তৈলাক্ত ত্বক থেকে ব্রণের সমস্যা দূর করুন খুবই সহজ ২ টি উপায়ে

নারী পুরুষ উভয়েই ব্রণ সমস্যার যন্ত্রণায় পড়ে থাকেন। বিশেষ করে যাদের ত্বক তৈলাক্ত তারা একটু বেশীই ভোগেন এই বিরক্তিকর সমস্যায়। কারণ তৈলাক্ত ত্বকে খুব সহজে ময়লা আটকে যায় এবং রোমকূপ বন্ধ হয়ে যাওয়া কারণে সৃষ্টি হয় ব্রণের। তবে দুশ্চিন্তার কারণ নেই একেবারেই, খুব সহজে তৈলাক্ত ত্বক থেকেও ব্রণ সমস্যার সমাধান করা সম্ভব। আজকে শিখে নিন কার্যকরী দারুণ ২ টি উপায় যা মুক্তি দেবে তৈলাক্ত ত্বকের বিরক্তিকর ব্রণের সমস্যা থেকে।

ব্রণের সমস্যা

তৈলাক্ত ত্বক থেকে ব্রণের সমস্যা দূর করার উপায়

১) মধু ও লেবুর রসের মাস্ক

তৈলাক্ত ত্বকের যত্নে লেবুর বিকল্প নেই। লেবুর রসে রয়েছে সাইট্রিক অ্যাসিড যা তেল নিঃসরণকারী গ্রন্থি নিয়ন্ত্রণে সহায়তা করে এবং অতিরিক্ত তেল নিঃসরণ বন্ধ করে। এছাড়াও লেবুর রসের এই অ্যাসিডিক উপাদান ব্রণের ব্যাকটেরিয়া দূর করতেও বিশেষভাবে কার্যকরী। সেই সাথে মধুর অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদান ও ময়েসচারাইজিং ইফেক্ট ত্বকের ময়েসচারের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখে ও প্রাকৃতিকভাবে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে।

Loading...

– ১ টেবিল চামচ তাজা লেবুর রস চিপে সমপরিমাণ মধুর সাথে ভালো করে মিশিয়ে ঘন পেস্টের মতো তৈরি করে নিন।
– প্রথমে ত্বক ভালো করে পরিষ্কার করে নিয়ে এই পেস্টটি পুরো ত্বকে ভালো করে লাগিয়ে ফেলুন। চাইলে গলায় ও ঘাড়েও ব্যবহার করতে পারেন।
– এভাবে ত্বকে লাগিয়ে রাখুন ১৫-২০ মিনিট। এরপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ভালো করে ধুয়ে ত্বক মুছে ফেলুন।
– সপ্তাহে ২ বার ব্যাবহারে ভালো ফলাফল পাবেন। ব্রণ সমস্যার পাশাপাশি ত্বকের কালচেভাব দূর করতেও এই মাস্কটির জুড়ি নেই।
২) বেসন ও টকদইয়ের প্যাক

পড়ুন  ব্যাক পেইন হলে করনীয় কি?

বেসনে রয়েছে প্রচুর প্রোটিন ও ভিটামিন এবং টকদইয়ে রয়েছে ভিটামিন এ ও সি। বেসন ত্বকের তৈল গ্রন্থির অতিরিক্ত তেল নিঃসরণ নিয়ন্ত্রণ করে এবং টকদই ব্রণের জন্য দায়ী ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস করে ত্বককে ব্রণমুক্ত করতে সহায়তা করে। হলুদের প্রাকৃতিক অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদান ব্রণের উপদ্রব কমায়।

– ২ টেবিল চামচ বেসন ও ১ টেবিল চামচ টকদই একসাথে ভালো করে মিশিয়ে পেস্টের মতো তৈরি করে ফেলুন। এরপর এতে যোগ করুন কয়েক ফোঁটা লেবুর রস ও ১ চিমটি হলুদগুঁড়ো। ভালো করে মিশিয়ে নিন।
– ত্বক ভালো করে ধুয়ে মুখ ও গলার ত্বকে ভালো করে লাগিয়ে নিন এই পেস্টটি। এরপর শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন।
– শুকিয়ে গেলে কুসুম গরম পানি দিয়ে ভিজিয়ে মাস্কটি নিন এবং আলতো ঘষে তুলে ফেলুন। এরপর ভালো করে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ত্বক ধুয়ে মুছে নিন।
– সপ্তাহে ২ বার ব্যবহারে দারুণ ফলাফল পাবেন। ব্রণের উপদ্রব কমে গেলে মাসে ২ বার ব্যবহার করা শুরু করুন।
সূত্রঃ stylecraze

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.