সোজা চুলের যত্ন নেয়ার উপায় জেনে নিন

দীঘল কালো চুল নারীর সৌন্দর্য বাড়িয়ে তোলে। তবে লম্বা চুলের জন্য আপনাকে নিয়মিত চুলের যত্ন নেবার বিষয়টিও মাথায় রাখতে হবে। কেননা বাইরের ধুলো-ময়লার কারণে সোজা ও লম্বা চুল সহজেই নেতিয়ে পড়তে পারে। সোজা চুলের যত্ন নিয়ে আমাদের এবারের আয়োজন।

%e0%a6%9a%e0%a7%81%e0%a6%b2%e0%a7%87%e0%a6%b0-%e0%a6%af%e0%a6%a4%e0%a7%8d%e0%a6%a8

সোজা চুলের যত্ন নেয়ার উপায় জেনে নিন

সোজা চুলের যত্ন

আপনার চুল কী রকমের হবে সোজা না কুঁচকানো তার অনেকটাই নির্ভর করে তিনটি বিষয়ের ওপর। এগুলো হলো—বংশগত কারণ, সঠিক খাওয়া-দাওয়া ও চুলের যত্ন নেওয়ার পদ্ধতি। আর কারও চুল যদি প্রকৃতিগত ‘কোঁকড়ানো’(Crinkly) হয়, তবে সেটাকে স্থায়ীভাবে সোজা করার উপায়ও আছে। যাকে বলে রিবন্ডিং। আপনার চুল সোজা রাখতে চাইলে অবশ্যই বাড়তি যত্ন নিতে হবে। তা না হলে চুল পড়ে যাবে। খাদ্যাভ্যাস একটা বড় ভূমিকা পালন করে চুলের সুরক্ষায়। চুলের সুরক্ষায় প্রথমেই প্রচুর পানীয় গ্রহণ করা উচিত। বেশি করে পানি ও ফলের রস খান। পাকা পেঁপের রস চুল পড়া রোধে সাহায্য করে। শীতকালীন ফল, সবজি ও পানির অংশ বেশি এমন খাবার যেমন—লাউ, শসা বেশি করে খান।

শ্যাম্পু করার সময়

সপ্তাহে তিন-চার বার শ্যাম্পু করুন। অনেক সময় চুল নেতিয়ে পড়ে, চুলের বাড়তি ভলিউম থাকে না। হালকা হারবাল শ্যাম্পু বেছে নিন। বেশি ‘শ্যাম্পু’(Shampoo) ব্যবহার করবেন না। মাইল্ড শ্যাম্পু কম পরিমাণে সপ্তাহে তিন-চার বার ব্যবহার করতে পারেন। এতে চুলের ক্ষতি হবে না। শ্যাম্পুর সঙ্গে পানি মিশিয়ে পাতলা করে নিন। চুল জোরে মুছবেন না। সার্কুলার মুভমেন্টে শ্যাম্পু লাগান। চুল ভালোভাবে ধুয়ে ফেলুন। কিছুক্ষণ তোয়ালে মাথায় পেঁচিয়ে রাখুন। ভেজা চুল আঁচড়াবেন না। হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার না করে ফ্যানের বাতাসে চুল শুকান।

ডিপ কন্ডিশনিং ট্রিটমেন্ট

কড়া কেমিক্যাল, অতিরিক্ত রোদ, ধুলো-ময়লা, স্ট্রেস থেকে চুলে যে ক্ষতি হয় তা প্রতিরোধের জন্য ঘরোয়া উপায়ে ট্রিটমেন্ট করতে পারেন। ডিম ১টা, ক্যাস্টর অয়েল ১ টেবিল চামচ, লেবুর রস, গ্লিসারিন বা মধু ১ চা চামচ ভালো করে মিশিয়ে স্ক্যাল্পে ও চুলে ম্যাসাজ করুন। এরপর শাওয়ার ক্যাপ পরে ১ ঘণ্টা থাকুন। এরপর শ্যাম্পু করে চুল ধুয়ে ফেলুন।

টিপস

মনে রাখতে হবে, আপনি যদি চুলে রিবন্ডিং করান তবে সেটার জন্য বাড়তি চুলের যত্ন প্রয়োজন। কেননা রিবন্ডিং চুল অযত্নে ভেঙে যায়। বিল্ট-ইন কন্ডিশনার, হেয়ার সেরাম, সানস্ক্রিন সমৃদ্ধ ‘কন্ডিশনার’(Conditioner) ব্যবহার করতে পারেন। হেয়ার স্পা ট্রিটমেন্টের পর আমলা, হেনা, পুদিনা ও ত্রিফলার হেয়ার প্যাক লাগালে উপকার পাবেন। হেয়ার স্পা চুলের গোড়া শক্ত ও লম্বা করে। আর তিন বা ছয় মাস পর গোড়ার চুলে রিটাচ করিয়ে নিন। এতে আপনার চুল ভালো থাকবে।

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About ফারজানা হোসেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *