ২৮-১৮= ১০, অর্থাৎ পিরিয়ড শুরুর পর থেকে প্রায় নয় দিন আপনার জন্য নিরাপদ, এই দিনগুলিতে কোন পদ্ধতি ব্যবহার না করেও সহবাস (physical relation) অনায়াসেই করা সম্ভব৷ ১০ নম্বর দিন থেকে অনিরাপদ দিন শুরু৷ তাই এই দিন থেকে সহবাসে সংযত হতে হবে৷
৩০ দিন হল দীর্ঘতম মাসিকচক্র৷(period) তাই ৩০-১০= ২০, অর্থাৎ ২০ নম্বর দিনটিই হল শেষ অনিরাপদ দিন৷ ২১তম দিন থেকে আবার অবাধে সহবাস (physical relation) করা যেতে পারে৷ এতে গর্ভধারণের সম্ভাবনা নেই৷ তবে, এতে ১০ থেকে ২০ দিনের মধ্যে অবাধ সহবাসের (physical relation) ফলে গর্ভধারন হতে পারে৷
এই বিষয়েটি সহজভাবে বোঝালে পিরিয়ড শুরুর প্রথম সাতদিন ও শেষের প্রথম সাতদিন সহবাস (physical relation) করা নিরাপদ৷ তবে, পিরিয়ড নিয়মিত না হলে এই পদ্ধতি কার্যকর হবে না৷ এছাড়াও প্রাকৃতিক জন্মনিয়ন্ত্রণ ৮০ শতাংশ নিরাপদ৷ সাধারণত, পিরিয়ডের হিসেবে গন্ডগোল, অনিরাপদ দিবসে সহবাস, অনুমিত পিরিয়ডের ফলে প্রাকৃতির গর্ভনিরোধকের পদ্ধতি ব্যর্থ হতে পারে৷ তাই, সঠিকভাবে জানতে একবার অন্তত চিকিৎসকেরা পরামর্শ নেওয়া প্রয়োজন৷
আবার কিছু পুরুষের শুক্রাণুর আয়ু বেশি হওয়ায় তারা এতে সাফল্য নাও পেতে পারেন৷ সেক্ষেত্রে অনুরাপদ দিবসে দুই দিন বাড়িয়ে নেওয়া প্রয়োজন৷ একে অনেকে প্রোগ্রামড সেক্স বলে৷ অনেকেই এ বিষয়ে সংশয় পোষণ করেন, কিন্তু একবার এই পদ্ধতিতে অভ্যস্ত হয়ে গেলে এটি অনেক বেশি সহজ ও আরামদায়ক৷ সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল এতে কোন পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া নেই৷

পড়ুন  হিজরা সন্তান কেন হয় , জেনে নিন

জন্ম নিয়ন্ত্রণ পিল কতো দিন পর কনডম ছাড়া নিরাপদ সহবাস (physical relation) করা যাবে মানে মোট কতোটা পিল খাওয়া পর থেকে সহবাস (physical relation) করলে নিরাপদ হবে..?

জন্মনিয়ন্ত্রন পিল প্রতিদিন খেতে হয় নতুবা কাজ হবেনা।

কতটা পিল ও কাজ হবেনা, দৈনিক একটা করে ফেমিকন খেতে হবে, মাসিক(period) শুরুর দ্বিতীয় দিন থেকে।

পিল যেদিন থেকে খাওয়া শুরু হবে সেদিন থেকেই কনডম ছাড়া যৌন মিলন নিরাপদ।যতদিন পর্যন্ত বাবু নিতে না চান।

মাসিক চলাকালিন সেক্স করা কি নিরাপদ কনডম / পিল ছাড়া? শুনিছি মাসিক (period)চলাকালিন সেক্স করা ঝুকি আর নাকি মাসিক শেষ হওয়ার দিন থেকে শুরু করে ১৩দিন পর সেক্স করা নিরাপদ কোনটা সঠিক বলেন প্লিস?
আপনি যা শুনেছেন সম্পূর্ণ ভূল । মাসিক(period) শুরু হওয়ার দিন থেকে আগের সাত দিন এবং মাসিক শুরুর দিন থেকে পরের দিন হলো মিলনের নিরাপদ সময় ।। এসময় কনডম/পিল ছাড়া মিলন করলে আপনার স্ত্রী গর্ভবতী (pregnant)হবেন না । আর মাসিকের অষ্টম দিন থেকে একুশ দিন পর্যন্ত সময়টা অনিরাপদ । এসময় অরক্ষিত মিলনে গর্ভবতী (pregnant) হওয়ার সম্ভাবনা আছে । আশা করি বুঝতে পেরেছেন ।

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.