cool hit counter

এক মুসলিম ছেলের সাথে প্রেম করে আমার…

প্রতিদিনই আপনার ডক্টর অনলাইন বাংলা স্বাস্থ্য টিপস পোর্টালের ফেসবুক ফ্যানপেজে অনেক ম্যাসেজ আসে। সব ম্যাসেজর উত্তর দেওয়া সম্ভব হয় না।তাই পাঠকদের কাছে প্রশ্নটির বিস্তারিত তুলে ধরা হয় (প্রশ্নকারীর নাম ও ঠিকানা গোপন রেখে)। আপনি ও আপনার সমস্যার কথা লিখতে পারেন অামদের ফেসবুক ফ্যানপেজে https://www.facebook.com/apoardoctor/ আজকের প্রশ্নঃ এক মুসলিম ছেলের সাথে প্রেম করে আমার জীবন শেষ হয়ে গিয়েছে…

মুসলিম

এক মুসলিম ছেলের সাথে প্রেম করে আমার জীবন শেষ

আমি খুবই মানসিক অশান্তিতে আছি। এর কারণ হলো আমার ছোটবেলার ভুল। দশম শ্রেণিতে থাকতে একটি মুসলিম ছেলের প্রেমে পড়ি। যদিও সে আমার পঞ্চম শ্রেণীর ক্লাসফ্রেন্ড। তখন এটি বাবা-মা জেনে যায় এবং আমায় কয়দিনের জন্য মামাবাড়ি রেখে আসে। তারপর পরীক্ষার সময় এসে পরীক্ষা দিই। এরপর মা যদিও বলেছিল মামাবাড়ির কলেজে ভর্তি করতে তবু বাবা কাছ ছাড়া করতে চায় নি।

 

অবশেষে ইন্টারমিডিয়েট প্রথমবর্ষে সে আবার আমার জীবনে আসে। এভাবে চলতে থাকে কিছুদিন। একদিন আমি, ও আর ওর একবন্ধু মিলে ওর প্রাইভেট শিক্ষকের কাছে পড়তে যাই। আর রাস্তার পাশে একটা দোতলা স্কুল দেখে ওখানে ছাদে ওঠার ছেলেমানুষী জাগে। আর ওটাই কাল হয়। আমাদের কিছু মানুষ দেখে ফেলে, পুলিশ ডাকে আর থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে ব্যপারটা সবাই জেনে যায়। আমায় মামাবাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া হয়। সেখান থেকে এইচ.এস.সি কমপ্লিট করি। তবে এত ঝড়ের মাঝে রেজাল্ট ভাল হয় না। তারপর ঢাকায় মামার কাছে চলে যাই ভর্তি পরীক্ষার জন্য, যদিও একটুর জন্য চান্স পাই নি।

 

সেখানে আমার স্বজাতি একটি ছেলের কাছ থেকে প্রেমে চরমভাবে (বুঝে নিন) প্রতারিত হই। এরপর চান্স না পাওয়ার জন্য আবার বাড়িতে নিয়ে আসা হয়, সেখানেই ফিরে আসতে হলো যেখান থেকে পালাতে চাইতাম। এখন আমি খুলনার একটি প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ছি দ্বিতীয় বর্ষে। ইংরেজী বিভাগে। আর আমার গ্রামটি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কাছে হওয়ায় সেখান থেকেই যাতায়াত করছি। তবে আমার ভাল লাগে না। বাঁচতে ইচ্ছে করেনা। যে দেখে সেই জিজ্ঞেস করে ‘কি করছিস, কবে আসলি বাড়ি’। আমি লজ্জায় বাইরে বের হতে পারি না। আমি তো তার (মুসলিম ছেলেটি) সাথে তেমন কিছু করি নি যাতে আমায় এতটা শুনতে হবে? মনে হয় জীবনটা শেষ।

 

এদিকে বাড়িতে আমরা দুবোন বলে আমার বাবা মাকেও শরীকদের কোপে পড়তে হয়। শরীকরা উঠে পড়ে লেগেছে বাবাকে দাদুর সম্পত্তি থেকে বঞ্চিত করার জন্য। দাদুও মেয়ে বলে দেখতে পারে না। বলা বাহুল্য আমার মুসলিম ছেলেটির সঙ্গে প্রেমে জড়ানোয় শরীক কাকা, ফুফুদের ছোট্ট একটা ভুমিকা ছিল। তবুও আমারই দোষ। সেই দোষের ভারবহন করতে করতে আমি ক্লান্ত। আমার ইতিমধ্যেই দুটো বিয়ে ভেঙে গেছে। বিয়ে করতেও চাই না আমি। জীবনটা দূর্বিসহ হয়ে উঠেছে। দয়া করে কিছু বলুন, এ সমস্যা থেকে বেরোনোর কোনো উপায় আছে কি? না কি এখানেই ইতি আমার বিশ বছরের জীবনের!

আপনার ডক্টরের উত্তরঃ সত্যি কথা বলতে কি আপু, মুসলিম ছেলেটির সাথে প্রেমে জড়িয়ে কিন্তু আপনার জীবন নষ্ট হয়নি, আপনার জীবন নষ্ট হয়েছে আপনার নিজেরই ভুলে। জানি আমার লেখা পড়ে আপনি খুবই রেগে যাবেন, কিন্তু এটাই সত্যি। আপনি নিজের প্রেমের সম্পর্কটির জন্য নিজের আত্মীয় স্বজনদের দোষারোপ করছেন। কিন্তু সত্য এই যে আপনি না চাইলে কেউ কি আপনাকে বাধ্য করতে পারতো? শুধু তাই নয় আপু, আপনি যেমন মুসলিম ছেলের সাথে প্রেম করে ধরা পড়ে লাঞ্ছনার শিকার হয়েছে, ওই ছেলেটিও তো তাই হয়েছে। তাঁকে পুলিশে পর্যন্ত নিয়ে গেছে। আপনার চাইতে তাঁর সমস্যার পরিমাণ কিন্তু বেশি। কিন্তু আপনি কী করেছে? সেই সম্পর্কের রেশ কাটতে না কাটতেই আরেকটি সম্পর্কে জড়িয়ে গিয়েছেন আর একেবারে চরম পর্যায়েও চলে গিয়েছেন… যে প্রেম নিয়ে এত সমস্যা, সেই প্রেমই আবার করে বসেছেন। এখন নিজেই ভাবুন আপু, কাজটা কি ঠিক হয়েছে? প্রেমিকের সাথে অন্যায় তো করেছেনই। অন্যায় করেছেন নিজের পিতা মাতার সাথেও।

 

যাই হোক আপু, আপনার বয়স কম, তাই মনে হচ্ছে এত সামান্য ব্যাপারেই জীবন শেষ। আসলে ব্যাপারটা মোটেও এত সিরিয়াস কিছু না। কিছুদিন পর আপনা থেকে সব ঠিক হয়ে যাবে। আপনার পরিবারে সহায় সম্পদ নিয়ে যে সমস্যা, সেটায় আপনি কিছু করতে পারবেন না। করা উচিতও হবে না। আপনি অন্যকে দোষ না দিয়ে নিজের ভুল গুলো বুঝতে শিখুন, মন দিয়ে লেখাপড়া করুন। জীবনে যখন বড় কিছু হতে পারবেন, তখন আর কারো মনেও থাকবে না আপনার অতীত 🙂

পরামর্শ দিয়েছেন-
রুমানা বৈশাখী

ওর স্বামী বিদেশ চলে যাওয়ার পর আমাদের মধ্যে অনেকবার…. পড়ুন বিস্তারিত
বিশেষ দ্রষ্টব্য
আমি কোন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ, চিকিৎসক বা আইনজীবী নই। কেবলই একজন সাধারণ লেখক আমি, যিনি বন্ধুর মত সমস্যাটি শুনতে পারেন ও তৃতীয় ব্যক্তির দৃষ্টিকোণ থেকে কিছু পরামর্শ দিতে পারেন। পরামর্শ গুলো কাউকে মানতেই হবে এমন কোন কথা নেই। কেউ যদি নতুন কোন দিক নির্দেশনা পান বা নিজের সমস্যাটি বলতে পেরে কারো মন হালকা লাগে, সেটুকুই আমাদের সার্থকতা।

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।