রক্তদানের ১০টি উপকারিতা

রক্তদান মহৎ দান। আপনার রক্তে বাঁচবে আরেকটা প্রাণ। রক্তদান শিবিরের প্রচার শুনে এই কথা নিশ্চই মুখস্থ হয়ে গিয়েছে এতদিনে। কিন্তু জানেন কি? শুধু গ্রহীতার জন্য নয়, রক্তদান দান দাতার জন্যও সমান উপকারী। বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গের স্বাস্থ্য সুরক্ষিত করতে রক্তদানের বিকল্প নেই। এমনকী দীর্ঘদিন ধরে বাড়তে থাকা রোগ নিয়ন্ত্রিত হয় রক্তদানে? জেনে নিন রক্তদানের ১০টা উপকারিতা।রক্তদানের উপকারিতা

রক্তদানের ১০টি উপকারিতা

১. হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা কমে ও লিভার সুস্থ থাকে
নিয়ম মেনে রক্তদান করলে হার্ট অ্যাটাকের সম্ভাবনা কমে। সুস্থ থাকে ‌যকৃতও। হৃদপিণ্ড ও ‌যকৃতের বহু রোগের কারণ রক্তে লোহার মাত্রাবৃদ্ধি। রক্তদান করলে রক্তে লোহার সাম্য বজায় থাকে।

২. ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা কমে
ক্যান্সার মানেই অনেকের কাছে আতঙ্ক। রক্তদান করলে ক্যান্সারে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমে। রক্তদান করলে রক্তে লোহার সাম্য বজায় থাকে ফলে ‌যকৃত, ফুসফুস ও অন্ত্রে ক্যান্সারের সম্ভাবনা কমে।

৩. নতুন রক্তকণিকা জন্মায়
রক্তদান করলে শরীর সঙ্গে সঙ্গে সেই ঘাটতি পূরণ করার কাজ শুরু করে দেয়। তাতে নতুন রক্তকণিকার জন্ম হয়। ‌যা স্বাস্থ্যের পক্ষে উপকারী।

পড়ুন  মাসে ১০ পাউন্ড ওজন কমাতে চাইলে রোজ খান এই খাবারটি

৪. হোমোক্রোমাটোসিসে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা কমে
শরীর অতিরিক্ত লোহা শোষণ করতে থাকলে হোমোক্রোমাটোসিস বলে একরকম রোগ হয়। নিয়মিত রক্তদান করলে এই সমস্যার হাত থেকে নিষ্কৃতি মেলে।

৫. ওজন কমে
‌অতিরিক্ত ওজনের সমস্যায় ভুগলে রক্তদান অত্যন্ত উপকারী। নিয়মিত রক্তদান ৬৫০ ক্যালোরি প‌র্যন্ত মেদ ঝরাতে সাহা‌য্য করে।

৬. আগাম বার্ধক্য থেকে রক্ষা মেলে
রক্তদান করলে উৎকণ্ঠা কমে। ফলে তাড়াতাড়ি বয়ষ্ক হয়ে ‌যাওয়ার সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া ‌যায়। বেশি বয়স প‌র্যন্ত শরীর তরতাজা থাকে। ত্বক থাকে ঝকঝকে।

৭. দ্রুত ক্ষত নিরাময় হয়
রক্তদানের সঙ্গে সঙ্গে শরীর ঘাটতি পূরণ শুরু করে দেয়। মাঝে মাঝে রক্তদান করলে শরীরের ‌যে কোনও ক্ষত বা ঘাটতি নিজে পূরণ করার জন্য প্রয়োজনীয় ‌যাবতীয় রসায়ন শরীরেই মজুত থাকে। ফলে সাধারণ কাটা – ছড়া থেকে গভীর কোনও ক্ষত, সবেতেই দ্রুত সাড়া দেয় শরীর।

৮. রক্তে কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে সাহা‌য্য করে
রক্তদান করলে শরীরে লোহার ভারসাম্য রক্ষিত হয় ফলে কোলেস্টেরলের মাত্রাও ঠিক থাকে।

৯. বিনামূল্যে শারীরিক পরীক্ষা
রক্তদানের আগে প্রত্যেক দাতাকে খুঁটিয়ে পরীক্ষা করেন চিকিৎসকরা। কোনও অজানা সমস্যা থাকলে তা তখনই ধরা পড়ে ‌যাবে ডাক্তারবাবুর কাছে।

পড়ুন  রক্ত দান করতে যে ব্যক্তি রক্ত দিবে, তার নুন্যতম বয়স কত হওয়া লাগে?

১০. দীর্ঘজীবন লাভ
সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, সমাজসেবামূলক কাজ করলে দীর্ঘজীবন লাভ করে মানুষ। নিয়মিত রক্তদাতাদের গড় আয়ু সাধারণ মানুষের থেকে কিছুটা বেশি।

Loading...

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About পূর্ণিমা তরফদার

আমি পূর্ণিমা তরফদার আপনার ডক্টরের নতুন রাইটার। আশাকরি আপনার ডক্টরের নিয়ামিত পাঠকরা আমাকে সাদরে গ্রহণ করবেন ও আমার পোষ্টগুলো পড়বেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.