ডেঙ্গু জ্বর হলে ঘরোয়া চিকিৎসা কিভাবে করবেন জেনে রাখুন

সম্প্রতি সারা দেশে মারাত্মক আকারে ডেঙ্গু জ্বরের প্রকোপ দেখা দিয়েছে। ডেঙ্গু জ্বর কোন সাধারণ জ্বর নয়। এডিস নামক এক ধরনের মশার কামড়ে ব্যক্তি ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়। একবার এই রোগে আক্রান্ত হলে ভোগান্তির শেষ নেই। ডেঙ্গু রোগ প্রতিকারের চেয়ে প্রতিরোধের চেষ্টা করাই শ্রেয়। তারপরও যদি আক্রান্ত হয়েই পড়েন, সেক্ষেত্রে রেজিস্টার্ড চিকিৎসকের পরামর্শের পাশাপাশি ঘরোয়াভাবেও অবস্থার উন্নতি করা সম্ভব।

ডেঙ্গু জ্বর.PNG

ডেঙ্গু জ্বর হলে ঘরোয়া চিকিৎসা কিভাবে করবেন জেনে রাখুন

পানিঃ

ডেঙ্গু জ্বর দেখা দিলে যতটা বেশি সম্ভব পানি পান করুন। কারণ জ্বর হয়ে শরীর ঘেমে এবং অন্যান্য ভাবে শরীর অনেক বেশি ডিহাইড্রেটেড হয়ে পরে। শরীরের অতিরিক্ত পানির প্রয়োজন দেখা দেয়। তাই বেশি বেশি পানি পান করে খুব তাড়াতাড়ি সুস্থ হয়ে ওঠা যায়।

নিমের পাতাঃ

অন্যান্য রোগের মত ডেঙ্গু জ্বর নিরাময়েও নিম পাতার গুরুত্ব অপরিসীম। নিম পাতার রস শরীরে প্লেটলেট এবং শ্বেত রক্ত কণিকার পরিমাণ বাড়াতে সাহায্য করে। এটি শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে এবং খুব তাড়াতাড়ি আপনার শরীরে সম্পূর্ণ শক্তি ফিরিয়ে আনে।

পড়ুন  সুস্থ্ থাকতে মাত্র ১০ টি ঘরোয়া টিপস

পেঁপে গাছের পাতাঃ

যদিও পেঁপে গাছের পাতা কীভাবে ডেঙ্গু জ্বর প্রতিরোধ করে সে ব্যাপারে সবাই একমত না; তবুও ডেঙ্গু জ্বর কমাতে পেঁপে গাছের পাতা ব্যবহার করা হয়ে থাকে। ধারণা করা হয়, এতে উপস্থিত ভিটামিন সি আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। এর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট অক্সিডেটিভ স্ট্রেস কমাতে সাহায্য করে।

কমলা লেবুর রসঃ

Loading...

কমলার রসে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং ভিটামিন সি পাওয়া যায় যা ডেঙ্গু জ্বরের পারিপার্শ্বিক প্রতিক্রিয়া থেকে রক্ষা করে এবং ডেঙ্গু ভাইরাসকে নষ্ট করতে সহায়তা করে। এরা শরীরে অ্যান্টিবডি সৃষ্টি করে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে দেয়। এরা প্রস্রাবের মাধ্যমে শরীরের ক্ষতিকারক পদার্থগুলো বের করে দেয় এবং ভিটামিন সি কোলাজেন সৃষ্টি করে কোষ পুনর্গঠনে সাহায্য করে।

মেথিঃ

মেথির পাতা জ্বর এবং শরীরে ব্যথা কমাতে সাহায্য করে। ফলে আপনার নিয়মিত প্রয়োজনীয় ঘুমে সমস্যা কম হয়।

পুদিনাঃ

পুদিনা পাতা চিবিয়ে খেলে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। পুদিনার তেল প্রাকৃতিক ভাবে মশা থেকে দূরে রাখে। মশা পুদিনার তেল ও এর গন্ধ সহ্য করতে পারে না।

পড়ুন  মানসিক চাপ দূর করার ১২টি উপায় জেনে নিন

বার্লি গ্রাসঃ

এতে এমন এক ধরণের উপাদান থাকে যা আপনার শরীরের রক্ত উৎপাদনের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়। ফলে শরীরে প্লেটলেটের মাত্রা বৃদ্ধি পায়। পরিষ্কার বার্লি গ্রাস বা বার্লি পাতা চিবিয়ে খান।

গোল্ডেন সিলঃ

এটি লাল বা হলুদ বর্ণের এক ধরণের ফলবিশেষ যার মধ্যে থাকা অ্যান্টিভাইরাল উপাদান শরীরে উপস্থিত ডেঙ্গুর ভাইরাস দমনে সাহায্য করে। এটি জ্বর, বমি বমি ভাব, ঠাণ্ডা, মাথা ব্যথা ইত্যাদি কমাতে সাহায্য করে।

সতর্কতাঃ

ডেঙ্গু জ্বর একটি প্রাণঘাতী রোগ; সময়ের সাথে সাথে ব্যবস্থা না নিলে এটি মারাত্মক আকার ধারণ করতে পারে।

আপনার ঘরবাড়ি, ছাদ, বারান্দা যতটা সম্ভব পরিষ্কার ও শুকনো রাখুন।

ছাদে টবে গাছ লাগানো থাকলে সেগুলোতে যেন পানি জমে না থাকে সেদিকে লক্ষ্য রাখবেন।

কলসির ভাঙ্গা অংশ, পুরনো মগ, কাপ, বোতল ইত্যাদিতে বৃষ্টির পানি যেন আটকে না থাকে সেদিকে খেয়াল রাখবেন। এসব জায়গায় মশাদের জন্ম ও বসবাস হয়।

নিয়মিত মশারি টানিয়ে ঘুমান। কয়েল বা অ্যারোসলের উপর নির্ভর করে থাকবেন না।

যেকোনো পথ্য বা ঔষধ গ্রহণ করার আগে রেজিস্টার্ড ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

পড়ুন  কাশি হলে যা করবেন জেনে রাখুন
Loading...

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About ফারজানা হোসেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.