স্ত্রীর দুধ পান করা হালাল না হারাম?

দুধ হল স্তন্যপায়ী প্রাণীর দুগ্ধগ্রন্থি থেকে উৎপন্ন একপ্রকার সাদা তরল। অন্যান্য খাদ্যগ্রহণে সক্ষম হয়ে ওঠার আগে এটিই হল স্তন্যপায়ী শাবকদের পুষ্টির প্রধান উৎস। স্তন থেকে দুগ্ধ নিঃসরণের প্রাথমিক পর্যায়ে শাল দুধ উৎপন্ন হয় যা, শাবকের দেহে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে সহায়ক।

দুধ

স্বামীর জন্য বৈধ তার স্ত্রীর স্তনবৃন্ত চোষণ করে উভয়ের যৌন উত্তেজনা বৃদ্ধি করা। সে ক্ষেত্রে যদি স্ত্রীর দুধ তার পেটে চলে যায়, তাহলে তাতে কোন প্রকার ক্ষতি হয় না এবং স্ত্রী তার মা হয়ে যায় না। কারণ দুধ পানের মাধ্যমে হারাম হওয়ার যে সব শর্ত আছে, তা হলঃ

১। দুই বছর বয়সের মধ্যে দুধ পান করতে হবে। সুতরাং তার পরে বড় অবস্থায় দুধ পান করলে হারাম হবে না।

২। পাঁচবার পান করতে হবে।

সুতরাং ২/৪ বার পান করলে কোন প্রভাব পড়ে না। আর বড় অবস্থায় ৫ বারের বেশী পান করলেও কোন ক্ষতি হয় না। (ইবনে বায, ইবনে উষাইমীন)

দুধ বড় করার উপায় দেখুন এখানে

দলিল:
ﻗﻮﻟﻪ ﺗﻌﺎﻟﻰ – ﻭَﺍﻟْﻮَﺍﻟِﺪَﺍﺕُ ﻳُﺮْﺿِﻌْﻦَ ﺃَﻭْﻻَﺩَﻫُﻦَّ ﺣَﻮْﻟَﻴْﻦِ
ﻛَﺎﻣِﻠَﻴْﻦِ ﻟِﻤَﻦْ ﺃَﺭَﺍﺩَ ﺃَﻥ ﻳُﺘِﻢَّ ﺍﻟﺮَّﺿَﺎﻋَﺔَ ‏( ﺳﻮﺭﺓ
ﺍﻟﺒﻘﺮﺓ 233- ‏)
ﻭﻓﻰ ﺭﺩ ﺍﻟﻤﺤﺘﺎﺭ – ‏( ﻭﻟﻢ ﻳﺒﺢ ﺍﻹﺭﺿﺎﻉ ﺑﻌﺪ ﻣﺪﺗﻪ ‏)
ﻷﻧﻪ ﺟﺰﺀ ﺁﺩﻣﻲ ﻭﺍﻻﻧﺘﻔﺎﻉ ﺑﻪ ﻟﻐﻴﺮ ﺿﺮﻭﺭﺓ ﺣﺮﺍﻡ
ﻋﻠﻰ ﺍﻟﺼﺤﻴﺢ ‏(ﺍﻟﺪﺭ ﺍﻟﻤﺨﺘﺎﺭ ﻣﻊ ﺭﺩ ﺍﻟﻤﺤﺘﺎﺭ -ﻛﺘﺎﺏ
ﺍﻟﻨﻜﺎﺡ، ﺑﺎﺏ ﺍﻟﺮﺿﺎﻉ – 4/397 )
প্রামান্য গ্রন্থাবলী
১. সূরা বাক্বারা-২৩৩
২. সূরা আহকাফ-১৫
৩. ফাতওয়ায়ে শামী-৪/৩৯৭
৪. তাফসীরে মাযহারী-১/৩৫৬
৫. কেফায়াতুল মুফতী-৫/১৬২
ﻭﺍﻟﻠﻪ ﺍﻋﻠﻢ ﺑﺎﻟﺼﻮﺍﺏ
তো আল্লাহ তা’য়ালা আমাদের সকলকে তাঁর দেখানো পথ অনুযায়ী চলার তাওফিক দান করুন।

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *