সুখী হওয়ার উপায়

সুখী হওয়ার কি সত্যিই কোনো উপায় আছে? নেদারল্যান্ডসের ইরেসমাস বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষণাপত্র বলছে, উপায় আছে। কিন্তু এ পথ চিরচেনা নয়, বরং একটু অচেনা, একটু অদ্ভুত।
বিবিসি বলছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমেরিটাস অধ্যাপক ও ওয়ার্ল্ড হ্যাপিনেস ডেটাবেজের (বিশ্ব সুখ উপাত্ত-ভান্ডার) পরিচালক রুট ভিনহোভারের মতে, এত দিন সুখী মানুষ খুঁজতে সংগৃহীত উপাত্ত থেকে যে ফল নির্বাচন করা হয়েছিল, নতুন গবেষণা অনেক ক্ষেত্রে তার বিপরীত। অধ্যাপক রুট দীর্ঘদিন থেকে মানুষের সুখী হওয়ার সামাজিক শর্ত নিয়ে কাজ করছেন। তিনি বলেন, সুখী হওয়ার জন্য এত দিন নির্দিষ্ট লক্ষ্য থাকার যে আবশ্যিক শর্তের কথা বলা হয়েছিল, তা নতুন গবেষণার ফলের সঙ্গে কিছু মাত্রায় সাংঘর্ষিক।
অধ্যাপক রুট বলেন, ‘সাধারণত লোকে ভাবে যে সুখী হওয়ার জন্য এক ধরনের লক্ষ্য থাকা প্রয়োজন। তবে বাস্তবতা বলছে ভিন্ন কথা। গবেষণায় দেখা গেছে, অসুখী মানুষেরা তাঁদের লক্ষ্য নিয়ে বেশি সচেতন। কারণ জীবনে আরও ভালো কিছু পেতে তাঁরা উদগ্রীব।’

সুখী হওয়ার উপায় । how to be happy with yourself ভিডিওসহ দেখতে নিচে ক্লিক করুন

পড়ুন  ফেসবুকে জ্যাকুলিন মিথিলা লাইভ চ্যাটে কি করল দেখুন

তবে বিস্তর উপাত্ত বিশ্লেষণ করে সবচেয়ে কৌতূহলোদ্দীপক যে বিষয়টি পাওয়া গেছে তা হলো, জীবনের অর্থ খুঁজে পাওয়া ও সুখী হওয়ার মধ্যে কোনো সম্পর্ক নেই। অধ্যাপক রুট বলেন, ‘অবাক করার বিষয়, আমি এ দুটির মধ্যে কোনো সম্পর্ক খুঁজে পাইনি। এ গবেষণা থেকে জানা গেছে, কর্মময় জীবনই সুখী হওয়ার সবচেয়ে মোক্ষম উপায়।

Loading...

রুট বলেন, জীবনে সুখী হতে, কিছু পেতে আপনাকে কর্মময় হতেই হবে। কেন, কেন আমরা এখানে—এ ধরনের প্রশ্নের উত্তর খোঁজার চেয়ে কর্মময় হওয়াই সুখী হওয়ার মূল উপাদান।

তবে ওয়ার্ল্ড হ্যাপিনেস ডেটাবেজ সবচেয়ে বড় যে সুখবরটি এনেছে তা হলো, সুখী হওয়ার জন্য বাহ্যিক শর্ত (যেমন: অর্থ) জরুরি নয়। অধ্যাপক রুট বলেন, ‘গবেষণায় দেখা গেছে, আমরা নিজেদের সুখী করতে পারি। কারণ সুখ সময়ের সঙ্গে সঙ্গে বদলায়। এ জন্য ভালো পারিপার্শ্বিক অবস্থা নয়, ভালো জীবন দরকার। বয়স্ক মানুষেরা অপেক্ষাকৃত জ্ঞানী হন, তাই তারা বেশি সুখী।’

ওয়ার্ল্ড হ্যাপিনেস ডেটাবেজ থেকে পাওয়া তথ্য বলছে, নিচের বিষয়গুলো ঘটলে আপনি সুখী:

* কারও সঙ্গে দীর্ঘ সম্পর্ক ধরে রাখলে

পড়ুন  ফেসবুকে জ্যাকুলিন মিথিলা লাইভ চ্যাটে কি করল দেখুন ভিডিওতে

* রাজনীতিতে সক্রিয় থাকলে

* কাজে ব্যস্ত থাকলে

* অবসরে খেতে-ঘুরতে গেলে

* ঘনিষ্ঠ বন্ধুত্ব (অবশ্য বন্ধুর সংখ্যা বাড়লে বন্ধুত্ব বাড়ে না) লালন করলে

এসব তথ্য থেকে সুখী হওয়ার আরও বিস্ময়কর কিছু তথ্য মিলেছে—

* যাঁরা একেবারে মদ পান করেন না, তাঁদের চেয়ে যারা অল্প পরিমাণ মদ পান করেন, তাঁরা বেশি সুখী

* যে সমাজে নারীরা বেশি অধিকার ভোগ করে, সে সমাজে পুরুষেরা অপেক্ষাকৃত বেশি সুখী

* নিজেকে সুন্দর ভাবা পুরুষেরা নিজেকে সুন্দর ভাবা নারীদের চেয়ে বেশি সুখী

* যদি আপনি মনে করেন, আপনি দেখতে যেমন তার চেয়ে বেশি সুন্দর, তবে আপনি সুখী ।

* বাচ্চাকাচ্চা হলে সুখের পরিমাণ কমে যায়। কিন্তু তারা যখন বড় হয়ে বাড়ি ছাড়ে তখন আপনার সুখের পরিমাণ বেড়ে যায়।

অধ্যাপক রুট বলেন, তাঁরা প্রায় ২০ হাজার মানুষের ব্যক্তিগত তথ্য বিশ্লেষণ করে এ গবেষণাপত্র তৈরি করেছেন।

Loading...

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.