cool hit counter
Home / রান্নাঘর / স্বামী প্রচন্ড কামুক স্বভাবের শিক্ষিত হলেও আচরণ গ্রাম্য এখন কি করি?

স্বামী প্রচন্ড কামুক স্বভাবের শিক্ষিত হলেও আচরণ গ্রাম্য এখন কি করি?

প্রতিদিনই আপনার ডক্টর অনলাইন বাংলা স্বাস্থ্য টিপস পোর্টালের ফেসবুক ফ্যানপেজে অনেক ম্যাসেজ আসে। সব ম্যাসেজর উত্তর দেওয়া সম্ভব হয় না।তাই পাঠকদের কাছে প্রশ্নটির বিস্তারিত তুলে ধরা হয় (প্রশ্নকারীর নাম ও ঠিকানা গোপন রেখে)। আপনি ও আপনার সমস্যার কথা লিখতে পারেন অামদের ফেসবুক ফ্যানপেজে https://www.facebook.com/apoardoctor/ আজকের প্রশ্নঃ স্বামী প্রচন্ড কামুক স্বভাবের শিক্ষিত হলেও আচরণ গ্রাম্য এখন কি করি?

স্বামী

স্বামী প্রচন্ড কামুক স্বভাবের শিক্ষিত হলেও আচরণ গ্রাম্য

আমার সমস্যা বরাবরই হৃদয় ঘটিত। আমি স্বচ্ছল পরিবারের তবে সীমিত আয়ের একটি পরিবারের মেয়ে। নিউক্লিয়ার পরিবার,দাদা দাদী, বাবা মা ছোট ভাই। বাবা মা দু জনই কাজ করেন, সাথে রাজনীতিও। বাবা মা ব্যস্ত থাকতেন। বেশির ভাগ সময় দাদা দাদীর কাছে থাকতাম। আমার ছোট ভাইটা হওয়ার পরে মা কে খুব একটা কাছে পেতাম না। বাবা দাদা আমাকে অনেক আদর করত। দাদী বেশি আদর করত আমার ভাইকে। কেমন যেন একা একাই চলতে ফিরতে পারতাম। একলা কিছু করতে ভয় পেতাম না। তবে ভূতের ভয় পেতাম মাঝে মাঝে। আমি বিড়াল ভয় পাই। অথচ তেলাপোকা হাতে নিয়ে ঘুরতে পারি।

শৈশবে বেশ কয়েক বার যৌন নির্যাতনের শিকার হই। পরিচিত মানুষের দ্বারা। যাই হোক, ছোট বেলায় সবচেয়ে ভাল লাগত দাদার সাথে থাকতে। যখন ফাইভে পড়ি দাদা মারা গেল। সিক্সে উঠে বেঢপ মোটা হয়ে গেলাম। এখনো মোটা। মোটা হওয়ার জন্য যেখানেই গিয়েছি খোটা শুনেছি। হাসির পাত্রী হয়েছি। কোন ছেলে আমাকে পছন্দ করত না। আমি বই পড়তে ভালবাসি, নাচ গান, বিতর্ক, অভিনয়, টেবিল টেনিস সবই পছন্দ আমার। কিন্তু কোন ছেলের চোখে আমি সুন্দরী না। অনেকেই পছন্দ করত, কিন্তু বলত শুকাতে। একবার কী হল জানেন? একটা ছোট মেয়েকে কোলে নিতে গিয়েছিলাম, বাচ্চা মেয়েটা সবার সামনে বলে উঠল, তুমি মোটা তোমার কোলে যাবো না, এই বলে আমার পাশের বান্ধবীর কোলে উঠল।

 

একটা ছেলেকে পাগলের মত ভালবেসে ফেলেছিলাম। তখন ক্লাস টেনে পড়ি। ছেলেটা না অনেক সুন্দর ছিল। কিন্তু সে আমাকে কোনোদিনই ভালবাসে নি। আমি খুব স্বাধীন চেতা। সব কাজ নিজে করতে পছন্দ করি। যাকে একবার মনে বসিয়ে ফেলি, তাকে কোনদিন মন থেকে মুছি না। জীবনে অনেকবার রিলেশন হয়েছে, তবে ব্যাপারটা হচ্ছে ইউজড হয়েছি। আমি কেমন জানি টমবয়, বোহেমিয়ান। এখন একটা চাকরি করছি। চলে ভালই। আমার বিয়ে হয়েছে। ছেলে দেখে মোটেই পছন্দ হয় নি। কিন্তু প্রথমে মনে হয়েছিল, মানুষ হিসেবে খুব ভাল। তাই রাজী হই।

বিয়ের পর প্রথমে ভাল যায়, কিন্তু পরে কিছু জিনিস ভাল লাগত না। সে, মানে আমার স্বামী প্রচন্ড কামুক। আমার চেয়ে ১১ বছরের বড়। অনেকটা ডমিনেটিং আর ঠ্যাশ দিয়ে কথা বলে। মাঝে মাঝে নিজের অনিচ্ছায় শারিরীক সম্পর্ক করেছি। কেমন জানি ঘেন্না লাগে। উনার একগুঁয়েমি স্বভাব আমার ভাল লাগে না। উনি অনেক শিক্ষিত কিন্তু আচরণের দিকে কেমন জানি গ্রাম্য। প্রথমে কেউ বুঝবে না। আমি কাছ থেকে দেখেছি। অনেক হিসেবি। বড় বড় গল্প দেয়, কিন্তু কথার সাথে কাজের মিল নাই। এক দিন তর্ক করেছিলাম তাই আমার গায়ে হাত তুলল। আগে একটু রেস্পেক্ট ছিল, এখন কিচ্ছু নাই। বিয়ে হয়েছে কয়েক মাস। অতিষ্ঠ হয়ে গেছি। আমি তাকে ভালবাসতে পারি নি। ভালবাসি না। মানসিক ভাবে অসুস্থ হয়ে গেছি। মরতে ইচ্ছে করে। কিংবা মনে হয় দূরে চলে যাই। আমার কী করা উচিৎ এখন?

যৌনসম্পর্ক নিয়ে পবিত্র রমজান মাসে স্বামী স্ত্রীর কিছু বাধা নিষেধ!

 

আপনার ডক্টরের পরামর্শঃ

আপনার বিয়ে হয়েছে মাত্র কয়েক মাস, এর মাঝেই এতটা হতাশায় ভুগছেন… এত আসলে ভালো লক্ষণ নয়। জীবন সঙ্গীকে ভালবাসতে না পারলে সেই সম্পর্ক বোঝা হয়ে যায়। আর অহেতুক বোঝাটি টেনে নেয়ার দরকার নেই। আপনি যে ধরণের বর্ণনা দিলেন আপনার স্বামীর, সেই ধরণের মানুষ আসলে আমি দেখেছি। আমি জানি তাঁরা কখনোই বদলায় না। কোন একটা কারণে শিক্ষা তাঁদের অন্তর পর্যন্ত পৌঁছাতে পারে না, কেবল কাগজ কলমে রয়ে যায়। আপনি যে রকম রুচিশীল ও স্বাধীনচেতা নারী, আপনার পক্ষে এমন একজন লোকের সাথে সংসার করা খুব কঠিন হবে। যদি এই দেশের অসংখ্য নারী করছেন। কিন্তু সবার দ্বারা সম্ভব নয়। যদি নাই পারেন সাথে থাকতে, তাহলে ডিভোর্সের চিন্তা করুন। যত তাড়াতাড়ি হয় তত ভালো। সম্পর্কটা আপনার ওপরে চেপে বসবে সময় যত যাবে। তবে ভদ্রলোকের সাথে শেষ একবার কথা বলেন নেবেন, তাঁকে সংশোধনের শেষ একটা চেষ্টা করবেন।

অনেকেই হয়তো হয়তো আপনার কথা বুঝবে না যে জৈবিক ভালোবাসায় রুচিরও একটি ব্যাপার আছে। কারণ আমাদের দেশের পুরুষদের মাঝে যৌনতার ক্ষেত্রে এই রুচি নেই বললেই চলে। এবং মেয়েরাও সেটা না দেখেই অভ্যস্ত। যৌনতা যে কেবলই পুরুষের উপভোগের নয়, এটা যে নারীর জন্য উপভোগ্য এবং নারীর শরীরটিকেও খুশি করা জরুরী, এটার চর্চা আমাদের দেশে নেই। যৌনতা যে কেবল শরীরের নয়, একটা মনেরও ব্যাপার। একটু চুমু, হাত ধরা, আদর করে কাছে টেনে নেয়ার মাঝে যে অনেক রোমান্টিকতা থাকে আর নারীর শরীর যে তাতেই জাগ্রত হয়… এটা বোঝার মত মানসিকতা খুব কম পুরুষই রাখে। এদের কাছে ব্যাপার টা এমন যে স্ত্রী কাপড় খুলে বিছানায় শুলেই হলো। কিন্তু আপু, এভাবে আজীবন কাটবে না। ইচ্ছার বিরুদ্ধে যৌন কর্ম আপনাকে মানসিক রোগী বানিয়ে ফেলবে। তাই সবার আগে নিজের কথাই ভাবুন।

আর হ্যাঁ, মোটা হওয়া নিয়ে মন খারাপ করবেন না। আমিও অনেক মোটা। গ্যারান্টি দিয়ে বলতে পারি যে আপনার চাইতে বেশি মোটা। কিন্তু আমার জীবনে এই ওজনের জন্য ভালোবাসা থমকে থাকেনি, সুখী হওয়া আটকে থাকেনি। যিনি আপনাকে ভালবাসবেন, তিনি মোটা হলেও যেটুকু ভালবাসবেন, চিকন হলেও সেটুকু ভালবাসবেন। তাই, বি প্রাউড অফ ইউর সেলফ।

খিটখিটে স্বভাবের স্বামী বা স্ত্রীকে মোকাবেলা করার ৭টি পদ্ধতি! জেনে নিন

তবে হ্যাঁ, একটা কথা অবশ্যই বলবো, স্বামীকে যখন শুরুতেই পছন্দ হয়নি, তাঁকে বিয়ে না করাটাই উচিত ছিল। তাতে হয়তো তিনিও এমন স্ত্রী পেতেন যিনি তাঁর সব মেনে নেবেন আর আপনিও মনের মত স্বামী পেতেন। স্বনির্ভর যখন আপনি নিজে, স্বামীর টাকার কি খুব বেশি প্রয়োজন আছে আপনার? সেটাও একটু ভেবে দেখবেন। কেবল কৃপণ হওয়াটা একটা মানুষের বিশাল কোন দোষ নয়। তবে হ্যাঁ, স্ত্রীর ইচ্ছার বিরুদ্ধে অতিরিক্ত যৌন সম্পর্ক অবশ্যই দোষের। আর সবচাইতে বড় কথা, গায়ে হাত তোলা মেনে নেয়ার প্রশ্নই আসে না। যেসব মেয়েরা মনে করেন স্বামী একটু গায়ে হাত তুলতেই পারে, তাঁদের আসলে করুণা ছাড়া কিছুই দেবার নেই আমার। আশা রাখি আপনি তেমন মেয়ে নন।

ভালো থাকবেন আপু।

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।

Check Also

টমেটো সস

টমেটো সস ঘরেই তৈরী করুন

দোকানে সারি বেঁধে সাজানো থাকে নানান ব্র্যান্ডের টমেটো সস । আকর্ষণীয় বোতলে রাখা এই সস …