ত্বক বুঝে ফেসিয়াল করুন

সুন্দর ত্বকের আশা কে না করে। তাই প্রত্যেকেই জানতে চান কীভাবে নিজেকে সুন্দর রাখা যায়। মানুষ সুন্দর হয়ে জন্মালেও যত্নবান না হলে সৌন্দর্য বেশি দিন টেকে না। আর তাই প্রয়োজন ত্বকের আলাদা যত্ন। সেই যত্নে ফেসিয়াল(Facial) একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। ত্বকের ধরন বুঝে ফেসিয়ালের বিস্তারিত জানাচ্ছে আপনার ডক্টর।ফেসিয়াল

ত্বক বুঝে ফেসিয়াল করুন

কথায় বলে, সুন্দর মুখের জয় সর্বত্র। তাই জানা উচিত কীভাবে নিজেকে সুন্দর রাখা যায়। মানুষ সুন্দর হয়ে জন্মালেও যত্নবান না হলে এই সৌন্দর্য বেশি দিন টেকে না। গায়ের রং ফর্সা হলেই তো তাকে প্রকৃত সুন্দর বলা যায় না। আসল সৌন্দর্য হলো, রং যাই হোক না কেন, যদি তাতে গ্ল্যামার বা লাবণ্যতা থাকে তাকেই প্রকৃত সুন্দর বলে। ঘোলাটে, নির্জীব, দাগযুক্ত ত্বক যেমন নিজের কাছে খারাপ লাগবে, তেমনি অন্যের কাছেও খারাপ লাগবে। আপনি যেমনই হোন না কেন, একটু চেষ্টা করলেই সবার কাছে অনেকখানি আকর্ষণীয় হয়ে উঠতে পারেন। এ জন্য শুধু দরকার ধৈর্য ও নিয়মমাফিক পরিচর্যা। ‘মেয়েদের ২৩-২৪ বছর বয়স থেকেই বিশেষভাবে ত্বকের যত্ন, খাওয়া-দাওয়া, ব্যায়াম ইত্যাদির দিকে নজর দেওয়া উচিত। তাহলে জীবনের শেষ দিন পর্যন্তও নিজের রূপ এবং সৌন্দর্য ধরে রাখা সম্ভব। সঠিকভাবে Facial করতে পারলে আপনার ত্বক হয়ে উঠবে লাবণ্যময় তেমনি আপনিও হয়ে উঠবেন সবার মাঝে এক অনন্য। ত্বককে সুন্দর ও সতেজ রাখার জন্য জানতে হবে আপনার মুখমণ্ডলের ত্বক কী ধরনের। যেমন : স্বাভাবিক ত্বক, তৈলাক্ত ত্বক, শুষ্ক ত্বক, মিশ্র ত্বক, সেনসিটিভ ত্বক।

এবার আমরা জানব ত্বকের ধরন :

স্বাভাবিক ত্বক : টিস্যু পেপারে সামান্য তৈলাক্ত ভাব দেখতে পাবেন।

শুষ্ক ত্বক : টিস্যু পেপারে তৈলাক্ত ভাব দেখা যাবে না।

তৈলাক্ত ত্বক : টিস্যু পেপারে বেশি পরিমাণে তৈলাক্ত ভাব দেখা যাবে।

মিশ্র ত্বক : টিস্যু পেপারে বিভিন্ন অংশে ভিন্ন ভিন্ন ছোপ ফুটে উঠবে।

আজকাল আমরা সবাই তাৎক্ষণিক রেজাল্ট পাওয়ার জন্য মরিয়া হয়ে থাকি। আসলে ধৈর্য না থাকলে কখনই নিজেকে সুন্দরভাবে উপস্থাপন করা যাবে না। কারণ এতে দেখা যায় যে, তাৎক্ষণিক ত্বক ফর্সা হয় ঠিকই কিন্তু ত্বকে সুদূরপ্রসারী ক্ষতি হয়ে যায়। এবার আমরা জানব কোন Facial কোন ধরনের ত্বকের জন্য প্রযোজ্য।

গোল্ড ফেসিয়াল : সব ধরনের ত্বকের জন্যই উপকারী, শুধু সেনসিটিভ বা স্পর্শকাতর ত্বকে এই ফেসিয়াল করা যাবে না। এটা সব বয়সী ত্বকের জন্য নেওয়া যাবে। বিশেষ করে বিয়ের কনের জন্য গোল্ড Facial খুব ভালো ফলাফল দেবে। কারণ এটা ত্বকে সুন্দর একটা সোনালি আভা এনে দেয়।

পার্ল ফেসিয়াল : পার্ল ফেসিয়াল সব ধরনের ত্বকের(Skin) জন্য প্রযোজ্য, তবে স্পর্শকাতর ত্বকে এই Facial করা যাবে না। পার্ল ফেসিয়াল করার পর ত্বকে একটা হোয়াইটিশ আভা আসে এবং অনেক দিন পর্যন্ত দীর্ঘস্থায়ী হয়।

অ্যালোভেরা ফেসিয়াল : যাদের ত্বকে বিভিন্ন প্রকার দাগ আছে তারা এই Facial নিতে পারেন। এতে করে ত্বকের সেলের উন্নতি হয়। শুষ্ক ত্বকের জন্য এই Facial খুবই উপকারী। তবে স্পর্শকাতর ত্বকের জন্য অ্যালোভেরা ফেসিয়াল করা যাবে না। রোদে পোড়া ভাব দূর করতেও এটি সাহায্য করে।

ফ্রুট ফেসিয়াল : এই ফেসিয়ালে যে মিক্সড ফ্রুট ক্রিম ব্যবহার করা হয় যা সব ধরনের ত্বকের জন্য ভালো যায়। বিশেষ করে ফ্রুট Facial ত্বকের গভীর থেকে ময়লা পরিষ্কার করে। ত্বক টান টান রাখে। একমাত্র ফ্রুট ফেসিয়ালই স্পর্শকাতর ত্বকের জন্য উপযোগী।

ট্রিটমেন্ট ফেসিয়াল : ট্রিটমেন্ট ফেসিয়াল হলো ত্বকের বিশেষ কোনো সমস্যা। যেমন- ব্রণ, রোদে পোড়া ইত্যাদি দূর করার জন্য বিশেষ Facial। ত্বকে কোনো ব্রণ থাকলে ট্রিটমেন্ট Facial করতে হবে। ব্রণের জন্য পিম্পল ফেসিয়াল, পিগমেন্টের জন্য পিগমেন্টেশন Facial, ভেজ পিল Facial আছে। অ্যালোভেরা(Alovers) আর থার্মোহার্ব Facial করালে কালো ছোপ দূর হবে। মেছতা দূর করার জন্য আছে ভেজ পিল Facial ও অ্যালোভেরা ফেসিয়াল, যা ত্বককে পরিষ্কার করবে। যাদের ত্বকে বিভিন্ন প্রকার দাগ আছে তারা এই ফেসিয়ালটি করে নিতে পারেন। শুষ্ক ত্বকের জন্য এই Facial খুবই উপকারী। তবে স্পর্শকাতর ত্বকের জন্য অ্যালোভেরা Facial করা যাবে না। রোদে পোড়া ভাব দূর করতেও এটি সাহায্য করে।

কীভাবে বুঝবেন আপনার ত্বকের প্রকৃতি : সকালবেলায় ঘুম ভাঙার পর মুখে পানি না দিয়ে একটা টিস্যু পেপার নিয়ে মুখের ওপর চেপে ধরুন। তারপর পেপারটি ভালো করে লক্ষ্য করুন। বুঝতে পারবেন আপনার ত্বকের প্রকৃতি।

এবারে দেখে নিন কিছু প্রয়োজনীয় টিপস :

* ফেসিয়াল নিয়মিত করা উচিত।

* ত্বকের ধরন বুঝে Facial না করলে মুখে অনেক সময় সমস্যা হতে পারে।

* স্টিম নিলে ত্বকের পোরগুলো খুলে যায়। তাই স্টিম শেষে বরফ দিয়ে আবার পোরগুলো বন্ধ করে নিতে হবে।

* ফেসিয়াল বিকালে করা ভালো। কারণ রোদের তাপ থাকে না। রাতে ঘুমানোর পর ত্বকও বিশ্রাম পায়।

সর্বোপরি একটা বিষয় বিশেষভাবে খেয়াল করতে হবে যে, আপনি যদি আপনার ত্বকের ধরন, বয়স, পারিপার্শ্বিকতা অনুযায়ী নিজের রূপচর্চার প্রতি যত্নশীল হোন।

Loading...

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About পূর্ণিমা তরফদার

আমি পূর্ণিমা তরফদার আপনার ডক্টরের নতুন রাইটার। আশাকরি আপনার ডক্টরের নিয়ামিত পাঠকরা আমাকে সাদরে গ্রহণ করবেন ও আমার পোষ্টগুলো পড়বেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *