কোন জুটির প্রেম বিয়ে পর্যন্ত গড়ায়?

আপনি কি প্রেম করছেন বেশ কয়েক দিন ধরে? ভাবছেন, বিয়েটা এ বার করে ফেললেই হয়? তবুও মনের মধ্যে কিন্তু কিন্তু ভাব যাচ্ছে না, চারপাশটা দেখে বুকের মধ্যে দুরুদুরু, ডিসিশনটা ঠিক নিচ্ছি তো?

 প্রেম

কোন জুটির প্রেম বিয়ে পর্যন্ত গড়ায়

এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার কাজটা যাতে কিছুটা চটজলদি হয়, এ বার সেই সাহায্য করতে এগিয়ে এলেন গবেষকরা। কোন প্রকারের জুটির প্রেম টপকে বিয়ের সিলসিলা টেকার সম্ভাবনা বেশি, সেই বিষয়ে খানিক ইঙ্গিত দিলেন তাঁরা।

টানা ন’মাস গবেষণা করে ইল্লিনোইস বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা নিজেদের মধ্যে বোঝাপড়া, ভালবাসা আরও বেশ কিছু বিষয়ের ভিত্তিতে ৩৭৬ জন কাপলকে চারটি ক্যাটাগরিতে ভাগ করেছেন।

ছেলেদের যে ৬টি ভুলের কারণে মেয়েদের সাথে প্রেম টেকে না

১) নাটুকে জুড়ি- বাহ্যিক প্রেম প্রকাশের বহর খুব বেশি হলেও এই ধরনের কাপলের ব্রেকআপের সম্ভাবনা সব থেকে বেশি থাকে। সম্পর্কে দায়বদ্ধতার অভাব থেকেই নিজেদের মধ্যে মনোমালিন্য বাড়ে। প্রকাশ্যে ঝগড়া ঝাঁটি না করলেও মনে মনে রাগ পুষে রাখে।মিষ্টি মুখে সারাক্ষণ একে অপরের সমালোচনা করে।সম্পর্কে ভাল দিক গুলো অগ্রাহ্য করে শুধুমাত্র খারাপটুকু নিয়ে মেতে থাকে এরা। এই ধরনের কাপলদের বিয়ে টেকার সম্ভাবনা খুব কম থাকে।

২) সঙ্গীদের খেয়াল রাখে যে জুড়ি (পার্টনার ফোকাসড কাপল)- এই ধরনের জুটির সম্পর্ক সাধারণত দীর্ঘ মেয়াদি হয়। একজন আর এক জনের উপর ভরসা করেন, সম্পর্কের প্রতি দায়বদ্ধ থাকেন। সম্পর্কে ভাল-খারাপ সব কিছুকে নিয়েই চলতে পারেন।বিবাহিত জীবনেও এরাই সব থেকে সুখি হন।

কি কারণে পুরুষরা অন্যের প্রেমিকা বা স্ত্রীর সাথে পরকীয়া করে ?

৩) ঝগড়ুটে জুড়ি- প্রায় কোনও বিষয়েই এদের মতৈক্য হয় না। প্রায় প্রতি ক্ষেত্রে একে অপরের বিপরীতে কথা বলাই এদের অভ্যাস। অদ্ভুত ভাবে বিবাদ সত্ত্বেও এদের সম্পর্ক কিন্তু সহজে ভাঙে না। হুঠ করে একজন অন্যজনকে ছেড়ে যায় না। সম্পর্কের প্রতি এরা কমিটেড হয়। তাই প্রেমটা টিকে ধাকলে বিয়েটাও টিকে যায়।

প্রাক্তন প্রেমিকের মুখোমুখি হলে কি করা উচিত?

৪) সামাজিক ভাবে জড়িত জুটি- এরা নিজেদেরকে নিয়ে সুখিই থাকে। এদের সম্পর্কে স্থায়িত্বও থাকে। সম্পর্কে সিদ্ধান্ত নেওয়ার ক্ষেত্রে এরা একটা সোশ্যাল নেটওয়ার্ককে কাজে লাগায়। সেই নেটওয়ার্কের উপর তাদের বিশ্বাসও অগাধ।

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *