পুরুষের বীর্য পরীক্ষা

পুরুষের বীর্য পরীক্ষা
পুরুষের বীর্য পরীক্ষা

সন্তান উৎপাদনে বীর্য গূরূত্বপূর্ন ভূমিকা রাখে।যদি কোন দম্পতি দীর্ঘ ১ বছর চেষ্টা করার পরও তাদের সন্তান না হয় তবে সাধারনত বীর্যে রসমস্যা বলে ধরা হয় । এরপর পরীক্ষা করা হয় উভয়কেই ।এখন কার আলোচনা হলো কীভাবে বীর্য পরীক্ষা করা হয় তার কয়েকটি ধাপ।

ধাপ ০১:
বীর্য পরীক্ষার পূর্বশর্ত হলো ৪/৫ দিন আগ থেকে মিলন বন্ধ রাখতে হয়।এবং সতর্কতার সাথে করা উচিৎ ভাল মানের ল্যাবরেটরি থেকে।

ধাপ ০২:
কী কী পরীক্ষা করা হয়
(১)শুক্রানুর সংখ্যা: প্রতি মিলিঃ তে কমকরে ১৫ কোটি শুক্রানু থাকতে হবে । এরকম না থাকলে তাকে Azosspermia বলে।
(২)শুক্রানুর গঠন:কমপক্ষে ৪০ ভাগ শুক্রানুর গঠন ঠিক থাকতে হবে না থাকলে তাকে Teratozospermia  বলে।

এছাড়া বীর্যে ইনফেকষন  ও বীর্যের পরিমান দেথা হয় । শুক্রানুর গতি ও পর্যবেক্ষন করা হয়।

ওজন কমাতে ৫ পানীয়

শুষ্ক ত্বকের যত্ন

আপনার স্বাস্থ্য বিষয়ক যে কোন সমস্যার জন্য এখানে কমেন্ট করে জানান।তাছাড়া অপনারা কোন ধরণের পোষ্ট চান তাও জানাতে ভুলবেন না।ধন্যবাদ

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *