ত্বকের বাদামী দাগ দূর করার উপায়

ত্বকের বাদামী দাগত্বকের বাদামী দাগ দূর করার উপায়

অনেক সময় মুখের ত্বকে বাদামী দাগ দেখতে পাওয়া যায় যা খুবই বিরক্তিকর। ত্বকে বাদামী দাগ পড়লে দেখতেও বেশ বিশ্রী লাগে। কিন্তু বর্তমানের আবহাওয়া এবং ত্বকের অযত্নের কারণে ত্বকে এই ধরণের দাগ হওয়া খুবই স্বাভাবিক। আজকে জেনে নিন এই বাদামী ছোপ ছোপ দাগের যন্ত্রণা থেকে দ্রুত মুক্তির দারুণ একটি উপায়।

জেনে নিন সুস্থ্য, সুন্দর, দাগহীন ও মসৃণ ত্বকের জন্য কার্য করী ৪টি খাবার

কেন হয় এই বাদামী দাগ?

মূলত এই বাদামী ছোপ দাগ অতিরিক্ত সূর্যের রশ্মি, বয়স জনিত কারণ, লিভারের অসুস্থতা, অতিরিক্ত মানসিক চাপ, গর্ভধারণ, ভিটামিনের অভাব জনিত সমস্যার কারণে হয়ে থাকে। তাই যতোটা সম্ভব নিজের যত্ন নিয়ে প্রতিরোধ করা উচিত এই বাদামী ছোপ দাগ।

 

বাদামী দাগ দূর করার কার্যকরী উপায়

বাদামী দাগের সমস্যা নিয়ে খুব বেশী চিন্তা করার প্রয়োজন নেই। ঘরের সামান্য টুকিটাকি জিনিসেই এই বাদামী দাগ তুলে ফেলতে পারবেন খুব সহজে। যে জিনিসগুলওর ব্লিচিং ইফেক্ট রয়েছে সেগুলো এই ধরণের ছোপ দাগ তুলতে খুবই কার্যকরী। চলুন তাহলে জেনে নেয়া যাক উপায়টি।

ত্বকের বাদামী দাগ থেকে দ্রুত মুক্তির উপায়-

যা যা লাগবে
– ২ চা চামচ বেসন
– ১ চা চামচ দুধ বা টক দই (যেটা হাতের কাছে পান)
– মাঝারী আকারের লেবুর অর্ধেকটা পরিমাণের রস
– ১ চা চামচ টমেটোর রস
– ২ চিমটি হলুদ গুঁড়ো
– কয়েক ফোঁটা ক্যাস্টর অয়েল/অলিভ অয়েল
– গোলাপজল পরিমাণমতো

 

পদ্ধতি ও ব্যবহারবিধি

* লেবুর রস চিপে নিয়ে লেবির খোসা পরিমাণমতো গোলাপ জলে ডুবিয়ে আলাদা করে রাখুন।
* এরপর বাকি সব উপকরণ (অলিভ/ ক্যাস্টর অয়েল বাদে) একসাথে মিশিয়ে মসৃণ পেস্টের মতো তৈরি করে নিন।
* মুখ ভালো করে ধুয়ে পরিষ্কার করে এই পেস্ট হাতে নিয়ে আলতো করে ঘষে নিন আক্রান্ত স্থানগুলোতে। এরপর পেস্টটি ত্বকে লাগিয়ে রাখুন শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত।
* পেস্টটি পুরোপুরি শুকিয়ে গেলে হাতে কয়েক ফোঁটা অলিভ অয়েল/ ক্যাস্টর অয়েল নিয়ে ত্বকে লাগানো মস্কের উপরেই আলতো করে ম্যাসেজ করে নিন ৩-৫ মিনিট। জোরে ঘষবেন না, আলতো করে ঘষে স্ক্রাব করে মাস্কটি আপনা থেকেই ঝরে যেতে দিন।
* এরপর গোলাপজলে ডোবানো লেবুর খোসা নিয়ে ত্বকে ম্যাসেজ করে নিন কিছুক্ষণ। এরপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ত্বক খুব ভালো করে ধুয়ে মুছে নিন।
* সপ্তাহে ২/১ বার ব্যবহার করুন এই পদ্ধতিটি। ২ সপ্তাহ পর নিজের ত্বকে এটি স্যুট করেছে কিনা তা বুঝে নিয়ে এরপর ত্বক থেকে দাগ উঠে যাওয়া পর্যন্ত ব্যবহার করুন।
নিয়মিত ব্যবহারে ত্বকের বাদামী দাগ দূর হওয়ার পাশাপাশি ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পাবে এবং ব্রণের সমস্যা থেকেও মুক্তি পাবেন।

জেনে নিন ব্রণ সমস্যা সমাধানের একটি কার্যকরী পদ্ধতি

সাবধানতা

অনেকের ত্বক লেবু ও টমেটো রসে অ্যালার্জি প্রবণ হয়, তারা এই পদ্ধতি থেকে দূরে থাকুন।
ত্বকে ইনফকেশনের সমস্যা থাকলে ব্যবহার করবেন না।
অনেক সময় বাদামী দাগ ত্বকের ক্যান্সারের লক্ষণ প্রকাশ করে, তাই ডারমাটোলজিস্টের পরামর্শ নিন।

যে কোন স্বাস্থ্য বিষয়ক তথ্যের জানান দিতে আপনার ডক্টর রয়েছে আপনাদের পাশে।জীবনকে সুস্থ্য, সুন্দর ও সুখময় করার জন্য নিয়মিত ভিজিট করুন আপনার ডক্টর health সাইটে।মনে না থাকলে আপনি সাইট আপনার ব্রাউজারে সেভ করে রাখুন।ধন্যবাদ

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *