যে কারণে ছেলেদের দেখলে মেয়েরা বার বার ওড়না ঠিক করে

এটা সত্য এবং খুব সচরাচর দেখা যায় যে ছেলেদের দেখলেই মেয়েরা ওড়না ঠিক করতে চায়। এটা কেন করে?। এটা কী কারণে করে সেটা বলা মুশকিল। তবে ওড়না ঠিক করার ধরণভেদে সেটার বিভিন্ন অর্থ হতে পারে।

মেয়েরা

যে কারণে ছেলেদের দেখলে মেয়েরা বার বার ওড়না ঠিক করে

১. মাথায় ওড়না ঠিক করা

কোনো মেয়ের গলায় ওড়না আছে এবং কোনো পুরুষ বা ছেলে সামনে আসলে সেটা মাথায় তুলে দিচ্ছে বা ঠিকভাবে পরে নিচ্ছে। এটার কারণ বলে যেটা প্রতীয়মান হয় তা হলো মেয়ের প্রতি মা বাবার শেখানো পারিবারিক মূল্যবোধ। মায়েরা খুব ছোটোবেলা থেকেই মেয়েদের সব ব্যাপারে বিভিন্ন আচরণের ধরণ বুঝিয়ে দিতে বা শেখাতে থাকেন যেগুলো সাধারণত সমাজে গ্রহণযোগ্য। এদিক থেকে একটা মেয়ে এই পরিবেশে বেড়ে উঠার কারণে তাঁর মধ্যে স্বাভাবিকভাবেই মাথায় ওড়না ঠিক করে দেয়ার অভ্যেস গড়ে ওঠতে পারে।

২. বুকে ওড়না ঠিক করা
নারীদেহের যে কয়েকটি অঙ্গ বাহ্যিকভাবে খুব তাড়াতাড়ি কারো নজরে আসে তার মধ্যে স্তন একটি অঙ্গ। ধরুণ কোনো মেয়ের গলায় ওড়না আছে। গলায় ওড়না থাকাবস্থায় একটা পুরুষ/ছেলে নজরে পড়লেই মেয়েরা বুকের অংশের ওড়নাটুকু ঠিকঠাক করে নেয় যাতে স্তনের দিকে দৃষ্টি না পড়ে যায়। এইভাবে ওড়না ঠিক করে নেয়ার কাজটি তাঁরা খুব তড়িঘড়ি করে শেষ করে রাখে। এক্ষেত্রেও হয়তো পারিবারিক শিক্ষার প্রভাবটা থাকে যে শিক্ষাটা ছোটোকাল থেকে একটা মেয়ে তাঁর মায়ের বা নিকটাত্মীয় কোনো মহিলার কাছে পায়।

৩. মেয়েরা ছেলেদের দেখলেই বার বার ওড়না ঠিক করে
তবে কেন করে তা বোঝা বড়ই মুশকিল। কারণ মেয়েদের মন বোঝার সাধ্য কারো নেই। তবে ধারণা করে বলতে পারি, সব ছেলেদের দেখেই মেয়েরা এমনটা করে না। যে ছেলে দেখতে ভালো, হ্যান্ডসাম, শুধুমাত্র তার সামনেই এমনটা করে। মেয়েরা তার সামনের হ্যান্ডসাম ছেলেটিকে দেখে আকর্ষণ বোধ করে।

ভাবে ওই ছেলেটির সামনে সেই একমাত্র সুন্দরী এবং ধারণা করে নেয় যে ছেলেটি তাকে কোন না কোনভাবে দেখছে। তখন মেয়েটি মনের মধ্যে একটা ভালো লাগার উত্তেজনা অনুভব করে, অর্থাৎ অস্থিরতা অনুভব করে। যার কারণে মেয়েটি কি করবে বুঝতে না পেরে বা অস্থিরতা সামাল দিতেই বার বার ওড়না ঠিক করে।

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *