চুল পড়া রোধ করবে পেয়ারা পাতা

ব্যবহারের দিক থেকে চোখ, কান, নাক, মুখের মতো অপরিহার্য না হলেও মাথার সৌন্দর্য ধরে রাখতে অপরিসীম ভূমিকা রাখে চুল।কিন্তু চুল পড়া সমস্যায় কমবেশি সবাই ভোগেন।চুল পড়ার ফলে বয়স বাড়ার আগেই অনেকের মাথায় টাক পড়তে শুরু করে।

চুল পড়া

চুল পড়া রোধ করবে পেয়ারা পাতা

 

চুল পড়া রোধে বিভিন্ন কোম্পানি তাদের উৎপাদিত বিভিন্ন পণ্য বা ওষুধের বিজ্ঞাপন প্রচার করে। অনেকেই এসব বিজ্ঞাপন দেখে উৎসাহিত হন। চুল পড়া রোধে সেসব পণ্য বা ওষুধ ব্যবহার করেন- এমন মানুষের সংখ্যা নেহায়েত কম নয়। আবার অনেকেই ঝরে পড়া চুল নতুন করে গজানোর আশায় বিভিন্ন কোম্পানির উর্ভরজাত পণ্য বা ওষুধ ব্যবহার করেন। চুল না থাকা সত্ত্বেও মাথার পরিপূর্ণ সৌন্দর্য ধরে রাখতে কেউ কেউ নকল চুলও ব্যবহার করেন।

চুল পড়া রোধ বা নতুন চুল গজানোর জন্য বিভিন্ন পণ্য বা ওষুধ এবং সৌন্দর্য ধরে রাখতে টাক মাথায় নকল চুলের ব্যবহার- এর কোনোটিই স্বাস্থ্যসম্মত নয়। প্রকৃতপক্ষে বিজ্ঞাপন দেখার পর অতি উৎসাহিত হয়ে যারা এসব পণ্য ব্যবহার করেন- তারা আরও বেশি কিছু হারান। এসব ওষুধ বা পণ্য ব্যবহারের এক পর্যায়ে অর্থ ব্যয়ের পাশাপাশি মাথার অবশিষ্ট চুলগুলো হারাতে হয় তাদের।

মাথার চুল নিয়ে যারা দুঃখে থাকেন, তাদের অনেকেই আবার প্রাকৃতিক উপায়ে চুল পড়া রোধের উপায় জানতেও অনেক অর্থ ও সময় ব্যয় করেন। কেউ কেউ মেহেদী পাতা, রসুন ও পেঁয়াজের রস, নিম পাতা এবং এধরনের কিছু ওষুধি গুণসম্পন্ন দ্রব্যের ব্যবহার করে থাকেন। চুল পড়া ঠেকাতে অনেকেই মাথায় ডিমের কুসুমও ব্যবহার করেন।

অবশেষে চুল পড়া রোধে পেঁয়ারা গাছের পাতা ব্যবহারের কথা জানিয়েছেন একদল বিজ্ঞানী। চুল ধরা রোধে পেঁয়ারা গাছের পাতার ব্যবহারকে সবচেয়ে কার্যকরী এবং প্রাকৃতিক উপায় বলে আখ্যায়িত করেছেন তারা।

তাদের দাবি, পেঁয়ারা গাছের পাতার নিয়মিত ব্যবহারের ফলে মাথার চুলের ঝরে পড়া রোধ হয় এবং চুলের স্বাভাবিক বৃদ্ধিতে সহায়তা করে এটি। পেঁয়ারা গাছের পাতায় প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন বি রয়েছে, যা স্বাস্থ্যকর চুলের জন্য খুবই উপকারী।

ওই দলের বিজ্ঞানীরা আরও দাবি করেন, পেঁয়ারা পাতা অবশ্যই মাথার চুল ঝরে পড়া রোধ করবে। সেইসঙ্গে নতুন চুল গজাতে সাহায্য করবে। এটি চুলের সংযুক্তিস্থল অর্থাৎ গ্রন্থিকোষ ও শিখড়কে অনেক শক্ত করে।

ব্যবহারের নিয়মঃ

কিছু পেঁয়ারা পাতা পরিষ্কার পানিতে ২০ মিনিট সিদ্ধ করার পর এর সঙ্গে ঠাণ্ডা পানির মিশ্রণ দিতে হবে। এরপর তা মাথার খুলিতে দিয়ে এক ঘণ্টা পর মাথা পরিষ্কার করতে হবে। এই পদ্ধতিতে ভালো ফল পাওয়ার জন্য রাতে ঘুমানোর আগে করাই শ্রেয়।

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About ফারজানা হোসেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *