মাত্র ৭ দিনেই হয়ে উঠুন নজরকাড়া সুন্দরী

 সুন্দরী

৭ দিনেই হয়ে উঠুন নজরকাড়া সুন্দরী

চোখের নিচে কালচে দাগ পড়েছে, মুখের ত্বকও মনে হচ্ছে মলিন। চুলে মেহেদি দেওয়া দরকার। হাত-পায়েরও তো যত্ন নেওয়া চাই হতে চাই সুন্দরী । সবই করতে হবে, কিন্তু কবে? ছুটির দিনটি কি সুন্দরী হতে তবে রূপচর্চাতেই কাটবে? প্রতিদিনই রুটিন করে যদি একটু একটু যত্ন নেন, তাহলে মনে হবে না ছুটির দিনের বেশির ভাগ সময় চলে গেল এই রূপচর্চা করতে করতেই। সপ্তাহের সাত দিনের একটি ‘রূপ-রুটিন’ তৈরি করে নিজেকে সুন্দরী করবেন কীভাবে, সে পরামর্শই দিয়েছেন গীতি’স বিউটি পারলারের রূপবিশেষজ্ঞ গীতি বিল্লাহ। তিনি বলেন, ‘প্রতিদিনের একটু একটু সৌন্দর্যচর্চার কারণেই নিজেকে সতেজ মনে হবে সর্বদা।’
শুক্রবার
তাহলে, এ দিনটি থেকেই শুরু করুন। ছুটির দিন বলে বাড়তি একটু সময়ও পাবেন।নিজেকে সুন্দরী করে তুলতে চুল অন্যতম। চুলে মেহেদি বা অন্য কোনো প্যাক লাগিয়ে ভালোভাবে শ্যাম্পু করে নিন। কিংবা অয়েল ম্যাসাজও করতে পারেন। কেউ কেউ বাড়িতেই রং করেন চুলে, এ দিনটি ব্যবহার করতে পারেন সে কাজেও। গোসলের আগে হাত-পায়ের নখ কেটে নিন। পেডিকিওর বা ম্যানিকিওর করতে পারেন। যেকোনো একটি করুন এই দিনে যা সুন্দরী হয়ে উঠতে প্রথম স্তরের ধাপ অতিক্রম করতে ভূমিকা রাখবে।
শনিবার
এই দিনটিতেও অনেকের সাপ্তাহিক ছুটি থাকে। পারলারে যদি কাজ থাকে যেমন চুল ছাঁটানো, ফেসিয়াল কিংবা ভ্রু প্লাক—তবে এসবের জন্য বেছে নিন এ দিনটিকেই। শুক্রবারের তুলনায় এ দিনটিতে কিছুটা কম ভিড় থাকে পারলারে। ব্যক্তিগত কাজ বেশি থাকলে শুক্রবারের রূপ রুটিনের কিছু কাজ এই শনিবারেই করুন। যেমন পেডিকিওর শুক্রবারে করলে ম্যানিকিওরের কাজটি করে নিন এই দিনে।
রোববার
শুরু হয়ে গেল সেই প্রাত্যহিক দৌড়ঝাঁপ। সকালে যেহেতু অফিস কিংবা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে যাওয়ার ব্যস্ততা। তাই সকালটা বাদ দিয়ে বাসায় ফিরে সন্ধ্যায় টিভি দেখতে দেখতে কিংবা বাড়ির কোনো কাজ করতে করতে সেরে ফেলতে পারেন সুন্দরী হওয়ার নিত্য-রূপচর্চা। এদিন নজর দিন ছোটখাটো বিষয়ে। অনেকের ঠোঁটের রং কিছুটা কালো থাকে। কয়েক ফোঁটা পাতিলেবুর রস, মধু ও যেকোনো ম্যাসাজ ক্রিম মিশিয়ে ঠোঁটের জন্য প্যাক বানিয়ে নিন। দিনে দুবার ঠোঁটে ম্যাসাজ করুন। মাস খানেক নিয়মিত ম্যাসাজেই উপকার পাবেন। এভাবে ত্বকের অন্য যেকোনো ছোটখাট সমস্যার জন্য সময় রাখুন প্রতি রোববারে।

 

সোমবার
সোমবার দিনটিতে নজর দিতে পারেন কনুই, হাঁটু, পায়ের পাতার দিকে। এসব অংশের ত্বকে কালো ছোপ ছোপ দাগ পড়ে অনেকের।নিজেকে সুন্দরী করে তুলতে এগুলো অনত্রায় সৃণ্টি করে।এ জন্য দুই চা-চামচ লবণ, দুই চা-চামচ চিনি আর এক চা-চামচ খাবার সোডা নিয়ে তাতে পরিমাণমতো পাতিলেবুর রস ও শসার রস মিশিয়ে প্যাক বানান। এবার কালো হয়ে যাওয়া অংশে লাগিয়ে রাখুন ২০ মিনিট। এরপর ভালো করে পানি দিয়ে ধুয়ে সামান্য ক্রিম দিয়ে ম্যাসাজ করে নিন।দেখবেন নিজেকে অনেকটা সুন্দরী লাগছে।
মঙ্গলবার
চোখের নিচে কালো দাগ যাঁদের, মঙ্গলবার তাঁরা খোসাসহ আলু বেটে চোখের নিচে লাগাতে পারেন। ইচ্ছে করলে অন্যান্য রূপচর্চার পাশাপাশি করে নিতে পারেন এ কাজটিও। তাহলে সময়ও বেঁচে যাবে অনেকটা।
বুধবার
এ দিনটি রাখুন চুলের জন্য। খুশকির সমস্যায় যাঁরা ভুগছেন, তাঁদের চাই নিয়মিত যত্ন। এর জন্য সমপরিমাণ লেবুর রস আর খাঁটি নারকেল তেল একসঙ্গে গরম করে নিন। চুলের গোড়ায় গোড়ায় ভালোভাবে ম্যাসাজ করুন। এরপর হট টাওয়েল ট্রিটমেন্ট নিন। এ পদ্ধতিটি খুব সহজ। আগে থেকেই পানি গরম করে রাখুন। তেল ম্যাসাজ হয়ে গেলে ১০ মিনিট পর গরম পানিতে একটি পরিষ্কার তোয়ালে ডুবিয়ে দিন। তোয়ালের পানি কিছুটা চেপে ফেলে দিন। এরপর তোয়ালে দিয়ে মাথা পেঁচিয়ে নিন যেন গরম ভাপটুকু চুলে লাগে। এভাবে দু-তিনবার তোয়ালে দিয়ে ভাপ দিন। সব শেষে শ্যাম্পু করে ফেলুন। নিয়মিত এটি করলে খুশকি কমবে। মনে রাখবেন, খুশকিমুক্ত চুলের জন্য পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা জরুরি। বালিশের কভার সপ্তাহে একবার বদলে নিন। দিনে বার দুয়েক পরিষ্কার চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়ে নিন।এগুলো করলে সুন্দরী হওয়ার পথ কয়েক ধাপ এগিয়ে যাবে।
বৃহস্পতিবার
পরের দিনই ছুটি। তাই মনটা বেশ ফুরফুরে থাকে বোধ হয় এই বৃহস্পতিবারই। আবার অনেকের থাকে রাতের দাওয়াত। এদিন তেমন ব্যস্ততা না থাকলে পুরো সপ্তাহের ক্লান্তি কাটাতে কিছু প্যাক ব্যবহার করতে পারেন। রোদে যদি মুখের ত্বক পুড়ে যায়, তাহলে জাম পাতা ও আম পাতা বেটে এর মধ্যে হলুদের গুঁড়ো মিশিয়ে মুখে লাগাতে পারেন৷ এতে ত্বক উজ্জ্বল হবে এবং আপনাকে দেখাবে সুন্দরী ৷ আবার কালো ছাপ পড়লে চিনির রসের মধ্যে লবণ মিশিয়ে আলতো হাতে ত্বকে মালিশ করুন। এতে দাগ দূর হবে, ত্বকের মরা কোষও উঠে যাবে।আর ত্বকের মরা কোষ উঠে গেলে নিজেকে নতুন ত্বকে অনেক বেশি সুন্দরী লাগবে।
এভাবে রোজকার রূপ-রুটিন মেনে চললে দেখবেন—‘সময়ের অভাবে করা হচ্ছে না কিছুই’—এ আক্ষেপ আর করতেই হবে না।

 

যে কোন স্বাস্থ্য বিষয়ক তথ্যের জানান দিতে আপনার ডক্টর রয়েছে আপনাদের পাশে।জীবনকে সুস্থ্য, সুন্দর ও সুখময় করার জন্য নিয়মিত ভিজিট করুন আপনার ডক্টর health সাইটে।মনে না থাকলে আপনি সাইট আপনার ব্রাউজারে সেভ করে রাখুন।ধন্যবাদ
সূত্র: প্রথমআলো

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *