cool hit counter

ঢাকা সিটি কলেজ ছাত্রী প্রকাশ্যে ছাদে একি করলেন!

আপনারা হয়তো সকলেই অবগত আছেন যে ভিন্ন ডট কমের দুইটি বিভাগ খুবই জনপ্রিয়। একটি হলো পাঠকের কলাম এবং অন্যটি ভিন্ন জীবন ও সম্পর্ক। দীর্ঘ দিন ধরে আপনাদের অনুপ্রেরণাতেই আমরা আছি আপনাদের সাথে এবং ভবিষ্যতেও থাকবো, প্রতিদিন আমরা পাঠকের কাছ থেকে অগণিত মেইল এবং মেসেজ পেয়ে থাকি যেগুলো আমরা পুংখানুপুঙ্খ বিশ্লেষণ করেই প্রচার করি। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখজনক হলেও সত্য যে গত মাসের আঠারো তারিখঃ থেকে অনিবার্য কারণবশত ফেসবুক সহ কিছু সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম দেশে সাময়িকভাবে বন্ধ আছে, তাই আমরা এই দুটি কলাম অফ রেখেছিলাম কিন্তু পাঠকের অসংখ্য অনুরোধে আজ থেকে এই কলাম দুটি পুর্বের ন্যায় নিয়মিত প্রচার হবে।

ঢাকা

ঢাকা সিটি কলেজ ছাত্রী প্রকাশ্যে ছাদে একি করলেন!

যাহোক এবার মুল আলোচনায় আসা যাক, আজকের যে লেখাটি আমরা প্রচার করবো সেটা আমাদেরকে লিখে পাঠিয়েছেন ঢাকার কল্যানপুর থেকে হুমায়রা…

আমরা প্রথমে লেখাটি পেয়ে একেবারেই বিস্মিত হয়েছিলাম, ভেবেছিলাম এটা কিভাবে সম্ভব বিশেষ করে মেয়েদের দ্বারা, আমরা পরবর্তীতে খোঁজখবর নিয়ে এই ঘটনার সত্যতা পাই… ঘটনাটি ঘটেছে গত সোমবার সন্ধ্যার দিকে, কল্যানপুরের তাজ লেনের বাসিন্দা বন্যা (ছদ্মনাম) পড়াশোনা করছেন ঢাকা সিটি কলেজে কমার্স বিভাগে মার্কেটিং নিয়ে, দীর্ঘ দিন এই এলাকায় আছেন পরিবারের সাথে সেই হিসেবে স্থানীয় বলা চলে… বন্যার সম্পর্ক আছে তাদেরই পাশের বাড়িতে হৃদয় এর সাথে দীর্ঘদিন ধরে,সম্প্রতি এই সম্পর্কের ফাটল ধরে এবার কিছুদিন আগে হৃদয়ের বিয়ে ঠিক হয় কিন্তু বন্যা সেটি মেনে নিতে একেবারেই নারাজ। সে হৃদয় কে ছাড়া কিছুতেই থাকতে পারবে না।

বড় ভাই দ্বারা যৌন নির্যাতনের শিকার হই, দুইবার খুন করার চেষ্টাও করি…

এই বিষয় নিয়ে হৃদয় এর সাথে ব্যপক দরকষাকষি হয় কিন্তু কোন কিছুতেই কাজ হচ্ছিল না। বন্যার বাসা এমনকি হৃদয়ের বাসা থেকে সবাই বিষয়টি বুজতে পারে, সর্বশেষ কোন উপায় যখন হচ্ছিল না তখন মেয়েটি একটি হ্যান্ডমাইক জোগাড় করে নিজেদের বাসার ছাদে ওঠে! এরপরেই শুরু হয়ে যাই লংকাকান্ড! বন্যা ছাদের দরজা আটকে দেয় এবং হ্যান্ডমাইকে একে একে সবারই নাম ধরে ডাকতে থাকে এবং হুমকি দেয় হৃদয়ের সাথে তার বিয়ের ব্যবস্থা না করা হলইয়, সে ছাদ থেকে লাফিয়ে পড়বে। তার পরিবার এবং হৃদয়ের পরিবার কে সময় দেওয়া হয় মাত্র তিন ঘন্টা! ক্রমেই মহল্লার লোকজন জড়ো হতে থাকে কিন্তু বিয়ের ঘোষণা না আসা পর্যন্ত বন্যা ছাদ থেকে নিচে নামতে নারাজ, বন্যা চায় তার ভালোবাসার স্বীকৃতি, অবশেষে মহল্লার মসজিদের ইমাম বিয়ের দ্বায়িত্ব কাদেঁ তুলে নেয় এবং দুই পরিবারকে রাতের ভিতরে রাজি করিয়ে বিয়ের আয়োজন করবে সেই শর্তে বন্যাকে ছাদ থেকে নিচে নামানো হয়। চুক্তি অনুসারে সোমবার রাতেই বিয়ের আনুস্ঠানিকতা সেরে ফেলা হয় সকল ভেদাভেদ ভুলে, ইতোমধ্যে বিষয়টি মহল্লা গড়িয়ে ঢাকা সিটি কলেজ পর্যন্ত গড়ায়।

আমি হলের এক বড় আপুর সঙ্গেই থাকতাম, একরাতে…

কলেজের সবারই মুখে মুখে ব্যপক আলোচনার সৃষ্টি হয়, অনেকে আবার বিষয়টি নিয়ে ফেসবুকে ব্যাপক মেতেছেন। বন্যার কাছের অনেকেই মন্তব্য করেছেন যে নিজের দাবী আদায়ে একটি সাহসী পদক্ষেপ আবার অনেকেই সমালোচনা করতে বাদ দেয়নি। কড়া সমালোচনা করে বন্যার এক বান্ধবী লিখেছেন হায়রে বন্যা তুই একি করলি! দেশে কি ছেলেদের আকাল পড়ছে যে বিয়ের জন্য লাফালাফি করে ছাদে উঠতে হবে। বিঃদ্রঃ ঘটনাটি পড়ে কেমন লাগলো মন্তব্য করতে ভুলবেন না কিন্তু আর কারও কাছে এমন কোন মজার ঘটনা থাকলে অবশ্যই আমাদেরকে লিখতে ভুলবেন না

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।