গরমে ত্বক সুন্দর রাখার উপায়

ক্যালেন্ডারে গরমকাল শেষ হয়ে গেলেও বাস্তবে গরম যেন কমছেই না। আর এই গরমে ত্বকে নানা ধরণের সমস্যা দেখা দেয়, যেমন- ব্রণের সমস্যা, ত্বকে জ্বালা ভাব, রোদে পোড়া, আরো অনেক কিছু। তাই ত্বকের বিশেষ যত্ন নেওয়া প্রয়োজন। গরমে ত্বক সুস্থ রাখতে ও ত্বকের উজ্বলতা ধরে রাখতে কিছু টিপস মেনে চলা উচিত।ত্বক

গরমে ত্বক সুন্দর রাখার উপায়

জেনে নিন টিপসগুলো-

১। ত্বকের তৈলাক্ত ভাব দূর করতে সমপরিমাণ শশার রস ও লেবুর রস একসাথে ভালোভাবে মিশিয়ে নিন। তুলোর সাহায্যে পুরো মুখে আলতো করে লাগিয়ে নিন। মিশ্রণটি মুখে লাগানোর সাথে সাথে যদি জ্বালা অনুভব করেন, তবে দ্রুত ধুয়ে ফেলুন। লেবু ত্বককে অতিরিক্ত শুষ্ক করে ফেলতে পারে, সেক্ষেত্রে ত্বকের উপযোগী একটি ময়েশ্চারাইজার মুখে লাগিয়ে নিন। লেবুর রসে থাকে সাইট্রিক এসিড, যা ত্বকের তেল সম্পূর্ণরূপে দূর করে এবং ত্বককে শুষ্ক ও উজ্জ্বল করে। তবে এ মিশ্রণ বেশিক্ষণ লাগিয়ে রাখবেন না। এতে ত্বক পুড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

২। ত্বককে ময়েশ্চারাইজ করার জন্যে খুবই উপকারী একটি উপাদান হল ডিম। এটি একই সঙ্গে স্কিন ফার্মিং করতেও সাহায্য করে। একটা ডিমের সাদা অংশ ভালোভাবে ফেটিয়ে নিয়ে মুখে ও গলায় লাগিয়ে ১৫ মিনিট রেখে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৩। মধু ত্বককে ময়েশ্চারাইজ করার পাশাপাশি নানা রকম স্কিন ইনফেকশন এবং ব্রণ কমাতে সাহায্য করে । সারা মুখে ও গলায় মধু লাগিয়ে ৫ থেকে ১০ মিনিট রেখে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ফেসপ্যাকেও মধু ব্যবহার করতে পারেন। চন্দনের গুঁড়োর সঙ্গে লেবুররস ও মধু মিশিয়ে সারা মুখে ও গলায় লাগিয়ে রাখুন। শুকিয়ে গেলে ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৪। স্ট্রবেরিতে ভিটামিন সি, অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং এক্সফোলিয়েন্টস্ আছে, যা ত্বকের উজ্বলতা ধরে রাখতে সাহায্য করে। শুধু স্ট্রবেরি পেস্ট করে মুখে লাগাতে পারেন। আবার টক দই ও মধুর সঙ্গে মিশিয়েও লাগাতে পারেন।

৫। ক্লান্তিহীন ও উজ্জ্বল ত্বক পাওয়ার জন্যে কলা খুবই উপকারী। কলার সঙ্গে মধু মিশিয়ে সারা মুখে ও গলায় ১০ মিনিট লাগিয়ে রাখুন। এরপর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

৬। ত্বক উজ্জ্বল এবং ফর্সা করার জন্য লেবুর রস ও জৈব ঘাস এক সাথে মিশ্রণ করে মুখে এবং ঘাড়ে ১০ মিনিট লাগিয়ে রাখুন এবং পরে ধুয়ে ফেলুন। এটা প্রয়োগে মুখের ব্রণ এবং কালো দাগ দূর হবে এবং ত্বক পরিষ্কার হবে।

৭। প্রতিদিন কমপক্ষে ২ লিটার বিশুদ্ধ পানি পান করার অভ্যস করুন। পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পানে ত্বকের শুষ্ক ভাব দূর হয় এবং ত্বক কোমল হয়ে উঠে।

৮। মুখে ব্রণ থাকলে চা গাছের তেল তুলার সাহায্যে ব্রণের উপরে কয়েক ঘণ্টা পরপর প্রয়োগ করতে থাকুন। প্রতি রাতে ঘুমাতে যাওয়ার পূর্বে ভিটামিন ই তেল আক্রান্ত স্থানে ১ ঘণ্টার জন্য প্রয়োগ করুন। তার পর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে নিন।

৯। অতি দ্রুত ত্বকের গোলাপি আভা ফিরিয়ে আনতে অলিভ, কোকোনাট এবং জুজুবা তেল কয়েক ফোঁটা গালে এবং ভ্রু এর হাড়ে ধীরে ধীরে প্রয়োগ করুন।

১০। ভাল ঘুম ত্বকের জন্য উপকারী। তাই ত্বকের যত্নে অবশ্যই সিল্ক এর বালিশ ব্যবহার করুন। এতে ঘুম ভালো হবে এবং ত্বক প্রাণবন্ত হয়ে উঠবে।

১১। ত্বককে মসৃণ ও কোমল রাখতে সামুদ্রিক কড মাছের যকৃত দ্বারা তৈরি তেল বেশ কার্যকরী একটি উপাদান। এক্ষেত্রে লেবুর রস এবং কড লিভার তেল এর মিশ্রণ তৈরি করে নিয়ে শরীরে প্রয়োগ করতে পারেন।

১২। সবুজ শাকসবজি ত্বকের জন্য একটি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ প্রাকৃতিক উপাদান। এটা রান্না করে অথবা রস বানিয়ে খেতে পারেন। যদি রস বানিয়ে খেতে চান তাহলে প্রতিদিন এক কাপ করে নিয়মিত খাবেন।

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About পূর্ণিমা তরফদার

আমি পূর্ণিমা তরফদার আপনার ডক্টরের নতুন রাইটার। আশাকরি আপনার ডক্টরের নিয়ামিত পাঠকরা আমাকে সাদরে গ্রহণ করবেন ও আমার পোষ্টগুলো পড়বেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *