স্তন আকারে বড় হলে কি বিয়ের পর সমস্যা হয়?

আমি শুনেছি ভারী স্তন হলে নানান রকমের শারীরিক অসুবিধা দেখা দেয়। ব্যাপারটা কি সঠিক? আর যাদের স্তন ভারী, বিয়ের পর কি তাঁদের কোন সমস্যা হয়? সমস্যাগুলো কী কী জানতে চাই।

Loading...

স্তন

স্তন আকারে বড় হলে কি বিয়ের পর সমস্যা হয়?

স্তন হল স্তন্যপায়ী প্রাণীদের শরীরে দুগ্ধ (স্তন্য) উৎপাদনকারী গ্রন্থি। স্ত্রী এবং পুরুষ উভয়লিঙ্গেই স্তন থাকলেও একমাত্র স্ত্রী প্রাণীই দুগ্ধ উৎপাদনে সক্ষম। বয়ঃসন্ধিকালে অর্থাৎ যৌবনাগমনে স্ত্রী শরীরে স্তন বিকশিত হতে আরম্ভ করে এবং আকারে বৃদ্ধি পায় ও স্থুলতা লাভ করে। সাধারণত ১৫ থেকে ১৮ বছর বয়সের মধ্যেই স্তনপরিণতি সম্পূর্ণ হয়।। পুংশরীরে স্তন থাকলেও তা অপরিণত অবস্থাতেই থাকে এবং কয়েকটি বিরল ক্ষেত্র ব্যতীত তা থেকে দুগ্ধ নিঃসরণ হয় না। যৌবনপ্রাপ্ত স্ত্রীশরীরে পুষ্ট স্তনের আভাস প্রকটভাবে ফুটে ওঠে। প্রকৃতপক্ষে স্তন স্বেদগ্রন্থিরই বিবর্তিত রূপ। স্তন্যপায়ী প্রাণীর শরীরে স্বেদগ্রন্থি বিবর্তন লাভ করে স্তনে রূপান্তরিত হয়। মানবশরীরে দু’টি স্তন থাকে কিন্তু অন্যান্য স্তন্যপায়ী প্রাণীদের বহুক্ষেত্রেই দুইয়ের অধিক স্তন পরিলক্ষিত হয়। যৌনমিলন কালে স্তন চুমু দিয়ে বিশেষ আনন্দ পাওয়া যায় ।

মহিলাদের স্তন বৈকল্য জনিত সমস্যা ও সমাধান

আপনার প্রশ্ন বেশ কয়েকটি, তাই কয়েকটি ধাপে দেয়া হলো জবাব।

ভারী স্তনের ব্যাপারটি জিনের ওপরে নির্ভর করে, এবং আমাদের দেশের নারীদের স্তন স্বাভাবিক ভাবেই পশ্চিমা দেশের মেয়েদের তুলনায় ভারী হয়ে থাকে। অনেক নারীরই বিয়ের আগে স্তন অতিরিক্ত ভারী হতে পারে। এবং এই স্তন নিয়ে বিয়ের আগে, পরে কিংবা বেশি বয়সে- সবক্ষেত্রেই দেখা দিতে পারে নানান রকম সমস্যা। এই সমস্যাগুলো দেয়া হলো নিচে।
-বেশি ভারী স্তনের জন্য পিঠে ব্যথা হওয়া খুব স্বাভাবিক। আজকাল অনেক নারীই প্লাস্টিক সার্জারির মাধ্যমে স্তন বড় করান। এতে তাঁদের মেরুদণ্ডে তথা পিঠে ব্যথা হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায় বহুগুণে।
– একটা নির্দিষ্ট বয়সের পর স্বাভাবিকভাবেই নারীদের স্তন ঝুলে যেতে থাকে। বেশি বড় স্তন হলে খুব বাজে ভাবে শেপ নষ্ট হয়ে যায় স্তনের, যা শত চেষ্টা করেও ফিরিয়ে আনা যায় না।
– তরুণী বয়সেই বেশি ভারী স্তন হলে নির্দিষ্ট বয়সের আগেই স্তনের আকৃতি নষ্ট হয়ে যায়।
– বেশি ভারী স্তনে অনেক ক্ষেত্রেই আকৃতি সুডৌল হয় না, ত্বকে টাইট ভাব থাকে না। ফলে সৌন্দর্য হানি হয়।
– বেশি ভারী স্তনের কারণে কাঁধে ব্যথা হতে পারে।
– সন্তান হবার পর স্তনের আকৃতি বৃদ্ধি পায়। কম বয়সে বেশি ভারী স্তন হলে সন্তান জন্মের পর স্তন খুব বেশি বড় হয়ে যায় যা দৃষ্টিকটু লাগে ও নানানরকম সমস্যা তৈরি করে।
ভারী স্তনে মোটামুটি এই সমস্যা গুলোই হয়। তবে শারীরিক সমস্যা ছাড়াও হতে পারে কিছু সম্পর্কগত সমস্যা। যেমন, স্তনের সুডৌল ভাব নিয়ে স্বামীর আপত্তি থাকতে পারে। বা তিনি মনে করতে পারেন যে আপনার বিবাহ বহির্ভূত শারীরিক সম্পর্ক ছিল।

পড়ুন  স্তন ছোট করার কিছু কার্যকরী উপায়

কিশোরীর স্তন অতিরিক্ত বড় হয় কেন?

মেয়েদের স্তন সুন্দর ও আকর্ষণীয় করার নিয়ম

নারীর সৌন্দর্যের একটা গুরত্বপূর্ণ অংশ হল তাদের স্তন। ১২-১৩ বছরে এই লক্ষণ বোঝা যায়। কিছু নিয়ম মেনে চললেই মেয়েরা তাদের স্তনকে সুন্দর রাখতে পারে। নিচের নিয়মগুলো মেনে চললে খুব সহজেই স্তন আকর্ষনীয় করা সম্ভব।

ব্রেষ্টে  তিন ধরনের সমস্যা থাকে-

১/ অপুষ্ট স্তন, ২/ ভীষণ ভারি বা বিশাল মোটা স্তন, ৩/ ঝুলে পড়া স্তন।

স্তনের সোন্দর্য বৃদ্ধির উপায়-

১/ ব্রেষ্ট বড় বা ছোট তা বুঝে নির্দিষ্ট ব্যায়াম করুণ।

২/ খুব টাইট ও নয়,আবার খুব ঢিলে ও নয় এমন ব্রা পরুন।

৩/ দিনে ২ বার প্রথমে গরম ও পরে ঠান্ডা এ ভাবে কয়েক বার পানি ঢালুন।

৪/ বড় ও মোটা স্তন যাদের তারা চর্বি বা স্নেহ জতীয় খাবার থেকে দুরে থাকুন।

৫/ স্তনের সৌন্দর্য বৃদ্ধির জন্য বেশি করে দোলনা খানএবং সাতার কাটুন।

৬/ প্রতিদিন স্নানের আগে বাথরুমে ৫ মিনিট ব্যায়াম করুন যাতে স্তনের পেশিতে চাপ পড়ে।

৭/ রাতে ব্রা খুলে ঘুমান।

পড়ুন  মেয়েদের স্তনের চামড়া কুঁচকে ও স্তন ঝুলে পরে কেন? তাতে মেয়েদের কী বিপদহয়

৮/ স্তনের বোঁটার সৌন্দর্য বাড়াতে একটা খালি বোতলে গরম পানি ভরে রাখুন। এতে বোতলটা কিছুটা গরম থাকবে। এ অবস্থায় ঐ বোতলের মুখে আপনার স্তনের বোটা ঢুকিয়ে দিন। বোতল ঠান্ডা না হওয়া পর্যন্ত ঢুকিয়ে রাখুন। স্তন এর বোটা বিকাশে এটি সবচেয়ে ভাল পদ্ধতি।

উপরোক্ত নিয়ম ছাড়াও ব্রেষ্ট মালিশের মাধ্যমে ব্রেষ্ট সুন্দর রাখা সম্ভব-

– খাঁটি দুধের সাথে কয়েক ফোঁটা অলিভ অয়েল দিয়ে স্তনে মালিশ করুন।

মালিশ করবেন নিচের থেকে উপরের দিকে। এতে স্তনের রক্ত সঞ্চার স্বাভাবিক হবে ও সুডৌল হবে। মালিশ করার পর ঠান্ডা পানিতে স্নান করুন।

Girls breasts are beautiful and interesting rules

Loading...

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.