কোন ফল খেলে কি উপকার হয় জেনে নিন

ফল খেতে আমরা সবাই ভালোবাসি। ফলে আছে নানান পুষ্টিগুণ। ফল আমাদের দেহে অনেক উপকার করে থাকে। আসুন জেনে নেয় কি ফল আমাদের কি উপকার করে। কি ফল খেলে কি উপকার হয় তা আপনাদের সামনে তুলে ধরছি–

ফল

০১. আমঃ

কাঁচা আম-ইহাতে বায়ু পিত্ত ও কফ বাড়ে এবং রক্ত দুষিত হয়।
পাকা আম- ইহাতে বায়ু পিত্ত ও কফ কমে, শরীর পরিপুষ্ট হয়। গায়ের রং উজ্জল ও ফর্সা হয়। অত্যান্ত তৃপ্তিজনক পিপাসাও পরিশ্রমে ক্লান্তি দূর করে।
আমসী- খেলে তরল পায়খানা হয় কিন্তু বায়ু ও কফ দূর করে।
আমসত্ত- খেয়ে তৃষ্ণা, বমি, আমাশা দূর হয় কিন্তু পায়খানা তরল হয়।
০২. কাঠালঃ

কাঁঠাল দেরীতে হজম হয়। শুক্র, বল ও বীর্য ও শরীর পরিপুষ্ট হয়, কফ ও বাত বাড়ে এবং রক্ত পিত্তদাহ ও শোথ থাকলে কমে।

ত্বক এর যত্নে মৌসুমি ফল এর ব্যবহার

০৩. নারিকেলঃ

ঝুনা নারিকেল- দেরীতে হজম হয় কিন্তু পিত্ত বাড়ে।
কাঁচা নারিকেল- ইহাতে পিত্ত কমে।
ডাবের পানি- ইহাতে অতিসার ও ডায়েরিয়া ও কলেরা নিবারিত হয়। অম্লপিত্ত দাহ ও তৃষ্ণা নিবারিত হয়। কিন্তু মুত্র বাড়ায়।
০৪. পেয়ারা- পেয়ারা দেরিতে হজম হয় কিন্তু পিত্ত ও বায়ু কমায়।

০৫. নাশপাতি- ইহা সহজেই হজম হয়। ত্রিদোষ কমায় কিন্তু শুক্র ও ধাতু বাড়ায়।

পড়ুন  রূপচর্চায় ৪টি ফল এর ফেসপ্যাক

০৬. আতাফল- আতা ফল হজম হয় দেরিতে। বল ও মাংশ বাড়ায় ও রক্তপিত্ত এবং বায়ু কমায়।

০৭. কলা- শুক্র, মাংশ ও কফ বাড়ায় এবং মেহ ও বায়ু দূর করে। এবং কাঁচকলা বল ও রক্ত বাড়ায় কিন্তু পায়খানা কমায়।

০৮. আলুঃ

লাল আলু- লাল আলু দেরীতে হজম হয় কিন্তু শক্তি বাড়ায়। ফুসফুসের হৃদয়পিন্ডের জমা কফ বাহির করে দেয়।
শাখ আলু- ঠান্ডা গুণ এবং বায়ুপিত্ত ও কফ দূর করে।
০৯. বেলঃ

কদবেল- পায়খানা কমায়, বায়ু, পিত্ত, ঘা, শ্বাসকাশ, বমি হৃদরোগ ও বিষদুষ দূর করে।
কাঁচাবেল- হজমী কারক পায়খানা কমায়। বায়ু, কফ, জ্বর ও অতিসারে খুবই উপকারী।
পাকাবেল- দেরীতে হজম হয় কিন্তু ত্রিদোষ বাড়ায়।
১০. ফুটিফল বা বাঙ্গী- দাহ, জ্বালা পোড়া, মূত্র, কৃষ্ণ ও পাথর রোগে উপকারী।

কচি শসা- হজম দেরীতে, শুক্র ও বাত বাড়ায়, কফ, কুষ্টি ও ক্রিমি কমায়।

১১. তরমুজ- হজম বাড়ায় ও বায়ু কমায়।

১২. পেঁপে- হজম বাড়ায়, কফ, পিত্ত কমায়। চোখের উপকার করে। জ্বর তৃষ্ণা কামেলা, বাত জ্বর, মুগ্র কৃষ্ট, রক্ত, পিত্ত, মেহ ও স্বর ভেঙ্গে বিশেষ উপকারী।

১৩. পাকা তাল- দেরীতে হজম হয় ও ত্রিদোষ বাড়ায়।

১৪. খেজুরঃ

Loading...

পাকা খেজুর- দেরীতে হজম হয়। তৃপ্তি, পুষ্টি, বল ও শুক্র বাড়ায়। রক্ত, পিত্ত, ক্ষয় রোগ, বায়ু, বমি, জ্বর, শ্বাস কাম, মুর্ছা মদ্যপানজনিত রোগ, বায়ু, পিত্ত রোগ দূর করে।
খেজুর রস- হজম, বল, শুক্র ও মূত্র বাড়ায় এবং শ্লেমা কমায়।
১৫. জামঃ

পড়ুন  লেবুর কিছু অসাধারণ ব্যবহার

জাম- বায়ু বাড়ায় এবং কফ ও পিত্ত কমায়।
গোলাপ জাম- রুচি করে ঠান্ডাগুণ এবং দেরীতে হজম হয়।
জামরুল- দেরীতে হজম হয়। বাত ও কফ কমায়।
১৬. আনারস- ক্রিমি, সর্দি, জ্বর নিবারক রস বাড়ায়।

১৭. মীষ্টি ডালিম- সহজে হজম হয়। শুক্র, বল ও মেধা বাড়ায়। মুখের রুচিও বাড়ায়। তৃষ্ণা, দাহ, জ্বর, অতিসার ও গ্রহনী রোগে বিশেষ উপকারী।

১৮. বড়ইঃ

বড়ই- দেরীতে হজম হয়। শুক্র বাড়ায়, পুষ্টি বাড়ে এবং পায়খানা কমায়। তৃষ্ণা, রক্ত, পিত্ত ও ক্ষত রোগে বিশেষ উপকারী।
ছোট বড়ই- বাত ও পিত্ত কমায়।
১৯. কামরাঙ্গা- মুখের রুচি বাড়ায়, কফ ও বায়ু কমায়।

২০. চালতা- যদিও দেরীতে হজম হয়। পায়খানা কষায়, শরীরের বিষণ দোষ দূর করে।

২১. ফরমজা- তৃষ্ণা কমায়, পিত্ত বাড়ায়।

২২. জলপাই- ইহা সহজে হজম হয়। বায়ু ও কফ কমায়।

২৩. তেতুলঃ

কাঁচা তেতুল- রক্ত পিত্ত, আমদোষ বাড়ায় কিন্তু বায়ু ও শুল রোগ কমায়।
পাকা তেতুল- ইহা সহজেই হজম হয় ও পায়খানা পরিস্কার করে এবং কফ ও বায়ু কমায়।
২৪. জাম্বুরা- রুচি বাড়ায়। বায়ু, রক্তপিত্ত, শ্বাস কাশ, ক্ষয়রোগ, হিক্কা শোথ, অম্ল পিত্ত, পুরাতন আমাশা ও রক্তহীনতায় খুবই উপকারী।

পড়ুন  যে ফলের খোসায় রয়েছে উজ্জ্বল রূপের রহস্য!

২৫. কিসমিস- দেরীতে হজম হয়। প্রস্রাব কমায়, শরীরে

২৬. মনাক্কা- শুক্র বাড়ায়, চক্ষুরোগ, জ্বর, তৃষ্ণা, বাত, রক্ত কামলা, মুত্রকৃচ্ছ, রক্তপিত্ত, মেহ শোথ, মদ্যপ্যায়ীদের রোগসমুহ ও স্বর ভঙ্গ রোগে বিশেষ উপকারী। পায়খানা কষায়, কফ ও পিত্তরোগ দূর করে।

পেস্তা- পুষ্টিবল ও শুক্র বাড়ায়।

২৭. বাদাম- দেরীতে হজম হয়। কফ ও শুক্র বাড়ায়, রক্ত পিত্ত রোগে ক্ষতি করে।

২৮. আঙ্গুর ফল- তৃষ্ণা, মুছা, দাহ জ্বর, শ্বাস ও বমি রোগে বিশেষ উপকারী।

২৯. শিঙ্গাড়া/ননিফল- দেরীতে হজম হয়। পায়খানা কষায়, শুক্র বাড়ায় ও বাত, পিত্তদাহ ও রক্তপিত্ত রোগের উপকার হয়।

 

উপকারী ফল কমলার গুণাগুণ জেনে নিন

৩০. লেবুঃ

কমলালেবু- হজমী কারক, রুচি বাড়ায়, চক্ষুরোগ, পেটের রোগ, কুষ্ঠরোগ, অর্জীণ, শুলরোগ, জ্বর, কাশ, বমি ও তৃষ্ণা এবং বায়ু রোগে বিশেষ উপকারী।
কাজী লেবু- ইহা সহজেই হজম হয়, বাত শ্লেমা ও বমি নিবারক।
জামির লেবু- রুচিকারক, হজমশক্তি, বল ও পিত্ত বাড়ায়, বমি কমায়।
টাবা লেবু- হজম শক্তি বাড়ায়, পায়খানা পরিস্কার করে। শ্বাস, কাশ, বমি, গুল, হিক্কা, পেট ফাঁপা, হৃদরোগ ও গুল্ম, প্লীহা প্রভৃতি রোগ দূর করে এবং প্রদ্রাব পরিকার রাখে।

Loading...

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।

One comment

  1. I like very much your activity

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.