ওজন কমানোর ৫টি ভুল ধারণা

বাড়তি ওজন কমে গেলে কার না ভালো লাগে! তাই ওজন কমাতে অনেকে হয়তো উঠেপড়ে লাগেন। আর ভুলভাল রীতি মেনে চলতে থাকেন।এতে অনেকের বাড়তি মেদ কমলেও শরীরের ওপর বাজে প্রভাব পড়ে। আবার চেষ্টার পরও কাঙ্ক্ষিত ফলাফল পায় না অনেকে। ওজণ কমানোর কিছু ভুল ধারণার কথা জানিয়েছে স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবসাইট অাপনার ডক্টর।

ওজন.PNG

ওজন কমানোর ৫টি ভুল ধারণা

১ঃ কার্বোহাইড্রেট শত্রু

অনেকেই ওজণ কমানোর সময় কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার একেবারেই বাদ দিয়ে দেন বা ভাবেন Weight কমাতে গেলে কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার বাদ দিতেই হবে। সত্য হলো, শরীরের বাড়তি মেদ কমাতে গেলে বা স্বাস্থ্যকে ভালো রাখতে গেলে কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার বাদ দিলে চলবে না।

স্বাস্থ্যকর কার্বোহাইড্রেটের উৎস যেমন : ফল, সবজি, বাদাম, গম জাতীয় খাবার এগুলো শরীরের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। ওজন কমাতে প্রোটিনের সঙ্গে কার্বোহাইড্রেটের ভারসাম্য রাখতে হবে। তবে পরিশোধিত কার্বোহাইড্রেট খাওয়া কমিয়ে দেওয়ার বিষয়ে একমত বিশেষজ্ঞরা। পরিশোধিত কার্বোহাইড্রেট যেমন : সাদা ভাত, সাদা পাস্তা, প্রক্রিয়াজাত স্ন্যাক, মিষ্টি ইত্যাদি। এগুলো কম খাওয়াই ভালো।

২ঃ দ্রুত ফলাফল পেতে জিমে গিয়ে কঠোর ব্যায়াম করা

পড়ুন  ওজন মাপতে গিয়ে যে ভুলগুলো করছেন আপনিও!

প্রতিদিন সমপরিমাণ ব্যায়াম করা শরীরের জন্য ভালো। তবে শরীরকে জিজ্ঞের করুন, সে আসলে কতটুকু ধকল সইতে পারবে। ওজণ কমাতে দ্রুত ফলাফলের জন্য জিমে গিয়ে কঠোর ব্যায়ামের প্রয়োজন নেই। এতে বরং Weight আরো বেড়ে যেতে পারে। তবে পেশির শক্তি বাড়াতে এ ধরনের ব্যায়াম করা যেতে পারে। ভারসাম্য পূর্ণ খাবারের পাশাপাশি প্রতিদিন হাঁটলে বা দৌড়ালে ওজণ এমনিতেই কমবে।

৩ঃ সব চর্বিই ওজন বাড়ায়

চর্বি সব সময় খারাপ নয়, ভালো চর্বিও কিন্তু রয়েছে। আর সেগুলো শরীরের জন্য জরুরি। যেমন : জলপাইয়ের তেল, অ্যাভোক্যাডো, বাদাম, নারকেলের মাখন এগুলো কিন্তু ভালো চর্বি। আর এগুলো খেলে Weight বাড়াবে না।

৩ঃ মাঝরাতে খেলে ওজণ বাড়ে

অনেক গবেষণায় বলা হয়, মধ্য রাতে খেলে ওজন বেড়ে যায়। তবে বিষয়টি নিয়ে তর্ক রয়েছে। মূল বিষয়টি হলো, ঘুমানোর কতক্ষণ আগে আমরা রাতের খাবার খাচ্ছি। বলা হয়, সন্ধ্যা ৭টার আগেই রাতের খাবার সেরে ফেলতে।

তবে আপনি যদি দেরি করে ঘুম থেকে ওঠেন, তাহলে সন্ধ্যা ৭টার মধ্যেই রাতের খাবার শেষ করা একটু আগে হয়ে যায় না? বিশেষজ্ঞরা বলেন, ঘুমানোর দুই ঘণ্টা আগে রাতের খাবার খান।

পড়ুন  পেটের মেদ ও ওজন কমাতে ট্রাই করুন এই স্পেশাল রেসিপি

৪ঃ কম চর্বিযুক্ত (লো ফ্যাট) খাবার ওজন কমাতে সাহায্য করে

অনেকে ওজন কমাতে বাজার থেকে লো ফ্যাট-জাতীয় খাবার কিনে খায়। স্বাদ বাড়াতে এগুলোর মধ্যে চিনি ও অন্যান্য উপাদান যোগ করা হয়। এসব উপাদান শরীরের জন্য ভালো নয়। এতে উল্টো ক্ষতিই হয়।

৫ঃ বেশি ব্যায়াম করলে খাবারের দিকে তাকানোর প্রয়োজন নেই

অনেকে ভাবেন বেশি ব্যায়াম করলে আর খাবারের দিকে তাকানোর প্রয়োজন নেই। বেশি খাবার খাওয়া যাবে। আসলে বিষয়টি সঠিক নয়। এতে কাঙ্ক্ষিত ফল তেমনভাবে পাওয়া যায় না। বিশেষজ্ঞরা বলেন, Weight কমাতে খাওয়া এবং ব্যায়াম দুটোর দিকেই সমানভাবে নজর দিতে হবে।

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About ফারজানা হোসেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.