ত্বকের যত্নে নারকেল তেল

যারা আমাদের নিয়মিত পাঠক তারা তো ইতোমধ্যেই জেনে গিয়েছেন চুলের যত্নে নারকেল তেল এর বিকল্প আর কিছুই হতে পারে না। তবে চুলের পাশাপাশি যে ত্বকের যত্নেও এই তেলের গুণ সম্পর্কে আমরা কজন জানি। স্বাস্থ্য থেকে শুরু করে রূপচর্চায় (চুল থেকে ত্বকের যত্নে ) এর ব্যবহার সেই প্রাচীনকাল থেকে হয়ে আসছে। আজকের লেখনিতে ত্বকের যত্নে নারকেল তেল (Coconut oil) এর উপকারিতা সম্পর্কে জানব। তাহলে চলুন শুরু করা যাক।নারকেল তেল

ত্বকের যত্নে নারকেল তেল

প্রথমেই মাথায় যে ব্যাপারটি আসে তা হল, ত্বকে তেল ব্যবহারের করলে তো ত্বক তৈলাক্ত হয়ে যাবে এবং পোরগুলো বন্ধ হয়ে ব্রণ বেড়ে যাওয়ার কথা ! কিন্তু নারকেল তেল এর ব্যবহারের ফলে ব্রণ উল্টো কমে যায়! কীভাবে ? যেহেতু এই নারকেল তেল এর অনু খুব ক্ষুদ্র সেহেতু এটি সহজেই রোমকূপের গভীরে প্রবেশ করে ভেতরের ময়লা বের করে আনে এবং এতে বিদ্যমান ভিটামিন ই ত্বককে হাইড্রেড এবং সেবাম উৎপাদনকে নিয়ন্ত্রণে রাখে।

হাতের কাছে থাকা এই মিরাকেল প্রোডাক্টটির থেকে বেস্ট আউটপুট কিন্তু নির্ভর করে ডায়েট, স্কিন কেয়ার সর্বোপরি আপনার লাইফ স্টাইলের উপর । অনেকের ক্ষেত্রেই যখন প্রথম প্রথম এই নারকেল তেল ত্বকে ইউজ করা শুরু করবেন তখন স্কিনে ‘ব্রণ’(Acne) উঠতে দেখে ভয় পেয়ে ব্যবহার করা বন্ধ করবেন না। ততক্ষণে নারকেল তেল কিন্তু কাজ করা শুরু করে দিয়েছে। সে আপনার ত্বকের গভীরে প্রবেশ করে ভেতর থেকে ইম্পিউরিটিজ-গুলো বের করে দিচ্ছে। অল্প কিছুদিন সময় দিন ধীরে ধীরে ব্রণ কমতে শুরু করবে এবং পরবর্তীতে ব্রণ উঠা বন্ধ হবে।

আগেই বলেছিলাম যে নারকেল তেলের অনু এতোটাই ক্ষুদ্র যে তা খুব সহজেই রোমকূপের ভিতরে প্রবেশ করতে পারে। কাজেই স্কিনে দেয়ার কিছুক্ষণের মধ্যে শুষে নেয় এবং ত্বকে স্মুদ ফিলিং এনে দেয়। প্রতিদিন রাতে ঘুমতে যাওয়ার আগে মুখ পানি দিয়ে ভালো করে ধুয়ে টাওয়েল দিয়ে মুছে নিন। এবার হাতে সামান্য (কয়েক ফোঁটা) নারকেল তেল নিয়ে হালকা ঘষে স্কিনে লাগিয়ে নিন রাতের ময়েশ্চারাইজার হিসেবে। মনে রাখবেন, খুব কম পরিমাণে নিয়ে সারা শরীরে অ্যাপ্লাই করতে হবে।
হাতের কাছে এক বোতল নারকেল তেল থাকলে তাক ভর্তি কসমেটিকের প্রয়োজন পড়ে না। এই তেলের ক্লিঞ্জিং ক্ষমতা সম্পর্কে তো একটু আগেই জেনেছেন। এটা যে ভারি মেকাপ তুলতেও দারুণ কার্যকরী তা কি জানা আছে? সুপার ম্যাট লিপস্টিক থেকে শুরু করে ওয়াটার প্রুফ মাশকারা , কাজল , আইলানার তুলতে কয়েক বোতল মেকাপ রিমুভার শেষ! খরচের খাতা থেকে মেকাপ রিমুভার বাদ দিয়ে হাতে তুলে নিন নারকেল তেল এর বোতল। কটন বল-এ তেল নিয়ে চোখে ঠোঁটে এবং পুরো মুখে আলতো করে ঘষে ঘষে তুলে ফেলুন। নারকেল তেল এর নিজস্ব ধর্ম ত্বকের গভীর থেকে সবটুকু মেকাপ তুলে আনবে এবং এর উপাদানগুলো ত্বককে ড্রাই না করে স্মুদ করে তুলবে।

নারকেল তেল অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি এবং অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল হিসেবে কাজ করে। ত্বকের ব্রণ-এর সমস্যা কমানোর সাথে সাথে পোরগুলোতে ময়লা জমতে দেয় না। এবং এতে থাকা প্রাকৃতিক ‘ভিটামিন ই’(Vitamin E) পাওয়ারফুল অ্যান্টি অক্সিডেন্টের কাজ করে যার ফলে ত্বকের বলি রেখা পড়তে দেয় না।

এতে থাকা উপাদানগুলো সানট্যান দূর করতে বেশ কার্যকরী। রোদ থেকে এসে ১ চা চামচ নারকেল তেল এর সাথে সামান্য পরিমাণে লেবুর রস এবং ২ চা চামচ চালের গুঁড়ো , কাঠবাদাম পেস্ট বা গুঁড়ো , ১ চা চামচ এবং ভিটামিন ই ক্যাপসুল এক সাথে মিক্স করে রোদে পুরে যাওয়া ত্বকে লাগিয়ে রাখুন ১০ মিনিট তারপর সার্কুলার মোশনে হালকা করে ঘষে তুলে ফেলুন । সপ্তাহে ৩ দিন এই প্যাক অ্যাপ্লাই করুন সানট্যান গায়েব হওয়ার সাথে সাথে ত্বক টানটান এবং উজ্জ্বল দেখাবে।

দাগহীন উজ্জ্বল ত্বকের জন্য নারকেল তেল এর একটি রেসিপি দিচ্ছি যা নরমাল টু ড্রাই স্কিনের অধিকারীরা অ্যাপ্লাই করে দেখুন –

২ টেবিল চামচ মসুর ডাল
২ চা চামচ নারকেল তেল
১ চা চামচ মধু
সামান্য হলুদ
১ চা চামচ দুধ
কয়েক ফোঁটা লেমন অয়েল

সব উপকরণ একসাথে মিক্স করে মুখে , হাতে-পায়ে এবং গলায় লাগিয়ে ১৫ মিনিট রেখে হালকা ঘষে গরম টাওয়েল দিয়ে চুলে ফেলুন। এতে করে বন্ধ পোরগুলো খুলে যাবে। ত্বকের গভীরের ময়লা উঠে আসবে এবং ত্বক উজ্জ্বল সফট হয়ে উঠবে। শেষে ঠাণ্ডা পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে। এতে করে ওপেন পোরগুলো সংকুচিত হয়ে যাবে।

তাহলে তৈলাক্ত ত্বকের অধিকারীরা কি করবেন? এই রেসিপিটি শুধু আপনাদের জন্য –

১/২ টেবিল চামচ নারকেল তেল
১ টেবিল চামচ টক দই
১/২ টেবিল চামচ চালের গুঁড়ো
১/২ টেবিল চামচ ‘লেবুর রস’(Lemon juice)

উপকরণগুলো মিক্স করে পরিষ্কার মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট রেখে হালকা গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।তৈলাক্ত ত্বকের অধিকারীরা জানেন ব্রণ নিয়ে কত সমস্যায় পড়তে হয় তবে এই প্যাকটি নিয়মিত অ্যাপ্লাইয়ে তৈলাক্ত ত্বকের গভীর ময়লা জমবে না । যার ফলে ব্রণের সমস্যা থেকে সহজেই পরিত্রান মিলবে।
সবশেষে একটা কথাই বলব, হাজার হাজার নামিদামি ব্র্যান্ডের ক্লিঞ্জার ফেইসওয়াশ না কিনে খুব সাশ্রয়ী এবং সহজলভ্য এই একটি জিনিস দিয়েই কিন্তু বহু সমস্যার সমাধান সম্ভব। সুস্থ ও সুন্দর থাকুন সর্বদা হাস্যোজ্জ্বল থাকুন।

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About পূর্ণিমা তরফদার

আমি পূর্ণিমা তরফদার আপনার ডক্টরের নতুন রাইটার। আশাকরি আপনার ডক্টরের নিয়ামিত পাঠকরা আমাকে সাদরে গ্রহণ করবেন ও আমার পোষ্টগুলো পড়বেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *