অত্যধিক লাল মাংস খাওয়ার কিছু মারাত্মক স্বাস্থ্য ঝুঁকি!

লাল মাংস

অত্যধিক লাল মাংস

অত্যধিক লাল মাংস খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। তাই জেনে রাখুন অত্যধিক লাল মাংস খাওয়ার মারাত্মক কিছু স্বাস্থ্য ঝুঁকি এবং নিয়ন্ত্রণ করুন মাংসের পরিমাণ।

 

১) অত্যধিক লাল মাংস রক্তনালী ব্লক ও শক্ত করে

লাল মাংসে পাওয়া যায় কারনিটাইন নামক একটি কম্পাউন্ড যা রক্তনালী ব্লক এবং অ্যাথেরোস্কেলেরোসিস হওয়ার জন্য দায়ী। লাল মাংসে পাওয়া কারনিটাইন ইন্টেস্টাইনের ব্যাকটেরিয়ার সাথে মিলে ট্রাইমেথিলামাইন-এন-অক্সাইড গঠন করে যা হৃদপিণ্ড ড্যামেজ করার জন্য দায়ী।

 

২) অত্যধিক লাল মাংস অকাল মৃত্যু ঘটায়

হাভার্ড স্কুল অফ পাবলিক হেলথের একটি গবেষণায় জানা যায় যারা অত্যধিক লাল মাংস খান তাদের অকাল মৃত্যু ঝুঁকি অন্যান্যদের তুলনায় অনেক বেশী। এর কারণ হিসেবে গবেষকগণ জানান অতিরিক্ত লাল মাংস খাওয়ার ফলে দেহে ক্ষতিকর টক্সিনের পরিমাণ অনেক বেশী বেড়ে যেতে থাকে যার কারণে ক্যান্সারের সম্ভাবনা দেখা দেয়। এছাড়াও কার্ডিওভ্যস্কুলার সমস্যা বৃদ্ধি পায় বলে ধীরে ধীরে আয়ু কমে আসতে থাকে।

 

৩) লাল মাংসে ই. কলি ব্যাকটেরিয়া:

এই ব্যাকটেরিয়াতে আক্রান্ত হতে পারেন খুব সহজেই যদি অত্যধিক লাল মাংস খাওয়ার অভ্যাস থেকে থাকে। এবং এই ব্যাকটেরিয়ার কারণে দেহে পানিশূন্যতার সৃষ্টি হয়, অ্যাবডোমিনাল ক্রাম্পের সমস্যা দেখা দেয় এবং সব চাইতে মারাত্মক সমস্যা কিডনি ফেইলিওর হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দেয়।

Loading...
পড়ুন  জলপাইয়ের উপকারিতা সম্বন্ধে জেনে নিন

জেনে নিন যে প্রধান ৬টি কারণে মানুষের কিডনিতে পাথর হয়

৪) অত্যধিক লাল মাংস ডায়াবেটিসের ঝুঁকি বাড়ায়:

জেএএমএ ইন্টারনাল মেডিসিনের একটি রিপোর্টে বলা হয়, ‘অতিরিক্ত এবং দীর্ঘদিন যাবত লাল মাংস খাওয়ার ফলে ডায়াবেটিসের ঝুঁকি বাড়তে থাকে। প্রতিদিন মাত্র ৩.৫ আউন্সের লাল মাংস ডায়াবেটিসের ঝুঁকি প্রায় ১৯% পর্যন্ত বাড়িয়ে তোলে।

 

৫) অত্যধিক লাল মাংসে ক্যান্সারের আশংকা:

অতিরিক্ত লাল মাংস খাওয়ার অভ্যাস কলোরেক্টাল ক্যান্সারের আশংকা বাড়ায়। অত্যধিক লাল মাংস খাওয়ার ফলে প্রতি ৩ জনের মধ্যে অন্তত ১ জনের ক্যান্সারে আক্রান্তের সম্ভাবনা দেখা দেয়। সুতরাং সর্তক হওয়া জরুরী।

 

৬) লাল মাংস অ্যালঝেইমার ও মস্তিষ্কের স্বাভাবিক কর্মক্ষমতা হ্রাস করে:

অত্যধিক লাল মাংস খাওয়ার ফলে মস্তিষ্কে আয়রনের মাত্রা বেড়ে যায় যার ফলে মেইলিন নামক ফ্যাটি টিস্যুর আবির্ভাব ঘটে যা নার্ভের ফাইবারের ওপর বাড়তি একটি লেয়ারের সৃষ্টি করে এবং নার্ভ নষ্ট করে দেয়। এতে মস্তিষ্কের স্বাভাবিক কর্মক্ষমতা হ্রাস পায় এবং অ্যালঝেইমার রগের সৃষ্টি হয়।

 

যে কোন স্বাস্থ্য বিষয়ক তথ্যের জানান দিতে আপনার ডক্টর রয়েছে আপনাদের পাশে।জীবনকে সুস্থ্য, সুন্দর ও সুখময় করার জন্য নিয়মিত ভিজিট করুন আপনার ডক্টর health সাইটে।মনে না থাকলে আপনি সাইট আপনার ব্রাউজারে সেভ করে রাখুন।ধন্যবাদ

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.