মসিকের কততম দিনে ডিম্বাণু শরীর থেকে বেরিয়ে যায়?

মসিকের

মসিকের কততম দিনে ডিম্বাণু বের হয়

আপনার ডক্টর অনলাইন বাংলা স্বাস্থ্য টিপস পোর্টালের আজকরে টপিক মহিলাদের স্বাস্থ্য নিয়ে। আমাদের একজন নিয়মিত পাঠক মেইলে আমাদের প্রশ্ন করছেন যে, মসিকের কততম দিনে ডিম্বাণু শরীর থেকে বেরিয়ে যায়? অনেকরই মাসিক বিষয়ে পরিপূর্ণ ধারণা নেই। যাদের পিরিয়ড সম্পর্কিত প্রশ্ন রয়েছে তারার মেইল করতে পারেন। আর আজকেই এই গুরুত্বপূর্ণ টপিকটি সম্পর্কে জেনে নিন। সর্বপ্রথম আমরা জানব মাসিক কি?

মেয়েদের মাসিক বা ঋতুচক্র কেন হয়?

মাসিক কি?

প্রতি মাসে হরমোনের প্রভাবে পরিণত মেয়েদের জরায়ু চক্রাকারে যে পরিবর্তনের মধ্যে দিয়ে যায় এবং রক্ত ও জরায়ু নিঃসৃত অংশ যোনিপথে বের হয়ে আসে তাকেই ঋতুচক্র বলে।

এর তিনটি অংশ, ১মটি চারদিন স্থায়ী হয় (৪-৭ দিন) এবং একে মিনস্ট্রাল ফেজ, ২য়টি ১০দিন (৮-১০ দিন) একে প্রলিফারেটিভ ফেজ এবং ৩য়টি ১৪ দিন (১০-১৪ দিন) স্থায়ী হয় একে সেক্রেটরি ফেজ বলা হয়।

মিনস্ট্রাল ফেজ এই যোনি পথে রক্ত বের হয়। ৪-৭ দিন স্থায়ী এই রক্তপাতে ভেঙ্গে যাওয়া রক্তকনিকা ছাড়াও এর সাথে শ্বেত কনিকা, জরায়ুমুখের মিউকাস, জরায়ুর নিঃসৃত আবরনি, ব্যাকটেরিয়া, প্লাজমিন, প্রস্টাগ্লানডিন এবং অনিষিক্ত ডিম্বানু থেকে থাকে। ইস্ট্রোজেন এবং প্রজেস্টেরন হরমোনের যৌথ ক্রিয়ার এই পর্বটি ঘটে।

পড়ুন  গর্ভবতী হওয়ার লক্ষণসমূহ কি কি ?

মাসিক হওয়ার আগে ও পরে স্তনে ব্যাথার সমাধান কি?

Loading...

প্রলিফারেটিভ ফেজ ৮-১০ দিন স্থায়ী হতে পারে। শুধু ইস্ট্রোজেন হরমোনের প্রভাবে এটি হয়। এই সময় জরায়ু নিষিক্ত ডিম্বানুকে গ্রহন করার জন্য প্রস্ততি নেয়।

সেক্রেটরি ফেজ টা সবচেয়ে দীর্ঘ, প্রায় ১০ থেকে ১৪ দিন। একে প্রজেস্টেরন বা লুটিয়াল ফেজ ও বলা হয়। এটিও ইস্ট্রোজেন ও প্রজেস্টেরন উভয় হরমোনের যৌথ কারনে হয়। এই সময় নিষিক্ত ডিম্বানুর বৃদ্ধির জন্য জরায়ু সর্বোচ্চ প্রস্ততি নিয়ে থাকে।

ডিম্বাশয়ের কোনো ডিম্বানু শুক্রানু দ্বারা নিষিক্ত না হলে জরায়ু আবার মিনস্ট্রাল ফেজে চলে যায়। এভাবেই পূর্ন বয়স্ক মেয়েদের ঋতুচক্র চলতে থাকে

 

প্রশ্নঃ মসিকের কোন দিন ডিম্বাণু শরীর থেকে বেরিয়ে যায়?

 

আপনার ডক্টরের উত্তর:

দুবার রজঃস্রাব হবার মাঝের সময়কেই সাধারণত পিরিওড বা মাসিক বলা হয়। রজঃস্রাব, অর্থাৎ রক্ত ও টিস্যু ক্ষরণ শুরু হবার দিন থেকে মাসিকের দিন গণনা আরম্ভ করা হয়। মাসিকের প্রথম থেকে পঞ্চম দিনের মধ্যেই সাধারণত যৌনাঙ্গের মাধ্যমে ডিম্বাণু ও অন্যান্য টিস্যু বেরিয়ে যায়। বিস্তারিত জানতে মাসিক বা পিরিওড সংক্রান্ত পোস্ট দেখ।

পড়ুন  চামড়ার পণ্য বছরের পর বছর নতুন রাখার কৌশল!

মাসিক শেষে সেক্স করলে কি প্রেগনেন্ট হওয়ার সম্ভাবনা থাকে?

আপনার ডক্টর হেল্থ সাইটে কোন প্রকার অশ্লীল আর্টিকেল দেওয়া হয় না। মূলত যৌন জীবনকে সুস্থ্য, সুন্দর ও সুখময় করে তোলার জন্য জানা অজানা অনেক কিছু তুলে ধরা হয়।এরপরও আপনাদের কোর প্রকার অভিযোগ থাকলে Contact Us মেনুতে আপনার অভিযোগ জানাতে পারেন, আমরা আপনাদের অভিযোগ গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করব। ধণ্যবাদ আপনার ডক্টর হেল্থ সাইটের সাথে থাকার জন্য।

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।

One comment

  1. আমি আপনাদের পোস্ট গুলো নিয়মিত পড়ে থাকি। আমি জানতে চাই – ডিম্বপাত হচ্ছে কি না কৗভাবে বুঝবো , বা ডিম্বপাত কখন হয়? @শিক্ষক@

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.