cool hit counter

ম্যাট মেকাপ লুককে গ্লোয়ি করে তোলার ১২টি দারুণ উপায়

আজকাল মেকাপ(Makeup) করতে পছন্দ করে না এমন নারী খুজে পাওয়া মুশকিল। তবে মেকাপ(Makeup) লুকটা যে ম্যাট ফিনিসই হতে হবে এমন কোনো কথা নেই। মেকাপে গ্লোয়ি একটা লুক আসলে দেখতেও অনেক সুন্দর লাগে।

মেকাপ

ম্যাট মেকাপ লুককে গ্লোয়ি করে তোলার ১২টি দারুণ উপায়

আর এই ডিউয়ি মেকাপ(Makeup) লুক করতে বাড়তি কোন মেকাপ(Makeup) প্রোডাক্টের দরকার নেই। মেকাপ (Makeup)পাউচে থাকা সাধারণ প্রোডাক্টগুলো দিয়েই এই লুকটি আনা সম্ভব। আজকাল প্রায় সবাই মেকাপে গ্লোয়ি/ ডিউয়ি লুকটা পছন্দ করে। তাই মেকাপকে কীভাবে ডিউয়ি / গ্লোয়ি করে তোলা যায়, এজন্য রয়েছে কিছু টিপস।

 

(১) ক্লিঞ্জিং, টোনিং, ময়েশ্চারাইজিং এরপর রেগুলার প্রাইমারের সাথে ব্যবহার করুন একটি ইল্যুমিনেটিং প্রাইমার। অনেক ধরনের ইল্যুমিনেটিং প্রাইমার রয়েছে। আপনার পছন্দমত বেছে নিতে পারেন। ইল্যুমিনেটিং প্রাইমার আপনার পুরো ফেসে একটা গ্লো তৈরি করবে।

(২) ব্যবহার করতে পারেন লিকুইড হাইলাইটার / ইল্যুমিনেটর। ফাউন্ডেশন ব্যবহারের আগে লিকুইড হাইলাইটার নিয়ে ফেস এর হাই পয়েন্টগুলো যেমন- চিক বোন, নাকের ব্রিজ, থুতনি, ঠোঁটের উপরের দিকে, কপালে, আই ব্রো বোনের উপরে এবং নিচে লাগিয়ে নিন এবং ব্লেন্ড করুন হাতের সাহায্যে। এরপর ফাউন্ডেশন লাগান।
(৩) ফাউন্ডেশন একটু ন্যাচারাল এবং গ্লোয়ি করে তুলতে ফাউন্ডেশন প্রথমে হাতে নিয়ে এর সাথে এক ফোটা বেবী অয়েল মিক্স করে নিন। এরপর ফাউন্ডেশন মুখে লাগিয়ে ব্লেন্ড করে নিন। এতে ফাউন্ডেশন অনেক গ্লোয়ি লাগবে। যাদের অয়েলি স্কিন তাদের ভয় পাওয়ার কিছু নেই। এটা ফেসের অয়েলিনেস বাড়িয়ে তুলবে না। তাই নিশ্চিন্তে এই টিপসটি ফলো করতে পারেন।

পড়ুন  মেকআপ (Makeup) এর আগে ও পরে কি করা উচিত

(৪) গালে পাউডার ব্লাশের পরিবর্তে ব্যবহার করুন কালার লিপ গ্লস। অল্প একটু কালার লিপ গ্লস নিয়ে লাগিয়ে নিন গালে। এবং ভালোভাবে ব্লেন্ড করে নিন। তবে খেয়াল রাখবেন, অনেক বেশী পরিমানে যেন নেয়া না হয়।
লিপ গ্লস গালে একটা ডিউয়ি ইফেক্ট দিবে।

(৫) নারিকেল তেল ব্যবহার করতে পারেন এক্সট্রা গ্লো এর জন্য। এটিও লিকুইড হাইলাইটারের মতো ফেস এর হাই পয়েন্টগুলোতে ব্যবহার করুন ফাউন্ডেশন এর আগে।

(৬) বেইজ মেকাপে(Makeup) পাউডার হাইলাইটার ফেস এ গ্লো যোগ করে। তবে আরো গ্লোয়ি করে তুলতে প্রথমে হাই পয়েন্টস এ ব্যবহার করুন লিকুইড হাইলাইটার। তার উপরে ব্যবহার করুন পাউডার হাইলাইটার।

(৭) বেইজ মেকাপের শেষের দিকে পাউডার হাইলাইটার ব্যবহার করুন। এরপর সেটিং স্প্রে নিয়ে পুরো মুখে স্প্রে করে নিন। এরপর সাথে সাথে আবার পাউডার হাইলাইটার ব্যবহার করুন। এই ট্রিকসটি ফলো করলে আপনি নিজেই দেখতে পারবেন পার্থক্য। আগের চেয়ে অনেক গ্লোয়ি দেখতে লাগছে হাইলাইটার।

(৮) লিপস্টিকের ক্ষেত্রে ২ টি লিপস্টিক একসাথে মিক্স করে ঠোটে লাগান। একটি মোটামুটি ম্যাট, অন্যটি গ্লসি। এতে অনেক সুন্দর একটা ফিনিস আসবে।

(৯) কানের দিকে এবং গলার এরিয়াতে সামান্য ভ্যাসলিন লাগিয়ে নিন। এতে পুরো ফেস এর মেকাপের সাথে সামাঞ্জস্যতা আসবে।

(১০) ডিউয়ি / গ্লোয়ি মেকাপের পূর্বশর্ত মসৃন স্কিন। এজন্য মেকাপের আগে স্ক্রাবিং করে নিন। যাতে ত্বকের মরা চামড়া, ব্লাক হেডস, হোয়াইট হেডস চলে যায়।

(১১) চোখের পাতায় ব্যবহার করুন শিমারি আইশ্যাডো। এটি গ্লোয়ি মেকাপের সাথে মানানসই হবে।

(১২) Makeuশেষে একটি ডিউয়ি ফিনিস এর মেকাপ(Makeup) সেটিং স্প্রে ব্যবহার করুন। এ ধরনের সেটিং স্প্রে সারাদিন আপনার মেকাপকে গ্লোয়ি রূপ ধরে রাখতে সাহায্য করবে।

জেনে নিলেন, ডিউয়ি / গ্লোয়ি মেকাপের টিপসগুলো। এ ধরনের মেকাপ(Makeup) উইন্টারে অনেক বেশী প্রযোজ্য। উইন্টারে এক্সট্রা গ্লো তৈরি করবে। চাইলে অন্যান্য সময়ে বিশেষ করে পার্টির জন্য অনেক ভালো লাগবে দেখতে।

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About Angel Nipa

রূপচর্চা বিষয়ে আমি আপনার ডক্টর.কম সাইটে নিয়মিত লেখালেখি করি।আমার রূপচর্চা বিষয়ক পোষ্টগুলো পাবেন এই পেজে https://business.facebook.com/Girls.Doctor.Tips