উচ্চ রক্তচাপ কমবে ওষুধ ছাড়াই

হাইপারটেনশন (ইংরেজি: Hypertension), যার আরেক নাম উচ্চ রক্তচাপ, HTN , বা HPN, হল একটি রোগ যখন কোন ব্যাক্তির রক্তের চাপ সব সময়েই স্বাভাবিকের চেয়ে ঊর্ধ্বে। হাইপারটেনশনকে প্রাথমিক (আবশ্যিক) হাইপারটেনশন অথবা গৌণ হাইপারটেনশনে শ্রেণীভুক্ত করা হয়। প্রায় ৯০–৯৫% ভাগ হ্মেত্রেই “প্রাথমিক হাইপারটেনশন” বলে চিহ্নিত করা হয়। উচ্চ রক্ত চাপের কোন উল্লেখ যোগ্য কারণ কোনও চিকিৎসা-শাস্ত্রে খুঁজে পাওয়া যায়নি।

উচ্চ রক্তচাপ

স্বয়ংক্রিয় বাহুর রক্ত চাপের মিটার

আজকের দিনে বেশিরভাগ মানুষই উচ্চ রক্তচাপে ভুগে থাকেন। এটি হল এমন একটি রোগ যখন কোন ব্যক্তির রক্তের চাপ সব সময়েই স্বাভাবিকের চেয়ে উর্ধ্বে থাকে। তাই উচ্চ রক্তচাপ বা হাইপারটেনশন বর্তমানে একটি আলোচিত বিষয়। সাধারণত ব্লাড প্রেসার ৯০ থেকে ১৪০ এর উপড়ে গেলে সেই অবস্থাকে উচ্চ রক্তচাপ বলে। যদিও উচ্চ রক্তচাপ আলাদাভাবে কোন অসুস্থতা নয়, কিন্তু এটি শরীরের বিভিন্ন অঙ্গের ওপর স্বল্প থেকে দীর্ঘস্থায়ী প্রভাব ফেলে। এর ফলে স্ট্রোক, হার্ট অ্যাটার্ক, চোখের ক্ষতি, ব্রেন এবং কিডনির ক্ষতি হতে পারে। কাজেই কেবল ওষুধের মাধ্যমেই যে উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়, এমনটি নয়। বরং এমন কিছু কাজ আছে যা করলে ওষুধ ছাড়াও উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখা সম্ভব।

 

জেনে নিন ওষুধ ছাড়াই উচ্চ রক্তচাপ কমাতে যা করবেন-

# উচ্চ রক্তচাপের জন্য ভীষণ বিপজ্জনক হলো লবণ। তাই দৈনন্দিন খাবারে লবণের মাত্রা কমিয়ে আনুন। এক্ষেত্রে মেডিক্যাল বিশেষজ্ঞরা দৈনিক ১১০০-১৫০০ মিলিগ্রাম লবণ খাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন। এছাড়া বেশিরভাগ ফাস্টফুডে সোডিয়ামের মাত্রা অনেক বেশি থাকায় তাও এড়িয়ে চলুন। এভাবে নিয়মিত করলে দেখবেন উচ্চ রক্তচাপ একেবারেই কমে গেছে।

# হাল্কা ব্যায়াম হতে পারে আপনার উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণের আরেকটি চমৎকার কৌশল। সঠিক খাদ্যাভাস আর নিয়মিত ব্যায়াম একসঙ্গে শুধু শরীরের ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতেই সাহায্য করে না, একইসঙ্গে উচ্চ রক্তচাপের সম্ভাবনাও কমিয়ে আনে। আধা ঘণ্টা ব্যায়াম উচ্চ রক্তচাপ কমিয়ে দেয় ৬ থেকে ৮ ইউনিট। এক্ষেত্রে মেডিটেশনও রক্তচাপ কমায়। উন্মুক্ত বাতাসে অন্তত পাঁচ মিনিট ধীরে ধীরে এবং দীর্ঘ দম নিলে রক্তচাপ কমে।

# চিনি জাতীয় খাবার কম খান। এছাড়া ডিম, দুধ, মাংস খাওয়ার পরিবর্তে বেশি করলে শাকসবজি খান। এতে করেও উচ্চ রক্তচাপ কমবে।

# উচ্চ রক্তচাপ থেকে বাঁচতে ক্যাফেইন জাতীয় খাবার এড়িয়ে চলুন। কেননা ক্যাফেইন নার্ভাস সিস্টেমকে উত্তেজিত করে। ফলে হার্টবিটের পাশাপাশি ব্লাড প্রেসারও বেড়ে যায়। কাজেই কফি পান একেবারেই এড়িয়ে চলুন। তবে চা খাওয়া যেতে পারে দৈনিক তিন কাপ। এক গবেষণায় দেখা গেছে, দৈনিক তিন কাপ চা ৬ সপ্তাহের মাথায় ৭ পয়েন্ট রক্তচাপ কমায়।

উচ্চ রক্তচাপ

High blood pressure

# বেশি করে বিভিন্ন ধরনের ফলমূল খান। কেননা এতে ফাইবার থাকায় তা পরিপাক অন্ত্রকে পরিস্কার রাখে। ফলে রক্তচাপও নিয়ন্ত্রণে থাকে।

# কিছু কিছু ভেষজ বিশেষ করে রসুন, হলুদ, আদা, গোলমরিচ, অলিভ অয়েল, বাদাম প্রভৃতি উপাদানগুলো রক্তচাপকে নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে। তবে প্রতিদিন এক কোয়া রসুন চিবিয়ে খেলে সবচেয়ে ভালো কাজ হয়।

# প্রতিদিনের কিছু বাজে অভ্যাস যেমন ধূমপান, মদপান ছেড়ে দিন। কেননা এগুলো উচ্চ রক্তচাপ বাড়াতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

# রাতে ঘুমোতে যাওয়ার পূর্বে ১৫ মিনিট ধরে কুসুম গরম পানি দিয়ে গোসল করুন। দেখা গেছে, এতে শুধু কয়েক ঘন্টাই নয়, বরং সারারাতেও রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে থাকতে পারে।

উচ্চরক্তচাপ কমানোর কিছু সহজ উপায়

আমাদের দেশে বিশ বছরের ঊর্ধ্বে যারা তাদের ২৫% থেকে ৩০% লোক উচ্চ রক্তচাপে ভুগছেন। এটি সাধারণত ব্যক্তির খাদ্যাভাস, বাড়তি ওজন, এবং জীবন যাপন পদ্ধতির উপর নির্ভর করে। তাই এসব বিষয়ের যথাযথ ও নিয়মিত সঠিক পরিচর্যা আর অভ্যাস গড়ে তুলে উচ্চ রক্তচাপকে অনেকটাই নিয়ন্ত্রণ করা যায়। এভাবে নিয়ন্ত্রিত জীবনযাপন করলে দেখবেন ওষুধ সেবনের কোন প্রয়োজনই পড়বে না।

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *