সুন্দর সাজ এ কাটুক আপনার ঈদ

রোদ-বৃষ্টি যাই হোক ঈদ বলে কথা। সাজ হতে হবে গর্জিয়াস। নিজের লুকের চটজলদি পরিবর্তন আনতে হলে সাজে এর ভ্যারাইটি থাকতে হবে। মেকআপ পদ্ধতি এবং উপকরণ হবে একটু আলাদা। কারণ, ঈদে সবাই চাই এক্কেবারে অন্যরকম হতে। তাই আগেভাগে বাড়তি ঝক্কি কাটিয়ে ঈদ সাজ এর প্রস্তুতি নিতে হবে। কারণ, নিজেকে নিখুঁতভাবে ফুটিয়ে তুলতে সময় খরচ করা চাই।

সাজ
সুন্দর সাজ এ কাটুক আপনার ঈদ

ঈদের আগে ত্বক প্রাণবন্ত রাখতে হলে ক্লিনজিং, টোনিং ও ময়েশ্চারাইজিং খুব জরুরি। ঈদ কেনাকাটার পেছনে সময় দিয়ে ত্বক আগে থেকে নষ্ট করা যাবে না, তবে বাড়ি ফিরে যত্ন সবার আগে। ঈদের সপ্তাহ খানেক আগে থেকে স্ক্র্যাব ব্যবহার করো। চালের গুঁড়া বা বেসন স্ক্র্যাব হিসেবে ব্যবহার করা যায়। ত্বক উজ্জ্বল করতে ব্যবহার করতে পারো ঘরোয়া প্যাক। বেসন, গুঁড়া দুধ, মধু ও ডিমের সাদা অংশ মিলিয়ে প্যাক তৈরি করে ব্যবহারে ত্বক উজ্জ্বল ও মসৃণ হবে।

 

ঈদের সময়টা যখন, তখন কখনো রোদ, কখনো শীতল বাতাস হতে পারে। তাই মেকআপের প্রসাধনী অবশ্যই এসপিএফ ফিল্টারসমৃদ্ধ এবং ওয়াটারপ্রুফ হতে হবে। ঈদের দিন সকালের সাজ এ ময়েশ্চার বেইজ ফাউন্ডেশন এবং হালকা কমপ্যাক্ট পাউডারের ব্যবহারই যথেষ্ট। সন্ধ্যায় গর্জিয়াস ঈদের পোশাকের সঙ্গে সামান্য ভারী মেকআপ নেওয়া যেতে পারে। তবে অতিরিক্ত অবশ্যই না। সাজ এর ক্ষেত্রে বয়স, পোশাকের ধরন এবং চেহারার গড়ন অনুযায়ী তোমার সঙ্গে কোনটি মানাবে তা বিবেচনা করা খুবই জরুরি।

 

সাজ এর মধ্যে চোখের সাজ টা সবার নজর কাড়ে। যেভাবেই চোখ সাজাও না কেন, সাজ এর সূক্ষ্ম ফিনিশিং থাকা চাই। তোমার পছন্দ অনুযায়ী লাইনার ব্যবহার করতে পারো। এখন কালো ছাড়াও বিভিন্ন রঙের আই-পেনসিল পাওয়া যায়। পোশাকের সঙ্গে মিল করে লাগালে যা অল্পবয়সী মেয়েদের সুন্দর মানিয়ে যায়। চোখের পাপড়ির ওপরে ও নিচে ঘন করে মাসকারা লাগিয়ে নাও। একটু ড্রামাটিক লুক পেতে গোল্ডেন আইশ্যাডো ব্যবহার করতে পারো। ব্লাশন ব্যবহার করো খুবই হালকাভাবে, যেন হালকা একটা আভা থাকে। খেয়াল রাখবে ন্যাচারাল লুক বা স্বাভাবিক ভাবটা যেন বজায় থাকে।

ইদানীং সবাই ঠোঁট কিংবা লিপস্টিকের দিকে ঝোঁক দিচ্ছে। লিপস্টিকের রং হালকা না গাঢ় কিংবা ম্যাট, ক্রিম কিংবা গ্লসি করো যা তোমার মন চায়। কেননা, ঈদের সাজ এ মিষ্টি হাসিই তোমাকে অনেক বেশি সুন্দর করে তুলবে। যা হাজার কারেক্টিভ মেকআপেরও ঊর্ধ্বে। লিপস্টিক নারীদের মেকআপের অন্যতম প্রিয় অনুষঙ্গ। ফ্যাশনসচেতন নারীরা লিপস্টিক ছাড়া যেন নিজেদের কল্পনাই করতে পারেন না। মেকআপের সঙ্গে লিপস্টিক না লাগালে একেবারেই ফ্যাকাশে ও বেমানান দেখায়। লিপস্টিকের রং নির্বাচনের ক্ষেত্রে বিশেষ কিছু রংকে প্রাধান্য দিতে হয়। চারটি বিশেষ রঙের লিপস্টিক যে কোনো পোশাকের সঙ্গেই মানিয়ে রাঙিয়ে নিতে পারবে তোমার ঠোঁট জোড়াকে। ন্যুড কালারের সাধারণ এই রংটি প্রায় সব কসমেটিকসের দোকানেই পাওয়া যায়। তোমার গায়ের রঙের সঙ্গে মানানসই হোক কিংবা না হোক, যেকোনো লিপস্টিকের বেজ তৈরি করতে, অন্য লিপস্টিকের সঙ্গে রং মিক্স করে হালকা রং তৈরি করতে কিংবা একদম ন্যাচারাল লুকের মেকআপের সঙ্গে মানানসই ঠোঁটের মেকআপের জন্য ন্যুড লিপস্টিক পারফেক্ট। ক্লাসিক লুকের জন্য ম্যাট রেড লিপস্টিকের তুলনা নেই। লিপস্টিকের জগতের প্রথম থেকে এখন পর্যন্ত রেড লিপস্টিক তার আবেদন ধরে রেখেছে। তার কারণ হলো ম্যাট রেড লিপস্টিক মুহূর্তের মধ্যেই তোমাকে দিতে পারে গর্জিয়াস লুক। চট করে ঔজ্জ্বল্য ফিরিয়ে আনা যায় এর মাধ্যমে। যে কোনো ওয়েস্টার্ন আউটফিটের সঙ্গে হট পিঙ্ক লিপস্টিক বেশ মানিয়ে যায়। তা ছাড়া পার্টি লুকের সঙ্গেও লাইট আই মেকআপের সঙ্গে হট পিঙ্ক লিপস্টিক তোমাকে গর্জিয়াস লুক এনে দেবে। আর কমলা লিপস্টিক বর্তমান সময়ের ট্রেন্ড। খয়েরি, হলুদ, কমলা, সবুজ ইত্যাদি রঙের পোশাকের সঙ্গে লাল কিংবা গোলাপির বদলে কমলা লিপস্টিকটাই বেশি মানায়। এ ছাড়া কমলা লিপস্টিক তোমার চেহারার জৌলুশ অনেকটাই বাড়িয়ে দেবে এবং বয়সও অনেকটাই কম দেখাবে।

 

চুলের সুন্দর সাজ একজন মানুষের সৌন্দর্যে পূর্ণতা নিয়ে আসে। তাই এই সাজ টাও হওয়া চাই স্বাভাবিক, তবে সুন্দর। এমন কিছু করো যেন কোনোভাবেই চুল তোমার বিরক্তির কারণ না হয়। ঈদের সালোয়ার-কামিজের সঙ্গে বিভিন্ন স্টাইলে চুল বাঁধা যেতে পারে। শাড়ির সঙ্গে যে কোনো খোঁপা কিংবা চুল ছাড়া রাখতে পারো। তা ছাড়া এখন মজার মজার সব অনুষঙ্গ বের হয়েছে, যেগুলোতে তুমি হয়ে উঠতে পারো অনন্য।

 

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About ফারজানা হোসেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *