cool hit counter

মাছ-মাংসের গুণ ছোলায়ও আছে

মুখরোচক খাদ্য ছোলা ভিজিয়ে কাঁচা খাওয়া যায়, ভেজেও খাওয়া যায়। মাংসের সঙ্গে ছোলা মিশিয়ে রান্না করলে তা

যেমন মুখরোচক হয়, খাদ্যগুণও বাড়ে।

ছোলায় মাংসের গুণ

ছোলা খুবই পুষ্টিকর। আমিষের একটি উল্লেখযোগ্য উ স এ খাদ্য। তাই খাদ্য তালিকায় ছোলা থাকলে মাছ-

মাংসের তেমন প্রয়োজন হয় না। অনেক ক্ষেত্রে ছোলাকে মাছ-মাংসের বিকল্প হিসেবে ভাবা হয়। ছোলার শর্করা

বা কার্বোহাইড্রেটের গ্লাইসেমিক ইনডেক্স যথেষ্ট কম। ছোলা খেলে খুব তাড়াতাড়ি তা হজম হয়ে গ্লুকোজ হয়ে

রক্তে চলে যায় না। তাই ছোলা ডায়াবেটিস রোগীদের জন্য ক্ষতিকর তো নয়ই বরং উপযোগী। এর তেল বা ফ্যাটের

বেশিরভাগই পলিআনস্যচুরেটেড ফ্যাট। এ তেল শরীরের জন্য মোটেই ক্ষতিকর নয়।

ছোলায় রয়েছে বিভিন্ন ভিটামিন ও খনিজ লবণ। ফসফরাস ও ম্যাগনেশিয়ামসহ অন্যান্য উপাদান শরীরে কাজে লাগে।

এতে খাদ্য আঁশও রয়েছে, যা কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে সাহায্য করে। এ আঁশ হজম হয় না বলে খাদ্যনালি সহজেই

অতিক্রম করতে পারে এবং মল বা পায়খানার পরিমাণ বাগিয়ে দেয়। নিয়মিত পরিমাণ মতো ছোলা খেলে পায়খানা

নিয়মিত হয় বলে ক্ষতিকর জীবাণু খাদ্যনালিতে থাকতে পারে না। ফলে খাদ্যনালিতে ক্যান্সার হওয়ার আশংকাও

কম থাকে। এ খাদ্যের আঁশ রক্তের চর্বি কমায়। ছোলা দীর্ঘক্ষণ ধরে শরীরে রক্ত যোগান দিতে থাকে। এ খাবার

শরীরের পেশি বাড়ায়। তাই ব্যায়ামগির ও খেলোয়াড়দের অতি প্রিয় ও প্রয়োজনীয় খাবার এ ছোলা। ছোলার ডালের

হালুয়া ছোট-বড় সবার প্রিয়।

সূত্র – দৈনিক যুগান্তর

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।