cool hit counter
Home / ভেষজ / দূর্বা ঘাসের উপকারিতা জেনে নিন

দূর্বা ঘাসের উপকারিতা জেনে নিন

দূর্বা ঘাসেরদূর্বা ঘাসের উপকারিতা জেনে নিন

দূর্বা ঘাস হলো সবুজ ঘাসের মত তবে এটি স্বভাবিক ঘাস থেকে একটু সরু টাইপের হয়। যারা গ্রামে থাকেন তারার অবশ্যই দূর্বা ঘাসের সাথে বেশ পরিচিত। এই দূর্বা ঘাসের অনকে উপকার আছে। অনলাইন বাংলা স্বাস্থ্য চিটস পোর্টাল আপনাদের কোছে দূর্বা ঘাসের সেই উপকারী বিষয়গুলো তুলে ধরার চেষ্টা করছে, চলুন শুরু করা যাক।

 

* চুল পড়া রোধে দূর্বা ঘাসের উপকারীতা:

চুল পড়া বন্ধের জন্য একটি পাত্রে এক লিটার নারিকেল তেল মৃদু তাপে জ্বাল করে ফেনা ফেলে নিন। তারপর দূর্বার ঘাসের টাটকা রস ২০০ মিলি সম্পূর্ণ তেলে মিশিয়ে ফের জ্বাল দিন। চুলা থেকে নামিয়ে ছেঁকে সংরক্ষণ করুন।গোসলের ১ ঘণ্টা আগে ওই তেল চুলে মাখুন। নিয়মিত ২ থেকে ৩ মাস ব্যবহার করলে চুলপড়া বন্ধ হবেই।

 

* বমি বমি ভাব বন্ধে দূর্বা ঘাসের উপকারীতা:

বমি বমি ভাব বন্ধের জন্য দূর্বা ঘাসের রস ২ থেকে ৩ চামচ ১ চা চামচ চিনির সঙ্গে মিশিয়ে ১ ঘণ্টা পর পর খাবেন। বমি ভাব কেটে গেলে খাওয়া বন্ধ করে দিন।

 

*রক্তপড়া বন্ধ করতে দূর্বা ঘাসের উপকারীতা:

দূর্বা ঘাস চিবিয়ে কেটে যাওয়া স্থানে লাগিয়ে দিলেই রক্তপাত বন্ধ হয়। কয়েক দিনের মধ্যেই কেটে যাওয়া স্থান ঠিক হয়ে যায়। [দূর্বার শিকড় ব্যবহার করলে বেশি উপকার পাওয়া যায়।]

 

*বিভিন্ন রোগে দূর্বা ঘাসের উপকারীতা:

রক্তক্ষরণ, কেটে যাওয়া বা আঘাতজনিত রক্তপাত, চুল পড়া, চর্মরোগ,দন্তরোগ ও আমাশয়ে উপকারী।

* আমাশয়ে দূর করতে দূর্বা ঘাসের উপকারীতা :

আমাশয়ে দূর্বা ঘাসের রস ২ থেকে ৩ চামচ ডালিম পাতা কিংবা ডালিমের ছালের রস ৪ থেকে ৫ চামচ মিশিয়ে প্রতিদিন ৩ থেকে ৪ বার খান। এভাবে ১০ থেকে ১৫ দিন খেলে আমাশয় ভালো হয়ে যাবে।

 

যে কোন স্বাস্থ্য বিষয়ক তথ্যের জানান দিতে আপনার ডক্টর রয়েছে আপনাদের পাশে।জীবনকে সুস্থ্য, সুন্দর ও সুখময় করার জন্য নিয়মিত ভিজিট করুন আপনার ডক্টর health সাইটে।মনে না থাকলে আপনি সাইট আপনার ব্রাউজারে সেভ করে রাখুন।ধন্যবাদ

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।

Check Also

ইসবগুলের ভুষি

ইসবগুলের ভুষি খাওয়ার সঠিক নিয়ম কী?

অনলাইন বাংলা স্বাস্থ্য টিপস পোর্টাল আপনার ডক্টরের আজকের পোষ্ট ইসবগুলের ভুষি নিয়ে। ইসবগুল বা psyllium …