cool hit counter
Home / প্রশ্ন ও উত্তর / ও নাকি অচেনা রিকোয়েস্ট এক্সেপ্ট করে না, কিন্তু একটা মেয়ের পিক দিয়ে রিকোয়েস্ট দিতেই…

ও নাকি অচেনা রিকোয়েস্ট এক্সেপ্ট করে না, কিন্তু একটা মেয়ের পিক দিয়ে রিকোয়েস্ট দিতেই…

আজকারে প্রশ্নটি হাত পা ঘামা বিষয়ের উপর। প্রতিদিনই আপনার ডক্টর অনলাইন বাংলা স্বাস্থ্য টিপস পোর্টালের ফেসবুক ফ্যানপেজে অনেক ম্যাসেজ আসে। সব ম্যাসেজর উত্তর দেওয়া সম্ভব হয় না।তাই পাঠকদের কাছে প্রশ্নটির বিস্তারিত তুলে ধরা হয় (প্রশ্নকারীর নাম ও ঠিকানা গোপন রেখে)। আপনি ও আপনার সমস্যার কথা লিখতে পারেন অামদের ফেসবুক ফ্যানপেজে https://www.facebook.com/apoardoctor/ আজকের প্রশ্নঃও আমায় বলেছিল ও নাকি অচেনা রিকোয়েস্ট এক্সেপ্ট করে না। কিন্তু আমি একটা সুন্দর দেখতে মেয়ের পিক দিয়ে ফেক আইডি খুলে ওকে রিকোয়েস্ট দেই। ও ১০ মিনিটের মধ্যে ওই ফেক আইডিতে আমার সাথে চ্যাটিং শুরু করে

ও

ও নাকি অচেনা রিকোয়েস্ট এক্সেপ্ট করে না

আসসালামুআলাইকুম ভাইয়া। আপনাদের পেজটা সমাজের অপ্রকাশিত অনেক সমস্যার সমাধান দেয়। অসংখ্য ধন্যবাদ এমন একটা পেজ এর জন্য। আমি এক সমস্যায় জড়জরিত। আমি এবার এইচ এস সি দিলাম আর যে ছেলেটার কথা বলছি সে একটা পাবলিক ভার্সিটিতে ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ছে। আমরা যে বাসায় ভাড়া থাকি ওই বাসার বাড়িওয়ালার ছেলে বাইরে পড়াশুনো করে, ছুটিতে বাসায় যখন আসে তখন ওনার অনেক বন্ধু বাসায় আসে, আড্ডা দেয়।এভাবে ওনার এক বন্ধু আমায় দেখে পছন্দ করে আর সেটা তাকে জানায়। আর একটা কথা এর আগে আমার একটা ছেলের সাথে রিলেশন ছিল, ফ্যামিলির অমতের কারনে ব্রেকাপ হয়ে যায়।এই কথা ওটা দুজনই জানত।
আমার এক্সাম শেষ হবার পর ওই ছেলেটার সাথে চ্যাটিং করতাম। ২ জনের ভাললাগা খারাপ লাগা গুলো নিয়ে কথা হত, পড়াশুনো, কোথায় কোচিং করব এসব নিয়ে কথা হত, এভাবে ওর প্রতি আমার একটা ভাললাগা শুরু হয়। একদিন ও আমায় প্রোপোজ করে। আমি রাজি হই। আমাদের রিলেশনটা চলছে ঠিক কিন্তু সমস্যাটা হল আমি খেয়াল করেছি ও বন্ধুদের সামনে আমার নাম এমন কি ও যে রিলেশন করে সেটাও প্রকাশ করে না।ফেসবুকে ওর কোন পিক বা পোষ্টে কমেন্ট করলেও রিপ্লাই করে না, ওর মেসের কিছু বন্ধু আমার কথা জানে। তারা আমায় নিয়ে ওর কোনো পিক/পোষ্টে মজা করে কমেন্ট করলেও তাদের নিষেধ করে দেয়। মানে বন্ধুদের সামনে ও এই রিলেশন টা আনতে চায় না, জানাতে চায় না। কিন্তু ওর মেয়ে বন্ধুদের সাথে ফেসবুকে অহরহ পিক দেয়, পোষ্ট দেয়। ও আমায় বলেছিল ও নাকি অচেনা রিকোয়েস্ট এক্সেপ্ট করে না, কথা বলা তো দুরের কথা। কিন্তু আমি একটা সুন্দর দেখতে মেয়ের পিক দিয়ে ফেক আইডি খুলে ওকে রিকোয়েস্ট দেই। ও ১০ মিনিটের মধ্যে ওই ফেক আইডিতে আমার সাথে চ্যাটিং শুরু করে দেয়। অন্যদিকে আবার আমার সাথে গভীর প্রেম করে যাচ্ছে, খুব কেয়ারিং , মনে হয় যেন সতিই আমায় অনেক ভালবাসে, খুব সিরিয়াস আমায় নিয়ে।

একজন কুমারী মেয়ের সাথে প্রথম যৌন সঙ্গম কিভাবে করব? পড়ুন বিস্তারিত
অন্যদিকে বাড়িওয়ালার ছেলের সাথেও আমাকে কথা বলতে নিষেধ করে দিয়েছে তাই আমি বলি না। কিন্তু গতকাল উনি আমাকে বলে যে আমি যেন রিলেশনটা নিয়ে এত সিরিয়াস না হই। ও নাকি আমায় কখনও বিয়ে করবে না। আমি উনাকে ডিটেইলস সব বলার জন্য ধরলে উনি আমার প্রশ্ন এড়িয়ে গিয়ে শুধু বলেন , আমায় বোন এর মত দেখে তাই সাবধান করে দিলেন নাহলে নাকি আমি ভবিষ্যৎ এ কষ্ট পাব। আর এই কথা উনি যে আমায় বলছে তা ওকে বলতে নিষেধ করে। ভাইয়া আমি পড়াতে মন দিতে পারছি না, ২ মাস পর আমার এডমিশন এক্সাম, কাকে believe করব বুঝতেছি না। কি করা যায়?

 

আপনার ডক্টরের উত্তরঃ এমন কিছু কথা আছে যা আমারা মা বাবা ভাই বোন কারো সাথেই শেয়ার করতে পারিনা যা করতে পারি একমাত্র বন্ধুর সাথে । যেমনটি করেছে আপনার তথাকথিত বয়ফ্রেন্ড তার বন্ধুর সাথে। হ্যা আপনার বয়ফ্রেন্ড বন্ধুকে তার মনের কথাটা বলে দিয়েছে যে সে আপনার সাথে জাস্ট টাইম পাস করছে। তাছাড়া আপনি নিজেও তো ফেইক আইডি দিয়ে একাউন্ট খুলে তার ভন্ডামির প্রমান পেয়েছেন। আপনার সামনে এডমিশন টেস্ট। ভাল কোন ভার্সিটিতে চান্স না পেলে কিন্তু আপনার ভবিষ্যত অন্ধকার। এইসব ভন্ড ছেলের পাল্লায় পড়ে নিজ হাতে নিজের ভবিষ্যত নস্ট করবেন না প্লিজ ।

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।

Check Also

আমার

আমার শিক্ষিকাকে আমার খুব ভালো লাগত, তাই আমি উনাকে বিয়ের প্রস্তাব দিই….

প্রতিদিনই আপনার ডক্টর অনলাইন বাংলা স্বাস্থ্য টিপস পোর্টালের ফেসবুক ফ্যানপেজে অনেক ম্যাসেজ আসে। সব ম্যাসেজর …

One comment

  1. আপু আমি ভাইয়ার কথার সাথে একমত আপনি যখন নিজেই বুঝেছেন যে উনি একটা ভন্ড ছেলে তো কেন তার জন্য নিজেকে এত টেনশনে রাখছেন?আপনি এসব না ভেবে নিজেকে এক্সামের জন্য তৈরি করুন এন্ড আমার যত দূর ধারণা সেই ছেলে এমনে ও কিছুদিন পর আপনাকে অবহেলা করা শুরু করবে তার থেকে ভাল আপনি তাকে অবহেলা করুন তাকে পাত্রা না দিয়ে চলা শুরু করুন দেখবেন সেই আপনাকে নিয়ে টেনশন করা শুরু করে দিবে.