যে ৫টি প্যাক ব্যবহারে মুখের ত্বক টানটান রাখে

মুখের ত্বক
                        যে ৫টি প্যাক ব্যবহারে মুখের ত্বক টানটান রাখে

 

একটা প্রবাদ আছে সময় এবং নদীর স্রোতকে ধরে রাখা যায় না। সময়ের সাথে সাথে আমাদের বয়সও বৃদ্ধি পায়। আর এই বয়সের ছাপ সবচেয়ে আগে পরে মুখের উপর। একটা নির্দিষ্ট বয়সের পর মুখের ত্বকে ভাজ পড়তে শুরু করে, লোমকূপ গুলো বড় হয়ে স্পষ্ট হতে শুরু করে।এটা অনেক সময় বিষণ্ণতা, দুশ্চিন্তা ইত্যাদি নানা কারনে বয়সের আগেও পড়তে পারে। তাই মুখের ত্বক ও ত্বক সংলগ্ন নমনীয়তা এবং সৌন্দর্য ধরে রাখতে ত্বকের ইলাস্টিসিটি বাড়ানো খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আর মুখের ত্বক টান টান করার জন্য আমাদের কোন দামী প্রসাধনীর প্রয়োজন নেই। এর সমাধান রয়েছে আমাদের ঘরেই।
এখানে কয়েকটি ঘরোয়া ফেস মাস্ক দেয়া হলো যা মুখের ত্বক সংলগ্ন অঞ্চলের বলিরেখা কমিয়ে ত্বককে সতেজ করার পাশাপাশি ত্বকের পেশীকে করবে টান টান।

 

চালের গুঁড়ো এবং পেঁপের মাস্ক
এই মাস্কটি তৈরি করতে প্রয়োজন হবে পাকা পেঁপে, চালের গুঁড়ো এবং মধু। প্রথমে একটি পরিষ্কার পাত্রে পাকা পেঁপে খুব ভালো করে চটকে নিতে হবে। তাতে এক টেবিল চামচ চালের গুঁড়ো নিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এবার এর সাথে ৩ টেবিল চামচ মধু দিয়ে খুব ভালো করে মিশিয়ে এই মাস্কটি পুরো মুখের ত্বক সংলগ্ন অঞ্চলে লাগিয়ে রাখুন ২০ মিনিট। তারপর ভালো করে ধুয়ে ফেলুন। পেঁপেতে থাকা পাপাইন নামক উপাদানটি ত্বকের ভাঁজ ও চামড়া ঝুলে পরা প্রতিরোধ করে।
ব্লুবেরি ও মধুর মাস্ক
ত্বকের ধরন ভালো করতে এবং বলিরেখা কমাতে ব্লুবেরি খুবই উপকারী। এক মুঠো ব্লুবেরি নিয়ে ব্লেন্ড করে একটি মসৃন পেস্ট তৈরি করুন। তারপর আগে সামান্য মধু দিয়ে পুরো মুখে মেখে নিয়ে তার উপর ব্লুবেরি পেস্ট লাগিয়ে ৩০ মিনিট রেখে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এতে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকার ফলে নিয়মিত ব্যবহারে মুখের ত্বক হবে উজ্জ্বল এবং টান টান।

 

ডিম এবং অ্যালোভেরা ফেসপ্যাক
মুখের ত্বক বুড়িয়ে যাওয়া (কোষ মরে যাওয়া) প্রতিরোধে অ্যালোভেরা ও ডিম চমৎকার কাজ করে। ডিমের সাদা অংশ নিয়ে বিট করে এতে কিছুটা অ্যালোভেরার জেল মিশিয়ে আবার বিট করে মসৃণ আর ফ্লাপি একটা পেস্ট তৈরি করুন। তারপর একটি ব্রাশ দিয়ে মুখের ত্বক সংলগ্ন অঞ্চলের নিচের দিক থেকে উপরের দিকে লাগান। মুখের প্যাকটি শুকিয়ে গেলে তুলা নিয়ে পানিতে ভিজিয়ে নিয়ে ঠিক আগের মতই নিচের দিক থেকে উপরের দিকে দিয়ে প্যাকটি তুলে ফেলুন। এটি মুখের ত্বকের শুষ্কতা, বলিরেখা, ত্বকের ভাঁজ দূর করে ত্বকের উজ্জলতা ও ইলাস্টিসিটি ফিরিয়ে আনবে।

কীভাবে ঘরে বসে নিজেই তৈরী করবেন অ্যালোভেরা হেয়ার কন্ডিশনার
কলা এবং হুইপক্রিম
যেকোনো ধরনের ত্বকের জন্য কলা হচ্ছে চমৎকার একটি মাস্ক। তাই এই মাস্কটি তৈরি করার জন্য আপনার প্রয়োজন হবে কলা এবং হুইপ ক্রিম। কলা চটকে নিতে হুইপ ক্রিমের সাথে মিশিয়ে নিতে হবে। আপনি চাইলে এর সাথে একটি ভিটামিন ই ক্যাপসুল মিশিয়ে নিতে পারেন মুখের ত্বকের জন্য প্যাকটিকে শক্তিশালী করতে। পুরো মুখের ত্বকে এটা লাগিয়ে শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। তারপর ঠাণ্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। প্রাকৃতিক ভাবেই আপনার ত্বককে করবে পুনর্গঠিত এই ঘরোয়া মাস্কটি।
শশা এবং ডিমের সাদা অংশ
এই প্যাকটি তৈরি করতে আপনার প্রয়োজন হবে ঠাণ্ডা শশা ও ডিমের সাদা অংশ। প্রথমে কিছুটা শশা নিয়ে খোসা ফেলে দিয়ে ব্লেন্ড করতে হবে মসৃণ না হওয়া পর্যন্ত তারপর এর সাথে একটি ডিমের সাদা অংশ এবং ১ চা চামচ লেবুর রস মিশিয়ে মুখের ত্বক সংলগ্ন অঞ্চলের নিচের অংশ থেকে উপরের দিকে অর্থাৎ থুতনির নিচ থেকে গালের উপরের দিকে ম্যাসেজ করুন কিছুক্ষন এবং ২০ মিনিট রেখে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এটি আপনার মুখের ত্বকে ঝুলে যাওয়া ত্বককে দৃঢ় করতে সাহায্য করবে।
এই প্যাকগুলো ব্যবহার করার সাথে সাথে নিয়মিত ভাবে অলিভ অয়েল বা অন্য যেকোনো ভিটামিন ই সমৃদ্ধ তেল দিয়ে মুখে ম্যাসেজ করুন। তবে অবশ্যই সঠিক পদ্ধতিতে ম্যাসেজ করবেন তা নাহলে বিপরীত ফল হতে পারে। সঠিক ভাবে এই মাস্কগুলোর ব্যবহারের মাধ্যমেই আপনি পেতে পারেন আপনার কাঙ্ক্ষিত নিখুঁত ও টান টান ত্বক। নিয়মিত ব্যবহারে আপনিও হয়ে উঠতে পারেন বলিরেখা মুক্ত তারুণ্য উজ্জ্বল ত্বকের অধিকারী।

 

যে কোন স্বাস্থ্য বিষয়ক তথ্যের জানান দিতে আপনার ডক্টর রয়েছে আপনাদের পাশে।জীবনকে সুস্থ্য, সুন্দর ও সুখময় করার জন্য নিয়মিত ভিজিট করুন আপনার ডক্টর health সাইটে।মনে না থাকলে আপনি সাইট আপনার ব্রাউজারে সেভ করে রাখুন।ধন্যবাদ
লেখক:শওকত আরা সাঈদা(লোপা)
জনস্বাস্থ্য পুষ্টিবিদ

Loading...

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *