সুন্দর ও স্বাস্থ্যকর চুলের জন্য পেঁপের হেয়ার মাস্ক

রুক্ষ ও নিস্তেজ চুল দেখে যে কেউই এর প্রতিকারের জন্য অস্থির হয়ে উঠবেন। সকলেই চায় তার চুল নরম-কোমল ও উজ্জ্বল থাকুক। আপনার রুক্ষ চুলকে ঠিক করার জন্য রাসায়নিক পণ্যের উপর নির্ভর না করে প্রাকৃতিক উপাদান ব্যবহার করাই সবচেয়ে উপকারী। ঘরে তৈরি হেয়ার মাস্কের জন্য পেঁপে আদর্শ একটি সবজি। পেঁপে চুলের আর্দ্রতা প্রদানের পাশাপাশি চুলের বৃদ্ধিতেও সাহায্য করে। পেঁপের হেয়ার মাস্ক তৈরি ও এর ব্যবহার পদ্ধতি সম্পর্কে জানবো আজ।

চুলের

পেঁপের হেয়ার মাস্ক তৈরিতে যা যা লাগবে :

– আধাকাপ পাকা পেঁপে

– এক কাপের একচতুর্থাংশ পরিমাণ নারিকেলের দুধ

– ১ চা চামচ মধু

পাকা পেঁপে খোসা ছাড়িয়ে কিউব আকৃতির করে কেটে নিন। এর থেকে আধাকাপ পরিমাণ পেঁপে ব্লেন্ডারে নিন। এর মধ্যে ১ কাপের একচতুর্থাংশ পরিমাণ নারিকেলের দুধ এবং ১ চা চামচ অরগানিক মধু যোগ করুন। তারপর ব্লেন্ডারটি চালু করুন এবং যতক্ষণ না একটি মসৃণ পেস্ট তৈরি হয় ততক্ষণ ব্লেন্ড করুন। এবার মিশ্রণটি একটি বাটিতে নিন। তৈরি হয়ে গেলো পেঁপের হেয়ার মাস্ক।

পাকা পেঁপে – বিভিন্ন ধরণের পুষ্টি উপাদানে সমৃদ্ধ পাকা পেঁপে যেমন- ভিটামিন এ ও সি, বিটা ক্যারোটিন, ম্যাগনেসিয়াম, পটাসিয়াম এবং কপার। এই উপাদানগুলো চুলের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে এবং চুলকে কোমল ও উজ্জ্বল করে। এছাড়া পেঁপের এনজাইম মাথার তালুতে তেল ময়লা জমতে বাঁধা দেয়, যা খুশকির প্রধান কারণ। কন্ডিশনার হিসেবেও কাজ করে পেঁপের মাস্ক।

নারিকেল দুধ – নারিকেল তেলের মতোই নারিকেলের দুধও চুলের জন্য একটি চমৎকার উপাদান। এতে উচ্চমাত্রার ভিটামিন ই ও ফ্যাট থাকে যা চুলকে গোঁড়া থেকে শক্তিশালী হতে সাহায্য করে। এটি খুব সহজেই চুলের গভীরে পৌঁছাতে পারে বলে চুলের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

মধু – মধু চুলের জন্য আরেকটি চমৎকার উপাদান। এই প্রাকৃতিক উপাদানটি চুলকে নরম কোমল হতে সাহায্য করে। এতে উপস্থিত অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট মাথার তালুর স্বাস্থ্য ভালো রাখে ও চুলের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।

হেয়ার মাস্কটি যেভাবে লাগাবেন :

– আপনার চুল শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে নিন

– তারপর আপনার ক্ষতিগ্রস্থ চুলে পেঁপের এই হেয়ার মাস্কটি ভালোভাবে লাগান

– শাওয়ার ক্যাপ দিয়ে চুল ও মাথা ঢেকে ফেলুন

– ৩০ মিনিট পরে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন

– সপ্তাহে ১/২ বার এই মাস্কটি চুলে ব্যবহার করুন

– যদি গন্ধ থাকে তাহলে হালকা শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে নিতে পারেন

টিপস :

– পেঁপের হায়ার মাস্ক তৈরিতে কখনোই কাঁচা পেঁপে ব্যবহার করবেন না। কাঁচা পেঁপেতে এক ধরণের তরল উপাদান থাকে যা কিছু মানুষের ক্ষেত্রে অ্যালার্জির প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করতে পারে

– অরগানিক পেঁপে ব্যবহারের চেষ্টা করুন

– নারিকেলের দুধের পরিবর্তে প্লেইন দই ব্যবহার করতে পারেন

– যদি আপনার চুল খুব বেশি শুষ্ক হয় তাহলে এই মাস্কটিতে অলিভ অয়েল যোগ করতে পারেন

– আপনার চুলের বৃদ্ধির জন্য কাঁচা বা পাকা পেঁপে খেতে পারেন।

 

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About ফারজানা হোসেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *