cool hit counter
Home / Health Tips / স্লিম হওয়ার ওঠার ১০টি কৌশল 

স্লিম হওয়ার ওঠার ১০টি কৌশল 

 

বেশিরভাগ সময় স্লিম থাকতে গিয়ে নিজের ওজন নিয়ন্ত্রণ রাখতে হিমসিম খেতে হয় সবাইকে। বিশেষ করে চাকরিতে ঢোকার পর কিংবা বিয়ের কিছুদিন পরই শুরু হয়ে যায় মোটা হওয়া। আর মেয়েদের ক্ষেত্রে সন্তান হওয়ার পর তো কথাই নেই, ওজন দ্বিগুণ হারে বেড়ে যায়।

 

৫ মিনিটে স্লিম দেখানো কি সম্ভব? অবশ্যই সম্ভব, যদি আপনার জানা থাকে সঠিক কৌশল। একটু বুদ্ধি খাটালেই প্রতিদিনই আপনি হয়ে উঠতে পারেন আকর্ষণীয় ও সুন্দর, আপনার যে ওজন আছে ঠিক সেই ওজন নিয়েই। মনে রাখবেন, সৌন্দর্য আর কিছুই নয়, নিজেকে সঠিকভাবে উপস্থাপন করা মাত্র। চলুন, জেনে নিই এমন ১০টি কৌশল যেগুলো আপনাকে প্রতিদিনই করে তুলবে স্লিম ও স্মার্ট। এবং এগুলোর কোনটাই করতে ৫ মিনিটের বেশী সময় লাগবে না আপনার।

স্লিম

১) আপনি কেমন মোটা, কত বেশী আপনার ওজন এসবে কিছুই যায় আসে না যদি আপনাকে দেখতে ভালো লাগে। দেখতে ভালো লাগার জন্য প্রথমেই নিজের শরীরের ভাঁজ বা বাড়তি মেদগুলোকে দেখে ফেলুন। খুব বেশী টাইট কোন কাপড় বা খুব পাতলা কাপড় পরিধান করবেন না। এতে আপনার ভাঁজগুলো বিশ্রীভাবে দেখা যাবে। এমন পোশাক পরিধান করুন যেটা গায়ে চেপে বসে না আবার খুব ঢিলেঢালাও নয়।

 

২) পোশাক পরুন এক রঙের। সালোয়ার ও কামিয বা শার্ট-প্যান্ট সবই এক রঙের পরলে দেখতে দারুণ স্লিম লাগে। ওজন কমে প্রায় অর্ধেক দেখা যাবে। বৈচিত্র্য আনতে রঙিন টাই বা ওড়না ব্যবহার করুন। খুব মোটা মানুষদের ক্ষেত্রে এই টেকনিক দারুণ কাজে দেয়।

 

৩) জিনসের প্যান্ট বা যে কোন প্যান্ট পড়লে এমন প্যান্ট পরুন যেটার পেছনের পকেটগুলো বড় বড় এবং দুটো পকেট পরস্পরের কাছে। এটা আপনার হিপ দেখাবে একদম স্লিম।

 

৪) মোটা মানুষেরা চুলে কখনো রঙ করবেন না। করতে চাইলেও চুলের গোঁড়ায় কখনোই রঙ করবেন না এবং খুব বেশী হালকা রঙ দেবেন না। গাঢ় রঙের চুল এমনভাবে কাটুন যেন মুখের দুইপাশে পড়ে থাকে, এতে আপনার মুখটা এমন স্লিম দেখাবে। ৫) চুল উঁচু করে টানটান পনিটেইল করতে পারেন, এতেও মুখ লম্বাটে দেখাবে। ফলে ওজন কম মনে হবে। এছাড়া মাথার উপরে চুল একটু ফুলিয়ে তবেই বাঁধুন। এতেও আসবে স্লিম লুক।

৫) কখনো আড়াআড়ি ডোরা কাটা বা আড়াআড়ি ডিজাইনের কিছু পরবেন না ভুলেও। এতে আপনাকে অনেক বেশী চওড়া ও মোটা দেখাবে। লম্বালম্বি ডিজাইনের যে কোন পোশাক নিয়ে আসবে স্লিম লুক।

 

৬) সম্ভব হলে একটুখানি উঁচু জুতো পরুন। কয়েক ইঞ্চি লম্বা দেখালে ওজন অনেকটাই কম মনে হবে। উঁচু পরতে না চাইলে ফ্ল্যাটি পরুন তবে খুব ঝলমলে ও রঙিন জুর পরবেন না। জুতোর রঙ রাখুন স্কিন টোনের কাছাকাছি।

 

৭) নিজের শরীরের যে অংশটি বেশী মোটা, কৌশলে সেটা ঢেকে রাখুন। যেমন হাত মোটা হলে কোয়াটার স্লিভ পোশাক পরুন, ফুল স্লিভে কিন্তু আরও মোটা লাগবে। পেট মোটা হলে পেটের কাছে ঢিলেঢালা পোশাক পরুন বা এমন ডিজাইনের পোশাক পরুন যাতে পেট ঢেকে যায়। এই সমস্যাগুলো ঢেকে ফেললেই আপনার লুক হয়ে উঠবে দারুণ। শরীরের যে অংশগুলো ঢেকে রাখতে চান, সেখানে গাঢ় রঙের পোশাক ব্যবহার করুন, সুন্দর অংশে হালকা। দেখবেন অনেকটাই স্লিম লাগবে।

 

৮) একটা খুব ভুল ধারণা আছে যে মোটা মেয়েদের ছোট গলার জামা পরতে হয়। এটা ভীষণ বড় একটি ভুল ধারণা। ছোট গলার জামায় মূলত আরও মোটা লাগে। নিজের শরীরের সাথে মানানসইভাবে জামার গলার ডিজাইন বেছে নিন। বিশেষ করে গলা ও ঘাড় খাটো হলে অবশ্যই বড় গলার পোশাক পরুন।

 

৯) প্রিন্টের পোশাক মোটা মানুষের এড়িয়ে যাওয়াই ভালো। একান্তই পরতে চাইলে একদম ছোট ছোট প্রিন্ট পরুন। খুব বেশী চকচকে পোশাক ও এক্সেসরিজ অবশ্যই এড়িয়ে চুল।

স্লিম থাকার ৫ টি কার্যকরী টিপস

১০) অবশ্যই অবশ্যই সঠিক মাপের ব্রা ও প্যান্টি পরুন। বাজারে মোটা মানুষদের জন্য বিশেষ ডিজাইনের ব্রা ও প্যান্টি পাওয়া যায় যা শরীরের বাড়তি মেদ লুকিয়ে রাখতে দারুণ সহায়তা করে। এইগুলো ব্যবহার করুন।

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।

Check Also

ডিম

ডিম কখনোই হাফ সিদ্ধ করে খাবেন না, কিন্তু কেন? দেখুন ভিডিওসহ

ডিম খেতে অনেকেই ভালবাসেন। কিন্তু যে জিনিস খেতে ভাল লাগে, তাতেই বিপত্তি। ডিমের বেলায়ও তাই। …