cool hit counter
Home / রোগ জিঞ্জাসা / ব্যাক পেইন হলে করনীয় কি?

ব্যাক পেইন হলে করনীয় কি?

ব্যাক পেইন হলে করনীয় কি জেনে নিনঃ

শরীরকে সামনের দিকে বাকানো যাবে না। কোনো কিছু নিচ থেকে তোলার সময় শরীরকে না বাকিয়ে হাটু ভেঙ্গে বসুন। এবার জিনিসটি হাতে নিয়ে ধীরে ধীরে দাড়ান। ব্যাক পেইন  হলে একহাতে কোনো ভারী জিনিস বহন করবেন না। এতে করে যে হাতে ভর বহন করবেন সেপাশের স্পাইনের মাংসপেশিতে টান লাগবে। ফলে কোমরের ব্যথা আরোও বেড়ে যাবে। ছোট শিশুদের কোলে নেয়ার মত করে বহন করুন। ব্যাক পেইন থাকলে কাধেও ভারী কোনো জিনিস বহন করবেন না।

ব্যাক পেইন

ব্যাক পেইন হলে করনীয় কি জেনে নিন

যাদের ব্যাক পেইন আছে তারা চেয়ারে বসার সময় কোমর সোজা রেখে বসুন। এজন্য এক-দুইটি ছোট কুশন কোমরের নিচের অংশে রেখে বসতে পারেন। এতে কোমর সোজা হয়ে থাকবে। দীর্ঘ সময় ধরে বসে থাকবেন না। হেটে আসুন কিছু সময়ের জন্য বা দাড়ায়েও থাকতে পারেন। যদি দীর্ঘ সময় দাড়ায়ে থাকতে হয় তাহলে এক জায়গায় ঠায় দাড়ায়ে না থেকে একটু হাটা চলা করতে পারেন। এক পা একটা ছোট টুল বা উচু কোনো কিছুর উপর রেখে অন্য পায়ে দাড়াতে পারেন। এতে আরাম বোধ করবেন।
দীর্ঘসময় ধরে ট্রেন বা গাড়িতে বসে থাকলে ঝাকুনিতে কোমর ব্যথা আরোও বেড়ে যায়। এজন্য দীর্ঘ যাত্রা পথে ১-২ ঘন্টা পর থেমে কিছুক্ষন রেস্ট নিয়ে আবার যাত্রা করুন। ট্রেন-বাস থেকে নেমেই লাগেজ নিয়ে টানাটানি না করে কিছু সময় কোমরের মাংসপেশিকে রেস্ট দিন। এতে করে আপনার কোমর ভাল থাকবে।
শক্ত বিছানায় ঘুমানোর অভ্যাস করুন। এতে পুরো শরীর যেমন সাপোর্ট পায় তেমনি নিচের দিকের স্পাইনগুলোতে চাপ কমে যায়। শক্ত বিছানা বলতে কিন্তু খালি কাঠ নয় আমরা যে তোষক ব্যবহার করি সেটি হলেই হবে। কাত হয়ে অথবা চিৎ হয়ে শোন। কিন্তু উপুর হয়ে শোবেন না। এতে করে কোমর বাকা হয় এবং লোয়ার স্পাইনের চাপ পড়ার ফলে ব্যাক পেইন বেড়ে যেতে পারে। যদি কাত হয়ে শোন সেক্ষেত্রে দুই হাটুর মধ্যে একটা বালিশ রেখে ঘুমুতে পারেন এত করে কোমর সার্পোট পাবে।

যৌন মিলনকালে ব্যাক-পেইন বা পিঠ ব্যথায় কি করবেন ?

অতিরিক্ত ওজন বহনের জন্য কোমরের উপর চাপ পড়ে বেড়ে যায় ব্যাক পেইন /কোমর ব্যথা। এজন্য ওজন কমিয়ে ফেলুন অতিরিক্ত ওজন।
গবেষনায় দেখা গেছে দুচিন্তার কারনে বেড়ে যায় কোমর ব্যথা। তাই কমিয়ে ফেলূন মানসিক চাপ। মেডিটেশনও করতে পারেন। এত কমবে মানসিক চাপ।
ব্যাক পেইন থেকে মুক্তি পেতে নিচের ব্যায়ামগুলো করা যেতে পারেঃ
১.উপর হয়ে শুয়ে পড়ুন। হাত দুটো পাশে রেখে দিন। ২-৩ মিনিট রিলাক্স করুন।

২. কনুইয়ের উপর ভর দিয়ে শরীরের উপরের অংশ (যতটুকু পরেন) আস্তে আস্তে ওপরে তুলুন ২-৩ মিনিট এভাবেই থাকুন।

৩. উপর হয়ে শুয়ে পড়ুন। হাতের তালুর উপর ভর দিয়ে শরীরের উপরের অংশ আস্তে আস্তে উপরে তুলুন। এভাবে ২/৩ মিনিট থাকুন।

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।

Check Also

জ্বরঠোসা

আমার প্রায়শই জ্বরঠোসা হয়, সর্দি লেগেই থাকে, এর সমাধান কী?

প্রশ্নঃ আমার প্রায়শই জ্বরঠোসা হয়। এর কারণে আমার খুব অসহ্য লাগে। সর্দি লেগেই থাকে। নিঃশ্বাস …