দাঁত একদম সাদা ঝকঝকে করতে চান ? তাহলে আজ থেকেই ব্যবহার করুন এই জিনিস…

দাঁত (Teeth) মেরুদণ্ডী প্রাণীদের মুখে অবস্থিত একটি অঙ্গ। এটি খাদ্য (food) চর্বণ ও কর্তনের (কাটা) কাজে ব্যবহৃত হয়। অধিকাংশ প্রাণীর দেহে দাঁতই(Teeth) হচ্ছে কঠিনতম অঙ্গ। একটা মানুষকে কখন সবথেকে বেশি সুন্দর লাগে জানেন? সে যখন হাসে। আর সেই হাসি যদি হয় সাদা ঝকঝকে, তাহলে তো আর কোন কথায় নেই। দাতে যদি কালো দাগ বা ছোপ থাকে তাহলে নিজেরই খারাপ লাগে। লোক সমাজে মন খুলে হাসতে লজ্জা লাগে। অন্যের কাছে নিজের সম্বন্ধে এই খারাপ ছাপ পড়ার আগে পরিস্কার করে ফেলুন আপনার দাঁতের (Teeth) সমস্ত দাগ।

Loading...

দাঁত প্রতিদিন ব্রাশ করলেও কারোর কারোর দাঁতে(Teeth) হলুদ ছোপ পড়ে যায়। আর তার সঙ্গে মুখে দুর্গন্ধ(The stench) ছড়ায়। মানুষের সঙ্গে কথা বলতে ইতস্তত বোধ হয়। এটি থেকে দূর হতে আপনাকে একটা ঘরোয়া পদ্ধতি ব্যবহার করতে হবে।

ব্রয়লার মুরগি খেলে কি হয় জানলে আজ থেকে আর ব্রয়লার মুরগি খাবেন না

এই পদ্ধতি ব্যবহারে আপনার দাঁত(Teeth) যেমন চকচক করবে তার সাথে সাথে মুখের দুর্গন্ধ (The stench) দূর হবে। আপনার মাড়ির কোন সমস্যা থাকলে তা থেকেও মুক্তি পাবেন। সেই পদ্ধতিটি কি তাহলে আসুন জেনে নেওয়া যাক।

পড়ুন  দাঁত আঁকাবাঁকা হলে কি করবেন?

এর জন্য দরকার কিছু সাধারন উপাদান। টুথপেস্ট, বেকিং সোডা, লবণ, লেবুর রস ও কফি। এবার প্রথমে একটি ছোট পাত্রে পরিমান মত টুথপেস্ট নিন। তারপর এর সাথে অর্ধেক চামচ বেকিং সোডা নিন, এর উপর অল্প লবণ দিন।
তারপর এরসাথে অর্ধেক চামচ পাতি লেবুর রস দিয়ে সব জিনিস ভালো করে মিশিয়ে নিন। ভালো ভাবে মিশ্রণটি বানিয়ে নিন। মিশ্রণটি বানানো হয়ে গেলে সেটিকে ব্রাশে করে নিয়ে দাঁত (Teeth) মাজুন। এটি একবার ব্যবহারে আপনি চোখে পড়ার মত পার্থক্য লক্ষ করতে পারবেন।

আপনার দাঁত(Teeth) হিরের মতো সাদা ও উজ্জ্বল হয়ে যাবে। তবে এটি করার সময় একটি কথা অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে যে মিশ্রণ যেন দু মিনিটের বেশি ব্যবহার না করা হয়। বেশিক্ষণ রাখলে মুখের ভিতরের চামড়া হেজে যেতে পারে। কারন এই মিশ্রনে রয়েছে বেকিং সোডা। যার ফলে অল্প ব্যবহারেই দাঁত চকচক করবে।

কিন্তু বেশি সময় ধরে ব্যবহার করলে দাঁতের(Teeth) ক্ষতি হতে পারে। তাই চেষ্টা করুন দু মিনিটের বেশি যেন মিশ্রণটি মুখের ভিতর না থাকে। এই মিশ্রণটি বেশ কিছুদিন ব্যবহার করলে আপনি উজ্জল ও চকচকে দাঁতের অধিকারী হয়ে যাবেন।

পড়ুন  কাঠের কয়লা ব্যাবহার করে দাঁত ঝঁকঝঁকে সাদা করুন

দাঁতের যত্ন

মুখের সুস্থতা অনেকাংশেই মুখ পরিষ্কার রাখা সংক্রান্ত নিয়মিত চর্চার উপর নির্ভর করে। মুখ পরিষ্কার রাখার ফলে দাঁতে(Teeth) র ক্ষয়রোগ, গিংগিভিটিজ, পিরিওডন্টাল রোগ, হ্যালিটোসিস বা মুখের দুর্গন্ধ (The stench)  এবং অন্যান্য দন্তজনিত সমস্যা থেকে ব্যক্তি রক্ষা পায়। পেশাদারী এবং ব্যক্তিগত – উভয় পর্যায়েই এ ধরনের সচেতনতা প্রয়োজন। সচেতনভাবে দাঁত ব্রাশ করার পাশাপাশি নিয়মিত দন্তচিকিৎসকের মাধ্যমে দাঁত (Teeth) পরিষ্কার করলে দাঁতের ক্যালকুলাস বা টারটার এবং দাঁতে অবস্থানরত ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়া দূরীভূত হয়। পেশাদারীভাবে দাঁতের পরিষ্কারের জন্য টুথ স্কেলিং করা হয়। এ পর্যায়ে বিভিন্ন ধরনের যন্ত্রপাতির প্রয়োগ দেখা যায়।

দাঁত পরিষ্কার রাখার উদ্দেশ্যই হচ্ছে দাঁতের আবরণে ও ফাঁকা জায়গায় অবস্থানরত ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়াকে দূরে রাখা।

স্বাস্থ্যপরিচর্যা বিষয়ক ব্যক্তিত্ব হিসেবে দন্তচিকিৎসকগণ পরামর্শ দেন যে,

প্রতিদিন খাদ্য (food) গ্রহণের পর সকালে কিংবা রাতে দু’বার নিয়মিতভাবে দাঁত ব্রাশ করতে হবে। এর ফলে দাঁতের (Teeth) গঠন সুন্দর এবং মজবুত হবে ও ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়ার হাত থেকে রক্ষা পাবে।[২] প্রতি তিন মাস অন্তর টুথব্রাশ পরিবর্তন করতে হবে। সম্ভব হলে এর আগেই টুথব্রাশ পরিবর্তন করা যেতে পারে।
প্রতি ছয় মাস পরপর দন্তচিকিৎসকের সুপারিশ গ্রহণ করতে হবে।
ফ্লুরাইডযুক্ত টুথপেস্ট বা মাউথওয়াশ ব্যবহার করা উচিত, যা দাঁতকে(Teeth) আরো সুরক্ষা করবে।

পড়ুন  কিডনি সমস্যা ও তার প্রতিকার জেনে ‍নিন
Loading...

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.