দৌড়ানোর আগে অবশ্যই এক চামচ চিনি

চিনি এক প্রকার সুমিষ্ট পদার্থ যা গাছ বা ফলের রস থেকে প্রস্তুত করা হয়। ভারতবর্ষে সাধারণত আখ বা ইক্ষুর রস থেকে চিনি তৈরি করা হয়। এছাড়া বীট এবং ম্যাপল চিনির অন্য দুটি প্রধান বনজ উৎস। চিনির রাসায়নিক নাম সুক্রোজ। এক অণু গ্লুকোজের সঙ্গে এক অণু ফ্রুক্টোজ জুড়ে তৈরি এক অণু সুক্রোজ তৈরি হয়। রসায়নাগারে যে চিনি প্রস্তুত করা হয় তা প্রধানত: ঔষধে ব্যবহার করা হয়।

চিনি

চিনি

দৌড় বা জিমের আগে এক চামচ চিনির মধ্যে লুকিয়ে রয়েছে আপনার সাফল্য বা ব্যর্থতা। ব্রিটেনের ইউনিভার্সিটি অব বাথ-এর গবেষকণায় দেখা গেছে, চিনির মধ্যে থাকা সুক্রোজ এনার্জির মাত্রা বাড়িয়ে দেয়। ফলে অনেকটা দৌড়নোর পরও ক্লান্ত হয় না শরীর।

চিনির কেলাস

চিনির কেলাস

ম্যারাথন রানারদের জন্য অনেক হেলথ ড্রিঙ্কে মূল উপাদান হিসেবে সুক্রোজ ব্যবহার করা হয়। দৌড়নোর সময় রক্তে সুগারের মাত্রা ঠিকঠাক ধরে রাখতে লিভারে পর্যাপ্ত পরিমাণ কার্বহাইড্রেট প্রয়োজন।

সাইক্লিস্টদের উপর এই গবেষণা চালিয়ে দেখা গিয়েছে গ্লুকোজ বা সুক্রোজের মাধ্যমে কার্বহাইড্রেট লিভারে গ্লাইকোজেন ভেঙে যাওয়া রুখতে সাহায্য করে। গ্লাইকোজেন ভেঙে যাওয়ার ফলেই মানুষ ক্লান্ত অনুভব করে। সেই সঙ্গেই দৌ়ড়ের আগে চিনি খেলে দৌড়ের সময় অস্বস্তিও অনেক কম হয়।

যদি অন্তত আড়াই ঘণ্টা টানা দৌ়ড়তে চান বা শরীরচর্চা করতে চান তবে ঘণ্টায় অন্তত ৯০ গ্রাম চিনি খান। প্রতি ১০০ মিলি জলে আট গ্রাম চিনি মিশিয়ে খাওয়া উচিত্।

আমেরিকান জার্নাল অফ ফিজিওলজি-এন্ডোক্রিনোলজি অ্যান্ড মেটাবলিজমে প্রকাশিত হয়েছে এই গবেষণার ফল।

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *