ঘুমের সমস্যা কমানোর সহজ উপায়

আজ ১৮ মার্চ, বিশ্ব নিদ্রা দিবস। অনেকেই ঘুমের সমস্যায় ভুগে থাকেন। বিভিন্ন কারণে এই সমস্যা হয়। ঘুম নিয়ে সমস্যার বিষয়ে মানুষকে সচেতন করতে এবং ঘুমের সমস্যা সমাধানের লক্ষে ‘সুখনিদ্রা সহজলভ্য’ প্রতিপাদ্য নিয়ে পালিত হচ্ছে দিবসটি। দীর্ঘমেয়াদি ও স্বল্পমেয়াদি- দুই ধরনের ঘুমের সমস্যাই হতে পারে। ঘুমের সমস্যা হলে অবসন্নতা, কাজের গতি কমে যাওয়া, মাথাব্যথা, অস্বস্তি, বিষণ্ণতা ইত্যাদি সমস্যা হয়। শরীরকে ঠিক রাখতে তাই ঘুম জরুরি। তবে ঘুমের আগে কিছু বিষয় মেনে চললে সমস্যা অনেকটাই কমানো সম্ভব। স্বাস্থ্যবিষয়ক ওয়েবসাইট আপনার ডক্টর জানিয়েছে ঘুমের সমস্যা কমানোর কিছু ঘরোয়া উপায়ের কথা।

ঘুমের সমস্যা কমানোর সহজ উপায়

জাফরান

জাফরানের মধ্যে রয়েছে এক ধরনের প্রশান্তিদায়ক উপাদান। এটি ঘুমের সমস্যা কমাতে কাজ করে।

গরম দুধের মধ্যে কয়েক সুতা জাফরান মেশান।
রাতে ঘুমের আগে এটি খান।

ক্যামোমিলের চা

ঘুমের সমস্যা দূর করার জন্য ক্যামোমিলের চা বেশ প্রচলিত ঘরোয়া উপাদান। এর মধ্যে থাকা অ্যাপিজেনিনের কারণে এটি সম্ভব হয়। ঘুমের সমস্যা কমাতে সামান্য মধু ও দারুচিনি গুঁড়ো মিশিয়ে ক্যামোমিলের চা পান করতে পারেন।

গরম দুধ

এক গ্লাস গরম দুধ শরীর ও মনকে শিথিল করতে সাহায্য করে। কলা কেটে গরম দুধের মধ্যে ব্লেন্ড করে খেতে পারেন। এ ছাড়া চা চামচের এক চতুর্থাংশ পরিমাণ দারুচিনি গুঁড়ো গরম দুধে মেশান। ঘুমের আধা ঘণ্টা আগে এটি খান। ঘুম ভালো হবে।

গরম পানিতে গোসল

ঘুমের দুই ঘণ্টা আগে হালকা গরম পানি দিয়ে গোসল করতে পারেন। এটি শরীরকে শিথিল করবে। গোসলের আগে এসেনশিয়াল অয়েল যেমন : ক্যামোমিল, ল্যাভেন্ডার, রোজমেরি ইত্যাদি শরীরে মেখে নিতে পারেন। এতে বেশি উপকার পাওয়া যাবে।

একটু দেরিতে বিছানায় যাবেন

যাঁদের রাতে এক বা দু’বার ওঠার অভ্যাস আছে, তাঁরা একটু দেরিতে বিছানায় যাবেন৷ এর ফলে হয়ত রাতে আর না-ও উঠতে হতে পারে।

ভালো ঘুমের জন্য যা করবেন

প্রতিদিন একই সময়ে বিছানায় যেতে হবে এবং সন্ধ্যায় খানিকটা হাঁটতে পারলে তা ঘুম আসতে সাহায্য করবে৷ তাছাড়া বিছানায় যাওয়ার আগে এক গ্লাস গরম দুধে এক চামচ মধু মিশিয়ে পান করলেই দেখবেন ঘুম আসতে আর দেরি হবে না।

ব্যায়াম

আমরা সবাই কম-বেশি জানি যে দিনে কোনোরকম কাজ-কর্ম বা শরীরের কোনো ব্যায়াম না করা হলে, রাতে মানুষ ক্লান্ত হয় না৷ এমনটা হওয়া খুবই স্বাভাবিক৷ তাই দিনেরবেলায় নিয়মিত ব্যায়াম করার চেষ্টা করতে হবে, কারণ ব্যায়াম উত্তেজনা এবং রিলাক্সেশনের মধ্যে সমতা আনে।

দুপুরে ঘুম নয়

দুপুরে না ঘুমালে স্বভাবিকভাবেই মানুষ রাতে একটু বেশি ক্লান্ত বোধ করে৷ তাই যাঁদের রাতে ঘুমাতে সমস্যা হয়, তাঁরা দিনেরবেলায় কখনো ঘুমাবেন না৷ বরং রাতে তাড়াতাড়ি বিছানায় যান, দেখবেন ঘুমও হবে।

রাতের খাবার

ভালো ঘুমের জন্য রাতের খাবার হতে হবে অবশ্যই হালকা৷ তাছাড়া রাতে ক্যাফিনযুক্ত পানীয় বা অ্যালকোহলকে দূরে রাখতে হবে।

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About পূর্ণিমা তরফদার

আমি পূর্ণিমা তরফদার আপনার ডক্টরের নতুন রাইটার। আশাকরি আপনার ডক্টরের নিয়ামিত পাঠকরা আমাকে সাদরে গ্রহণ করবেন ও আমার পোষ্টগুলো পড়বেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *