মেয়েদের ফিঙ্গারিং দেয়ার কৌশল জেনে নিন

রিলেশনে সেক্সের আগের একটা মজার ব্যাপার ফিঙ্গারিং। গার্লফ্রেন্ড বা পার্টনারকে ফিঙ্গারিং করে দিতে পারেন আপনি। এটা দুইজনের জন্যই অনেক বেশি এরোটিক একটা ব্যাপার। এতে কারো ভার্জিনিটি চলে যায় না। এবং এতে যৌনরোগ হওয়ার কোন সম্ভাবনা নেই।

ফিঙ্গারিং

মেয়েদের ফিঙ্গারিং দেয়ার কৌশল জেনে নিন

আপনি যখন বেশ হর্নি ফিল করবেন, বা টার্ন অন থাকবেন তখন ফিঙ্গারিং করা শুরু করুন। চাইলে ফিঙ্গারিং করার আগে পর্ন বা সেক্স মুভি দেখুন, এরোটিকা পড়ুন।এছাড়া বয়ফ্রেন্ড এর সাথে ফোন সেক্স করার সময় বা এরোটিক কথা বলার সময় করতে পারেন ফিঙ্গারিং। হর্নি হলে জি স্পটের চার পাশের স্পঞ্জি এরিয়া গুলোতে রক্ত পৌছায়, ফলে জায়গাগুলো স্ফিত হয়। তাতে ফিঙ্গারিং করা সহজ হয় এবং এতে করে আপনি মজাও বেশি পাবেন।
আপনি যদি আপনার পার্টনারকে ফিঙ্গারিং দিতে চান তবে তাকে জিজ্ঞেস করুন। সে মানা করলে জোর করবেন না। কারণ সব মেয়ে এটার জন্য রেডি নাও থাকতে পারে। তাকে প্রেসার দিবেন না। সে যখন প্রস্তুত হবে তখন সে আপনাকে জানাবে। আপনি যদি মেয়ে হয়ে থাকেন এবং আপনাদের রিলেশনকে আর ইন্টিমেন্সির দিকে নিতে চান, এবং চান আপনার পার্টনার আপনাকে ফিঙ্গারিং দিক, তবে তাকে বলুন খোলাখুলি। সে খুশিই হবে।

ফিঙ্গারিং করা বেশ সহজ। খালি কিছু ব্যাপারের প্রতি দৃষ্টি রাখলে আপনার পার্টনার কে মজা দিতে পারবেন পুরোপুরি এবং আপনিও মজা পাবেন।

 

ফিঙ্গারিং যদি ও একটা ফোরপ্লে, তবুও আপনি হুট করে ফিঙ্গারিং শুরু করবেন না। বিশেষ করে মেয়েটির জন্যে এটা যদি প্রথম হয়, তবে তাকে সময় দিন। দুইজন রিল্যাক্সড থাকুন। শুরুতে কিস করুন এবং ফ্রি হন। এবং অবশ্যই আপনার হাতের নখ কেটে ছোট রাখবেন, যেন ফিঙ্গারিঙ্গের সময় তার ভেতরের অঙ্গগুলোর কোন ক্ষতি না হয় বা সে ব্যথা না পায়।

 

ফিঙ্গারিংয়ের আগে তার ব্রেস্ট চাপতে পারেন। এতে সে টার্ন অন হবে এবং তার ভ্যাজায়না ভিজে যাবে। আস্তে আস্তে নিচে নামুন। গলায় কিস করুন, পেটে, নাভিতে কিস করুন। হাত বুলান তার শরীরে। পায়ে হাত ঘষুন। প্রথমেই খুব রাফ হবেন না। আদর করুন তাকে। তার পুসি তে হাত দেওয়ার আগে নরম ভাবে জিজ্ঞেস করুন তাকে। পুসির উপর হাত রেখে জিজ্ঞেস করুন কি চায়। চরম সেক্সুয়ালি টিজড হয় এতে মেয়েরা।

 

ভ্যাজায়নার চারদিকে হাত ঘষুন। এরপর আস্তে আস্তে হাত ভ্যাজায়নার উপরে নিন। সেখানে হাত বুলান, সুড়সুড়ি দিন। সে যদি পছন্দ করে তবে জোড়ে ঘষুন। ফিঙ্গারিং করার জন্য ভাল পজিশন বেছে নিন, যেন আপনি যখন তার ভিতরে হাত ঢুকান তখন যেন হাত ভিতর পর্যন্ত যায়। দুই জন পাশাপাশি শুয়ে, বা তাকে আড়আড়ি ভাবে কোলে নিয়ে বসে ফিঙ্গারিং দিতে পারেন। যেভাবে দুইজন কম্ফোর্টেবল হবেন সে পজিশনটি বেছে নিন।

দেখতে পারেন নারীদের যোনি চোষার বিষয়ে কিছু তথ্য জেনে নিন

 

সে যখন চাইবে তখন একটি আঙ্গুল ভ্যাজায়নার ভেতরে প্রবেশ করান। প্রথমে আস্তে আস্তে এক-দুইবার ঢুকান এবং সে যখন মজা পাওয়া শুরু করবে তখন জোরে দিন এবং আস্তে আস্তে দুইটা আঙ্গুল দিয়ে চেষ্টা করুন এবং তার ইচ্ছা অনুযায়ী আঙ্গুলের সংখ্যা বৃদ্ধি করুন।

 

তার ভ্যাজায়নার ভেতরে হাত ঢুকান, জি স্পট স্পর্শ করার চেষ্টা করুন। এছাড়া মুখেই থাকে ক্লিটরিস। এখানে আঙ্গুল ঘষলে সে মজা পাবে। পুসির ভিতর আঙ্গুল ঢুকান বের করুন, জোরে তাকে মজা দিয়ে, তার ভেজা পুসি ফিল করুন। ভেতরে আঙ্গুল ঘুড়ান। তার এক্সপ্রেশনের দিকে লক্ষ রাখুন। দেখবেন সে অনেক হর্নি হয়ে গেছে। বেশি সেক্সুয়াল কিছু করতে চাইলে আঙ্গুল বের করে আপনি খেতে পারেন বা তাকে চুষতে দিতে পারেন। শুধু ফিঙ্গারিং করেও তাকে অর্গাসোম দিতে পারেন পেনিস ছাড়াই।

 

ফিঙ্গারিং করার সময় শুরুতে সেক্স না করাই ভাল, কারন তখন তার ঠিক জায়গায় আঙ্গুল নাও ঢুকতে পারে। যদি আপনি স্থানটা নিয়ে কনফিউজ থাকেন তবে তাকে জিজ্ঞেস করুন। সে ভুল জায়গায় আঙ্গুল ঢুকালে তা পছন্দ করবে না, বরং আপনাকে দেখিয়ে দিতেই মজা পাবে। ফিঙ্গারিং শুরু করার পর সেক্স করতে পারেন। মনে রাখবেন সে খালি একটা ভ্যাজায়না না। ফিঙ্গারিং দেওয়ার সময় তার দিকে দৃষ্টি রাখুন। সে ব্যথা পাচ্ছে নাকি খেয়াল রাখুন। সে যেন জানে আপনি তার প্রতি কেয়ার করেন। আদর করুন তাকে। ফিঙ্গারিং করে মজা দিন।

 

মেয়েদের মাস্টার্বেটে আরো মজা পাওয়ার জন্য আছে বিভিন্ন সেক্স টয় যেমন ডিলডো, ভাইব্রেটর। এসবে লুব্রিক্যান্ট মাখিয়ে নিতে পারেন যদি বেশি শুকনো লাগে। এর পর পছন্দ মত ভইব্রেশন দিয়ে মাস্টারবেট করুন। জি স্পট খুজে বের করা টা মেয়েদের মাস্টারবেটে বেশ গুরুত্বপূর্ণ। জি-স্পট খুজে সেখানে জোরে প্রেস করুন। এতে আপনার কোন ক্ষতি হবে না। সেক্স টয় বা ডিলডো ব্যাবহারে শরীরের কোন ক্ষতি হয় না। তবে এগুলো না থাকলে আপনি আঙ্গুল দিয়ে ই কাজ চালাতে পারেন। অনেকে ডিলডোর অভাব মেটাতে পেন্সিল বা অন্যান্য জিনিস ব্যাবহার করে থাকে। আপনি যদি এসব ব্যাবহারে মজা পান এবং কম্ফোর্টেবল হন তবে চেষ্টা করে দেখতে পারেন।

 

শালীন ভাষা দিয়ে যৌন বিষয়ক শিক্ষা সবার মাঝে পৌছে দেওয়াই আপনার ডক্টরের মুল লক্ষ্য।

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *