পাতলা ভ্রু ঘন ও কালো করার সহজ উপায়

আজকাল মোটা ভ্রু-এর ফ্যাশনটাই চলছে। সকল ফ্যাশন মডেল ও নায়িকাদের দেখবেন চোখে পড়ার মত মোটা করে ভুরু আঁকছেন। তবে হ্যাঁ, যতই আঁকা হোক না কেন, প্রাকৃতিক ভাবেই মোটা ও সুন্দর শেপের ভুরু দেখতে খুবই ভালো লাগে। তাছাড়া ভুরু আকাও তখনই বেশী সুন্দর হয়, যখন আপনার প্রাকৃতিক ভুরু হয় ঘন ও কালো। পাতলা চুলের মত পাতলা ভ্রু অনেকেরই একটা বড় সমস্যা। কিছুতেই ভুরু গজায় না, ঘন ও কালো হওয়া অনেক পরের ব্যাপার। অনেকেরই আবার ভুরু বেশি চিকন করে তুলতে তুলতে এখন ভুরু এর শেপ নষ্ট হয়ে গিয়েছে। ভুরু গজায় ঠিকই, কিন্ত সব দিকে সমান ভাবে নয়। ফলে শেপ আর মোটা করা যায় না। কিন্ত আপনি জানেন কি, এই সমস্ত সমস্যা হতে আপনি মুক্তি পেতে পারেন মাত্র ২ সপ্তাহে? হ্যাঁ, এই সহজ কৌশলটি জানা থাকলে মাত্র ২ সপ্তাহেই আপনার ভ্রু হয়ে থবে ঘন, কালো ও সুন্দর।ভ্রু

পাতলা ভ্রু ঘন ও কালো করার সহজ উপায়

যা যা লাগবে
ভালো মানের ক্যাস্টর অয়েল (নামকরা ওষুধের দোকান থেকে ক্যাস্টর অয়েল কিনবেন। বিদেশীটা কিনতে পারলে সবচাইতে ভালো। কসমেটিক্সের দোকানের ক্যাস্টর অয়েল প্রায়ই নকল হয়।) কটন বাড বা তুলোর বল ভিটামিন ১ ক্যাপসুল ১ টি (না দিলেও হবে)।

যা করতে হবে
-১ চামচ ক্যাস্টর অয়েলের সাথে ১টি ভিটামিন ই ক্যাপসুলের নির্যাস মিশিয়ে নিন।

-রাতে শোবার আগে মুখটা ভালো করে ধুয়ে নিন। যদি ময়েশ্চারাইজার লাগাবার প্রয়োজন হয়, তাহলে লাগান। তবে ভ্রু ও এর আসেপাশের এলাকাতে লাগাবে না। ভুরু ও এর আশেপাশের এলাকা একদম পরিষ্কার হতে হবে।

-কটন বাড বা তুলোর বলে ক্যাস্টর অয়েল ও ভিটামিন ই এর মিশ্রণ লাগিয়ে নিন। এবার এটা ভ্রুতে লাগান।

-হালকা হাতে আলতো করে ম্যাসাজ করুন।

-তারপর এভাবেই রেখে দিন সারা রাত। সকালে ধুয়ে ফেলুন।

-প্রত্যেকদিন নিয়ম করে ব্যবহার করুন। ২ থেকে ৩ সপ্তাহের মাঝেই ভুরু তে লক্ষণীয় পরিবর্তন দেখতে পাবেন। এক টানা ব্যবহার করুন যতদিন পর্যন্ত না ভ্রু-এর কাঙ্ক্ষিত শেপ ও ঘনত্ব পাচ্ছেন।

সতর্কতাঃ যাদের ক্যাস্টর অয়েলে ত্বকে সমস্যা হয় বা ইরিটেশন দেখা দেয় তারা ব্যবহার করবেন না।

Loading...

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About পূর্ণিমা তরফদার

আমি পূর্ণিমা তরফদার আপনার ডক্টরের নতুন রাইটার। আশাকরি আপনার ডক্টরের নিয়ামিত পাঠকরা আমাকে সাদরে গ্রহণ করবেন ও আমার পোষ্টগুলো পড়বেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *