ডায়াবেটিস থেকে মুক্তির সহজ উপায় জেনে নিন

ডায়াবেটিস সমগ্র বিশ্বে বর্তমানে একটি মারাত্মক সমস্যা হিসেবে দেখা দিয়েছে। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মত বাংলাদেশ ও সমগ্র ভারত জুড়ে এ সমস্যা বর্তমানে ক্রমাগত বেড়েই চলছে। নারী ও পুরুষদের অনেকেই অসতর্ক অবস্থায় ডায়াবেটিস সমস্যাকে বয়ে বেড়াচ্ছেন। আপনি হয়তো জানেন না, আপনার জীবনের জন্য হুমকি হয়ে ওঠা আজকের এই রোগটি আপনার ভবিষ্যতের জন্যও সমানভাবে হুমকি। সেটি কিভাবে?ডায়াবেটিস

ডায়াবেটিস থেকে মুক্তির সহজ উপায় জেনে নিন

কিন্তু দুঃখের বিষয যে, আধুনিক জীবনেরে গাঁ বেয়ে ওঠা সমস্যাটি আপনার শিশুর ওপরও ক্ষতিকর প্রভাব ফেলতে পারে। সম্প্রতি প্রকাশিত একটি পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, ভারতের অধিকাংশ লোক অন্যান্য দেশের লোকদের তুলনায় দুই ধরনের ডায়াবেটিস রোগে ভুগছেন। প্রতিদিন ওষুধ খাওয়া কেউ পছন্দ করে না। ইনসুলিন ও ডায়ালাইসিস এক্ষেত্রে খুবই বিরক্তিকর এক অভিজ্ঞতা ছাড়া আর কি!

আপনি হয়তো কোনো ভুল ধারণার মধ্যে আছেন, তাই হয়তো মিষ্টি খাবার এড়িয়ে চলছেন। মিষ্টি ডায়াবেটিসের একমাত্র কারণ নয়। দুশ্চিন্তা ও জিন বা বংশগত প্রভাবও ডায়াবেটিস হবার জন্য দায়ী। কিন্তু বংশগত কারণে আপনার যদি Diabetes হয়, সেক্ষেত্রে অবশ্য তেমন কিছু আপনার করার থাকবে না।

ডায়াবেটিস থেকে রক্ষার জন্য প্রতিদিন ওষুধ খেতে হবে না আপনাকে। শুধু সামান্য কিছু পরিবর্তন আনতে হবে আপনার জীবনে। Diabetes প্রতিরোধের জন্য আপনি আপনার বাসায় এই নিয়মগুলো মেনে চলুন, আশা করা যায়, অতি দ্রুতই আপনি দুঃশ্চিন্তামুক্ত, সুস্থ ও স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যেতে পারবেন। এসব ওষুধ গ্রহণের চেয়ে ফল বা শাকসবজি খাওয়া কি ভালো নয়!

খালি পেটে ফলের রস পান করা, কিংবা ফল খাওয়া ডায়াবেটিস রোধে খুবই কার্যকর। তবে দেখা গেছে, স্বাদে তিতা ফলের রস খেলে ভালো ফলাফল পাওয়া যায়। এক্ষেত্রে করোল্লা বা উচ্ছা জাতীয় খাবার সাস্থ্যের জন্য বেশ উপকারী। এগুলো জুস বা ভাঁজি করে খাওয়া যেতে পারে। এজন্য অবশ্য আপনার নিয়মিত খাবারের তালিকা পরিবর্তনের দরকার হবেনা।

# প্রতিরাতে শোবার আগে পানিতে কয়েকটি মেথির বীজ ভিজিয়ে রাখুন। সকালে ব্রাশ করার পর খালি পেটে ওই বীজগুলো আগে খেয়ে ফেলুন।

# জামরুল ফল ডায়াবেটিস সারানোর জন্য অত্যন্ত উপকারি ফল। এর কিছু বীজ ধুয়ে শুকিয়ে, তারপর গুড়া করে পানির সঙ্গে মিশিয়ে খেলে উপকার পাওয়া যাবে।

# পেয়ারা এমন একটি ফল, যেটি প্রায় সারা বছরই পাওয়া যায়। সাম্প্রতিক একটি গবেষণায় এটি স্পষ্ট যে, ভিটামিন ‘সি’ সমৃদ্ধ এই ফলটির খোসা রক্তে চিনির মাত্রা বাড়িয়ে দেয়, তাই আপনার জন্য এর খোসা না খাওয়াই ভালো।

# আমলা জাতীয় ফল রক্তে চিনির মাত্রা কমিয়ে থাকে।

# আপনার চা বা কফিতে চিনির পরিবর্তে মধু দিন।

গবেষণায় প্রমাণিত, চিনি ছাড়া ব্ল্যাক কফি পান করলে দু’ধরনের ডায়াবেটিসের ঝুঁকি থাকে না। এছাড়া গ্রিন চাও শরীরের রক্তে চিনি ও ইনসুলিনের মাত্রা কমাতে বিশেষ সাহায্য করে।

Loading...

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About পূর্ণিমা তরফদার

আমি পূর্ণিমা তরফদার আপনার ডক্টরের নতুন রাইটার। আশাকরি আপনার ডক্টরের নিয়ামিত পাঠকরা আমাকে সাদরে গ্রহণ করবেন ও আমার পোষ্টগুলো পড়বেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *