কালো ঠোঁট সুন্দর করবেন কীভাবে?

সুন্দর একটি হাসির জন্য প্রয়োজন সুন্দর গোলাপি এক জোড়া ঠোঁটের। সুন্দর গোলাপি ঠোঁট আপনার সৌন্দর্য অনেকখানি বাড়িয়ে দিতে পারে। কিন্তু এই ঠোঁট বিভিন্ন কারণে কালো হতে পারে অনেকের ক্ষেত্রেই। অনেকের প্রাকৃতিকভাবে ঠোঁট কালো থাকে। তাছাড়া সূর্যের অতি বেগুনি রশ্মি, ধূমপান, অতিরিক্ত লিপস্টিকের ব্যবহার বিভিন্ন কারণে ঠোঁট কালো হয়ে যেতে পারে। কালো ঠোঁট গোলাপি করার জন্য বাজারে রয়েছে নানা কসমেটিকস। তবে এ সকল কসমেটিকসের রয়েছে নানান পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া। তাহলে এখন উপায়? উপায় রয়েছে হাতের নাগালেই, আপনি চাইলে মাত্র ১ সপ্তাহেই ঠোঁটের রঙ গোলাপি করে তুলতে পারবেন। আসুন জেনে নিই সেই সহজ জাদুকরী উপায়টি।

ঠোঁট

কালো ঠোঁট সুন্দর করার উপায়

যা যা লাগবে

বিট
গাজর
মধু
অলিভ ওয়েল
যেভাবে গোলাপি ঠোঁটের জেলটি তৈরি করবেন

-সমপরিমাণ বিট এবং গাজর নিয়ে ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে পেষ্ট করে নিন। এবার এতে ২ চা চামচ মধু, ১ চা চামচ অলিভ অয়েল মেশান। পেষ্টের সাথে ভাল করে মধু ও অলিভ অয়েল মেশাবেন।
যেভাবে ব্যবহার করবেন

কালো ঠোঁট স্বাভাবিক করবেন যেভাবে

-একটি ছোট তুলোর বল নিন।
-এবার বলটি-বিট গাজরের মিশ্রণে ভিজিয়ে নিন। তারপর ভেজানো তুলোর বলটি আলতোভাবে ঠোঁটের ওপরে লাগান।
-এটি দিনে দুইবার ব্যবহার করুন। একবার সকালে, আরেকবার রাতে ঘুমাতে যাওয়া আগে।
-সম্ভব হলে এটি সারা রাত ঠোঁটে লাগিয়ে রাখুন। এটি নিয়মিত ব্যবহারে আপনার ঠোঁটের শুষ্কতা ও দাগছোপ দূর করে ঠোঁটকে গোলাপি করে তুলবে।
-যদি আপনার ঠোঁটের চারপাশে অনেক বেশি কালো থাকে তবে এই মিশ্রণটিতে কয়েক ফোঁটা লেবুর রস দিয়ে দিতে পারেন। লেবুর রস কালো দাগ দূর করতে সাহায্য করে থাকে।
-আপনি চাইলে এটি বানিয়ে ফ্রিজে ১০ থেকে ১২ দিন পর্যন্ত রেখে দিতে পারেন। তবে খুব বেশি দিন না রাখাই ভাল।
যেভাবে কাজ করে

ঠোঁট রাঙাতে লিপস্টিক দেয়ার কিছু নিয়ম কানুন জেনে নিন

লিপস্টিক

গাজরে আছে বিটা ক্যারাটিন, অ্যান্টি অক্সিডেন্ট,ভিটামিন যা ত্বকের রুক্ষতা দূর করে থাকে। ত্বককে করে তোলে আরও স্বাস্থ্যকর, আরও সুন্দর। বিট হচ্ছে প্রাকৃতিক রঙ, যা ঠোঁটকে গোলাপি রং হতে সাহায্য করে। এছাড়া এতে অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি, অ্যান্টি অক্সিডেন্ট যা ঠোঁটকে কোমল করে তোলে। মধু ও অলিভ ঠোঁটকে ময়েশ্চারাইজড করে তোলে, এর রুক্ষতা দূর করে থাকে।নিয়মিত এক সপ্তাহ ব্যবহারে আপনার ঠোঁট আগের চাইতে অনেকটা নরম ও গোলাপি হয়ে উঠবে।

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About ফারজানা হোসেন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *