বয়ঃসন্ধিকালে অনিদ্রা হলে করণীয় এবং বর্জনীয় বিষয়

Adolescence
বয়ঃসন্ধিকালে অনিদ্রায় করণীয় এবং বর্জনীয়

ছেলে মেয়েদের বয়ঃসন্ধিকালে অনিদ্রার সমস্যাটা বলতে গেলে একটা সাধারণ বিষয় হলেও এর ফলে কিছুটা মানসিক অশান্তির সৃষ্টি হয়ে থাকে। তাই এই সময় নিয়মতান্ত্রিক জীবন যাপনের মাধ্যমে অনিদ্রাসহ বয়ঃসন্ধিকালে যাবতীয় সমস্যা কাটিয়ে উঠা সম্ভব। তবে এ বিষয়ে প্রত্যেক মা বাবারই সতর্ক থাকা উচিত। বিশ্বে প্রায় এক-চতুর্থাংশ কিশোর-কিশোরী নিদ্রাহীনতার সমস্যায় ভুগছে । এদের ৪ থেকে ৫ শতাংশের সমস্যা রীতিমতো রোগের পর্যায়ে পড়ে ।

বয়ঃসন্ধিকালে অনিদ্রার কারণে কৈশোরে যেসব সমস্যা দেখা দিতে পারে, তা হলো মনোযোগের অভাব, লেখাপড়ায় ব্যাঘাত, আচরণগত সমস্যা ও আবেগ নিয়ন্ত্রণে সমস্যা । এতে বিষণ্নতা বা ডিপ্রেশন হতে পারে, দুর্ঘটনার আশঙ্কা বেড়ে যায় । অনেকে মাদকাসক্তির দিকেও ঝুঁকে পড়তে পারে । কৈশোরে অনিদ্রার একটি বড় কারণ নিতান্তই শারীরবৃত্তীয় ও হরমোনজনিত । ঘুম নিয়ন্ত্রণকারী গুরুত্বপূর্ণ হরমোন মেলাটোনিক নিঃসরণের দৈনন্দিন ছন্দ ব্যাহত হয় বয়ঃসন্ধিকালে।

Loading...

স্বাভাবিকভাবে রাত ১১টার দিকে মেলাটোনিকের মাত্রা সর্বোচ্চ থাকার কথা থাকলেও বয়ঃসন্ধিকালে নানা হরমোনের তারতম্যে এর সময় ঘণ্টা দুয়েক পিছিয়ে যায় । কখনো কখনো এই সময় মধ্যরাত পেরিয়ে শেষ রাতে চলে যেতে পারে । ফলে যখন ঘুমের গভীর স্তরে যাওয়ার সময় হয়, তখনই স্কুল বা কলেজের জন্য তাকে উঠে পড়তে হয় । আর এর প্রভাব সারা দিন থেকে যায়। অনিদ্রার আরেকটি কারণ বংশগত ।

পড়ুন  ঘুমের মধ্যে অজান্তেই ঘটে যে বিচিত্র ঘটনা ঘটে তার কারণ

কেউ কেউ রাতের বেলায় পা কামড়ানো (রেস্টলেস লেগ সিনড্রোম), উদ্বেগ বা ভয়ের কারণে ঘুমাতে পারে না । অতিরিক্ত স্থূল ব্যক্তিরা রাতে স্লিপ অ্যাপনিয়া বা শ্বাস বন্ধ হয়ে আসার দরুন নিদ্রাহীনতায় ভোগে । ঘুমের অন্তত ৯০ মিনিট থেকে দুই ঘণ্টা আগে পর্যন্ত স্নায়ু উত্তেজক কার্যাবলি থেকে বিরত থাকতে হবে। যেমন টিভি দেখা, ফেসবুকিং, সেলফোনে কথা বলা বা কম্পিউটার গেম খেলা। ঘুমের দুই ঘণ্টা আগে থেকে কোনো রকম ব্যায়াম করাও চলবে না ।

যেকোন স্বাস্থ্য বিষয়ক টিপস পেতে নিয়মিত ভিজিট করুন আপনার ডক্টর হেল্থ সাইটটি।ধন্যবাদ

সূত্র:বাংলাসেক্সহেল্থ

Loading...

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.