cool hit counter

ঈদে শাড়ি বাঙালী নারীর প্রদান ভূষণ

ঈদ মানে আনন্দ। আর কয়েকদিন পরেই অসছে শুভ ঈদ। ঈদে শাড়ি হলো নারীর প্রধান ভূষণ। বিশেষ করে বাঙালী নারীর কাছে। ঈদের রঙে রেঙে উঠবে সবার মন। ঈদকে সামনে রেখে তাই সবাই ছুটছে শুধু শপিংমলের দিকে। সবার পথ যেন এসে থেমেছে বর্ণাঢ্য সাজে সেজে ওঠা শপিংমলের প্রাঙ্গণে। যানজটের ধকল সয়ে। যানবাহনের ক্রাইসিস মেনে নিয়ে কেউ একা, কেউ দল বেঁধে, কেউবা সপরিবারে পছন্দের পোশাকটি কিনে নিতে ফ্যাশন হাউস থেকে শুরু করে বিভিন্ন মার্কেট, ফুটপাতে কেনাকাটার উদ্দেশ্যে ঘুরে ঘুরে সময় পার করে দিচ্ছে।
ঈদ বলে কথা। বছর ঘুরে ঈদ আসে এক অনাবিল আনন্দের গাঢ় উদ্দীপনা আর উচ্ছ্বাস নিয়ে। এই উচ্ছ্বাসটাকে বুকে ধারণ করে সব বয়সী নারী-পুরুষের মধ্যে শুরু হয়ে যায় সাধ্যমতো কেনাকটার ধুম। তবে কেনাকাটার ছন্দময় স্পন্দনটা বেজে ওঠে ড্রেস হাউসগুলোতে।
বাঙালি নারীর কাছে অন্যসব পোশাকের আকর্ষণ অসীম হলেও ঈদে শাড়ির প্রতি তাদের আগ্রহ অপরিসীম। ঈদ ছাড়াও কিংবা কোনো পার্টিতে অ্যাটেন্ড করার আগে পার্টি অনুযায়ী শাড়ি উজ্জ্বল ছবিটাই চোখের সামনে ভেসে ওঠে। তবে সব কিছু, সব অনুষ্ঠান ছাপিয়ে ঈদে শাড়ি পরার মজাটাই আলাদা। আর তাই ক’দিনের যাচাই-বাছাই অপেক্ষার পর শুরু হয়ে গেছে সংগ্রহ পর্ব। যুগ যুগ ধরে বাঙালি রমনীদের কাছে শাড়ি এক অনন্য ভূষণ হিসেবে সমাদৃত। সেই ধারাটা এখন যেন আরো এক অনবদ্য মাত্রায় হয়ে উঠেছে অতুলনীয়, একদিকে নারীর রুচি, পছন্দ, ভালোলাগায় যেমন এসেছে মার্জিত ছাপ।
তেমনি তাদের মধ্যে ফ্যাশন, চেতনাও বেড়েছে পূর্বাপেক্ষা বহুগুণ। আর তাই শাড়ির আদি রূপেও এসেছে ব্যাপক পরিবর্তন। তথা এক সময়কার সাদামাটা শাড়িটাই এখন আধুনিক ডিজাইন ও কারুকাজে হয়ে উঠেছে অনিন্দ্য সুন্দরের প্রতিচ্ছবি। মসলিন, জামদানি, টাঙ্গাইল শাড়ির যে ঐতিহ্য বাংলার পরিদেয় বস্ত্র অঙ্গনে ছিল গৌরবময় অধ্যায়। সেই অধ্যায়ের দিক বদল হলেও সেই ঐতিহ্য থেকে বাঙালির শাড়ি সংস্কৃতি পিছিয়ে না পড়ে একটু ভিন্ন আঙ্গিকে নতুন ডাইমেনশন নিয়ে তৈরি করেছে এক সুবিশাল প্ল্যাটফর্ম। যে প্ল্যাটফর্মে এখন সব বাঙালি ললনার উপস্থিতি পরিলক্ষিত হতে দেখা যায় স্বমহিমায়। ঈদের আনন্দ-আবেগের ধারায় সিক্ত এখন সবাই। এখন আর অপেক্ষার সুযোগ নেই। তাই বাঙালি নারীর প্রাণোজ্জ্বল উপস্থিতি ঈদে শাড়ি কেনার জন্য প্রবলভাবে শপিংমলের ফ্যাশন হাউসগুলোতে চোখে পড়ছে। ঢাকার নিউমার্কেট, গাউছিয়া, চাঁদনীচক, ধানমণ্ডি হকার্স, বেইলি রোড, বসুন্ধরা সিটি থেকে শুরু করে ঢাকার অন্য নামি-দামি শপিংমলের অভিজাত শাড়ির শোরুমগুলাতেও পছন্দের শাড়ি সংগ্রহের লক্ষ্যে ভিড় করছেন বিভিন্ন বয়সের নারী। পাশাপাশি ফ্যাশন হাউসগুলোও শাড়িতে নতুন নতুন কারুকাজের সমাবেশ ঘটিয়ে ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে আধুনিক বোধ ও মার্জিত রুচির সমন্বয় ঘটিয়ে ফ্যাশনেবল ফ্লেবার ফোটা শাড়িটা সাজিয় দিয়েছে ডিসপ্লেতে কিংবা নির্বাক ম্যানিকুইনের অবয়বে। প্রতিটা ফ্যাশন হাউস তার নিজস্ব অফিস্পৃহা, প্রেক্ষিতকে আলোকিত করে যেমন শাড়িকে বর্ণময় রূপে উপস্থাপন করছে। তেমনি ঢাকাই জামদানি, মিরপুরের বেনারসী, কাতান, টাঙ্গাইলের তাঁতের শাড়ি, রাজশাহী সিল্কসহ দেশে ঐতিহ্যময়ী শাড়িও শাড়ি বিতানগুলোতে পাওয়া যাচ্ছে বিভিন্ন দামে। অন্যান্য শাড়ির সঙ্গে এই ঈদে টিস্যু, জুট সিল্ক শাড়ির কদরও পরিলক্ষিত দেখা যাচ্ছে। রয়েছে টেক্সটাইলের প্রিন্টের শাড়িও। সুতি, সিল্ক, হাফসিল্ক, হ্যাম্রপেইট, ব্লকপ্রিন্ট, এমব্রয়ডারি অ্যাপ্লিক, বালুচরীসহ বিভিন্ন অভিজাত নাম ধারণকারী শাড়ির গুঞ্জরন জেগে উঠেছে যেন শাড়ির শো রুমগুলোয়। শুধু কি ঢাকা। এই উচ্ছ্বাসের ঢেউ লেগেছে মফস্বল শহরগুলোতেও, সেসব শহরে চলছে পছন্দের শাড়িটি সংগ্রহ করার আকম্ব ধুম। কেনাকাটার এই ধুম চলবে ঈদের আগের দিন পর্যন্ত। অন্যান্য পোশাকের পাশাপাশি বাঙালি রমণী তার চিরায়ত পছন্দটা প্রকাশ করবে পছন্দের শাড়ি ক্রয়ের মধ্য দিয়ে। তাই ঈদে শাড়ি পরেই তার মনটা ভরে যাবে অপার আনন্দে, অনন্ত ভালোলাগায়।

আপনার যে কোন স্বাস্থ্য বিষয়ক তথ্যের জানান দিতে আপনার ডক্টর রয়েছে আপনার পাশে।জীবনকে সুস্থ্য, সুন্দর ও সুখময় করার জন্য নিয়মিত ভিজিট করুন আপনার ডক্টর health সাইটে।মনে না থাকলে আপনি সাইট আপনার ব্রাউজারে সেভ করে রাখুন।ধন্যবাদ

সূত্র: মানবকণ্ঠ

ফেসবুক কমেন্ট

comments

About সাদিয়া প্রভা

সাদিয়া প্রভা , ইন্ডিয়ার Apex Group of Institutions এর BBA এর ছাত্রী ছিলাম। বর্তমানে বাংলাদেশে স্বাস্থ্য বিয়সক তথ্য নিয়ে লেখালেখি করি।